1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘জিহাদি দিদির’ কারণে ‘পশ্চিমবঙ্গ জিহাদিদের আখড়া’

বাংলাদেশের জামায়াতের সঙ্গে ভারতের তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পর্ক এবং জিহাদিদের প্রতি মমতার সমর্থন নিয়ে তোলপাড় টুইটারে৷ ‘তৃণমূল জিহাদ’ এবং ‘জিহাদি দিদি’ হ্যাশট্যাগে এই নিয়ে মন্তব্য করেছেন অনেকে৷

রবিবার থেকেই শোরগোল টুইটারে৷ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজত্বে পশ্চিমবঙ্গ নাকি এখন জেহাদিদের নিরাপদ আশ্রয়ে পরিণত হয়েছে৷ এই অভিযোগ সেদেশের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির৷ বাংলাদেশে এবং ভারতের একাধিক সংবাদপত্রে প্রকাশ হয়েছে এই খবর৷

দৈনিক কালেরকণ্ঠ এই বিষয়ে লিখেছে, ‘‘(২ অক্টোবর) বিস্ফোরণের ঘটনায় ইতিমধ্যেই আঙুল উঠেছে তৃণমূলের দিকে৷ তদন্তে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা এক তৃণমূল নেতার বাড়ি থেকেই উদ্ধার করেছে জিহাদিদের বই, মোবাইল ফোন ইত্যাদি৷ এমনকি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা পৌঁছানোর আগেই তথ্য-প্রমাণ লোপাটের অভিযোগও উঠেছে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে৷''

এই খবরকে কেন্দ্র করে টুইটারে মন্তব্য করেছেন অনেকে৷ গত চব্বিশ ঘণ্টায় ইংরেজিতে #তৃণমূলজিহাদ এবং #জিহাদিদিদি হ্যাশট্যাগ ব্যবহার হয়েছে সহস্রাধিকবার৷ লেখক এবং সাংবাদিক কাঞ্চনগুপ্তা লিখেছেন, ‘‘একজন এমপি বাংলাদেশে জামাতিদের অর্থায়ন করছে৷ আরেকজনের বাড়ি ব্যবহার করেছে আইএম৷ তৃতীয় এক এমপি নারীদের ধর্ষণের হুমকি দিচ্ছেন৷ আর চতুর্থ জন বাংলাদেশকে সমর্থন করছেন৷''

চক্রনিউজ ডটকম টুইটারে একটি গ্রাফিক প্রকাশ করেছে৷ এতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ধরা হয়েছে এবং তাঁকে কেন জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে না, সে প্রশ্ন করা হয়েছে৷

মমতার সমালোচনায় করা টুইটার পোস্টগুলোতে ঘুরেফিরে এসেছে বাংলাদেশের প্রসঙ্গও৷ জামায়াতের সঙ্গে তৃণমূলের সম্পর্কের কথা লিখেছেন অনেকে৷ নিবেদিতা নামক এক টুইটার ব্যবহারকারী ব্যঙ্গ করে লিখেছেন, ‘‘বাংলাদেশকে পশ্চিমবঙ্গের চেয়েও ভালো দেখাচ্ছে৷ এর সব কৃতিত্ব পাবেন #জিহাদিদিদি৷''

প্রসঙ্গত, টুইটারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোন আনুষ্ঠানিক অ্যাকাউন্ট নেই৷ তবে ফেসবুকে তাঁর পাতায় এ সংক্রান্ত কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি৷ ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা ৬ অক্টোবর এক প্রতিবেদনে তৃণমূলের বক্তব্য প্রকাশ করেছে এভাবে, ‘‘তৃণমূল অবশ্য পাল্টা দাবি করেছে, সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা তৈরি করার জন্যই বিজেপি-সিপিএম এমন অভিযোগ করছে৷''

চলচ্চিত্র এবং পুস্তক সমালোচক প্রবাল এই বিষয়ে টুইটারে বিজেপির উদ্দেশ্যে লিখেছেন, ‘‘আপনারা কেনো কমিউনিস্টদের সমর্থন করছেন, যারা বাংলাদেশে গরু চোরচালানের সঙ্গে জড়িত৷''

উল্লেখ্য, ২০১১ সাল থেকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বাংলাদেশ ইস্যুতে তাঁর নীতির সঙ্গে ভারতের কেন্দ্র সরকারের নীতির ফারাক অনেক৷ আর এই বিষয়টি মাঝেমাঝেই আলোচনায় উঠে আসে৷

সংশ্লিষ্ট বিষয়