1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

জাস্টিন বিবারের কাছে দেয়াল মোছার অনুরোধ

অস্ট্রেলিয়ার একটি হোটেলের দেয়ালে স্প্রে-পেইন্টিং করে তা পরিষ্কারের জন্য শহরের মেয়রের কাছ থেকে চিঠি পেলেন কানাডিয়ান পপ স্টার জাস্টিন বিবার৷ তবে হোটেল কর্তৃপক্ষ সেটা রাখতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে৷

শুক্র ও শনিবার অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে কনসার্ট করার কথা টিন হার্টথ্রব জাস্টিন বিবারের৷ এ কারণে ব্রিসবেনের দক্ষিণ পূর্বে গোল্ড কোস্ট শহরের কিউটি হোটেলে বুধবার পর্যন্ত অবস্থান করছিলেন তিনি৷ সেসময় হোটেলের টেনিস কোর্টে একপাশের দেয়ালে স্প্রে-পেইন্টিং করেছিলেন জাস্টিন বিবার৷ এরপর নিজের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম পেজে ছবিটি পোস্ট করেন তিনি৷ সঙ্গে সঙ্গে ৫ লাখ ৪৫ হাজার লাইক পায় ছবিটি৷ ছবিতে যন্ত্রণাকাতর চোখ আঁকা হয়েছিল৷

তবে ছবিটি পোস্ট করার পর তা নজরে আসে গোল্ড কোস্টের মেয়র টম টেট-এর৷ তার মুখপাত্র রয়টার্সকে বলেছেন, এমন কোনো স্থান এই শহরে নেই, যা যন্ত্রণা'র প্রতীক হতে পারে৷ তিনি বলেন, বিবার যদি কোনো উদাহরণ হিসেবে এটিকে স্থাপন করে থাকেন, তবে সেটা দুর্ভাগ্যজনক৷ সেইসাথে জানান, বিবারের ইচ্ছা থাকুক বা না থাকুক তাঁকে এটা পরিষ্কার করতে হবে৷

Justin Bieber

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ৫ লাখ ৪৫ হাজার ‘লাইক’ পায় বিবারের সেই ছবি

স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, ছবিটি মুছে ফেলতে যন্ত্রপাতিসহ হোটেলে একটি নোটিশও পাঠানো হয়েছে মেয়রের অফিস থেকে৷ টেট গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, সাধারণ কোনো ব্যক্তি এ কাজ করলে জনস্বার্থে তাকে ৮০ থেকে ১০০ ঘণ্টা কাজ করতে হত৷ কিন্তু বিবার যদি এসে এটা পরিষ্কার করে যায়, তবেই তারা খুশি৷ মেয়রের অফিস থেকে বিবারকেও একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে৷ কিন্তু চিঠি পাওয়ার আগেই সিডনির উদ্দেশে হোটেল ছেড়েছেন বিবার৷

এর মধ্যে মেয়র বিবারের টুইটার অ্যাকাউন্টে টুইট করেছেন, ‘গোল্ড কোস্টে আপনি নিশ্চয়ই ভালো সময় কাটিয়েছেন, আপনার উপস্থিতির জন্য আমরা আনন্দিত৷ আশা করছি এখানে দেয়ালটি পরিষ্কার করার জন্য আপনি আবার আসবেন৷'

তবে মেয়রের এই আচরণের একেবারের বিপরীত প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে হোটেল কর্তৃপক্ষের আচরণে৷ রয়টার্সকে ইমেলে তারা জানিয়েছেন, তারা বিবারের ভক্তদের জন্য দেয়ালচিত্রটি রাখতে চান৷ তারা এটিকে সুন্দর চিত্রকর্ম হিসেবে দেখছেন৷ তবে বিবারের পক্ষ থেকে এখনো পর্যন্ত কোনো প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি৷

এপিবি/জেডএইচ (এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন