1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

জাহাজ টানার জাহাজ

জার্মানির উত্তরে যে সাগর, সেখানে প্রচুর জাহাজ চলাচল করে৷ কিন্তু সেই উত্তর সাগরে যদি কোনো জাহাজ দুর্ঘটনা ঘটে? তার জন্য আছে স্পেশাল কমান্ডো আর ‘নর্ডিক' নামের এক অসীম শক্তিশালী টাগবোট৷

‘‘নর্ডিক'' হল জার্মানির সবচেয়ে শক্তিশালী টাগবোট; ৪৫,০০০ অশ্বশক্তির এই জাহাজটি একটি ৪০০ মিটার লম্বা ওশেনলাইনারকেও টেনে নিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা রাখে৷ নর্ডিক খুব বেশি বন্দরে থাকে না, কেননা তার আসল কাজ খোলা সমুদ্রে৷ ৮০ মিটার লম্বা জাহাজটির কাজ হল আপৎকালীন সুরক্ষা, টোয়েন্টিফোর-সেভেন৷ কেননা যে কোনো সময় ঝড় উঠতে পারে, কোনো সমুদ্রগামী জাহাজ বিপদে পড়তে পারে৷ দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে নর্ডিক তেলের ট্যাংকার বা কনটেনার জাহাজগুলিকেও উদ্ধার করে, যাতে সেগুলো তীরে এসে না ধাক্কা খায়৷

নর্ডিকের ক্যাপটেন ক্রিস্টিয়ান শাখট বলেন, ‘‘উত্তর সাগরের এই অংশে দুর্ঘটনায় পতিত বা বিপদগ্রস্ত জাহাজদের টেনে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব আমাদের উপর৷ কোনো জাহাজের ইঞ্জিন খারাপ হয়ে গেলে বা অন্য কোনো বিপদ ঘটলে তারা যাতে তীরে এসে না ধাক্কা খায় বা পরিবেশের পক্ষে ঝুঁকি না হয়ে দাঁড়ায়, আমাদের সেটা খেয়াল রাখতে হয়৷''

এই ‘জার্মান বাইট', অর্থাৎ উত্তর সাগরের দক্ষিণপূর্ব অংশ দিয়ে বছরে প্রায় এক লক্ষ জাহাজ যায় - বিশ্বের সবচেয়ে ব্যস্ত জলপথগুলির মধ্যে এটি একটি৷ এই জাহাজ চলাচলে যদি কোনো দুর্ঘটনা ঘটে, তবে তার দেখাশোনার জন্য যে আপৎকালীন সুরক্ষা গোষ্ঠী গঠন করা হয়েছে, তাদের শীর্ষে রয়েছে এই নর্ডিক জাহাজ৷ বিশেষ করে দুর্ঘটনায় যদি তেল সাগরের পানিতে গিয়ে পড়ে, তাহলে নর্ডিককে তার কেরামতি দেখাতে হয়৷

ডাইরেক্টর অফ অপারেশনস হান্স ভ্যার্নার মনসেস বললেন, ‘‘ট্রেনিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ, কেননা আমরা গোটা উপকূল জুড়ে প্রায় তিন হাজার কর্মী নিয়োগ করতে পারি৷ বহু অফিস, গাড়ি, জাহাজ, হেলিকপ্টার, বিমান৷ বহু কর্মী, যেমন ডাক্তার কিংবা দমকলকর্মীদের জলে বা নৌকায় কাজ করার অভিজ্ঞতা নেই৷ তাদের প্রশিক্ষণ দিতে হয়৷ সব মিলিয়ে আমরা বছরে ১৬০টি মহড়ার আয়োজন করি৷''

খোলা সমুদ্রে মহড়া৷ পানির ওপর তেল নয়, কিন্তু তেলের মতো কিছু একটা ঢেলে দেওয়া হয়েছে – পপকর্ন! বাকিটা খুবই বাস্তবধর্মী৷ এই ‘তেলের গালিচার' খোঁজে বিমান আকাশে উঠেছে৷ মহড়ার চিত্রনাট্য অনুযায়ী পপকর্ন নয় – দু'হাজার টন কাঁচাতেল সাগরে গিয়ে পড়েছে৷ কাজেই কর্মীরা বোটে করে জলে নেমেছেন; তেল যাতে না ছড়ায়, সেজন্য ভাসন্ত বেড়া দেবার প্রস্তুতি চলেছে৷

চিত্রনাট্য আরো জটিল হয়ে উঠল: দুর্ঘটনায় পতিত জাহাজটির হাল ভেঙে গিয়ে জাহাজটি উত্তর সাগরের একটি দ্বীপের দিকে ভেসে চলেছে৷ জাহাজটি আবার তেলের ট্যাংকার, তা থেকে ক্রমেই আরো বেশি তেল বেরোচ্ছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক