1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

জাল সিডি'র করুণ শিকার তারকা শিল্পীরা

কপিরাইটের তোয়াক্কা না করে গানের চোরাই সিডি প্রকাশ বাংলাদেশের অনেক শিল্পীকে নিঃস্ব করে দিচ্ছে৷ গায়কের অনুমতি ছাড়াই বেআইনিভাবে তাঁর গান প্রকাশ করায় এখন চিকিৎসা করার পয়সা নেই, এমন অভিযোগ শোনা গেল পপ গুরুর কণ্ঠেই৷

default

বাজারে নকল সিডি শিল্পীর প্রাপ্য মর্যাদা ক্ষুণ্ণ করছে

বাংলাদেশের পপ সম্রাট আযম খান৷ যাঁর রয়েছে অসংখ্য ভক্ত৷ তাঁর চল্লিশ বছরের বেশি সময়ের পেশাগত জীবনে রয়েছে ডজন ডজন হিট গান৷ কিন্তু অবাধে গান পাইরেসির কারণে তিনি আজ নি:স্ব৷ একষট্টি বছর বয়েসি এই গায়ক মুখের ক্যান্সারে আক্রান্ত৷ চিকিৎসার জন্য এবছর তাঁকে হাত পাততে হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ ভক্তদের কাছেও৷

রাজধানী ঢাকায় তাঁর দুই কামরার বাড়িটিতে তিনি আজ শয্যাশায়ী৷ সেখানে বার্তা সংস্থা এএফপি'কে তিনি বলেন, ‘‘গায়ক হিসেবে আমার পেশাগত জীবনে বাজারে আমার সতেরোটি অ্যালবাম রয়েছে, যেগুলো সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়েছে৷ কিন্তু তার জন্য আমি পেয়েছি সাত লাখেরও কম টাকা৷'' তিনি বলেন, ‘‘আমার হিট অ্যালবামগুলো যদি ইউরোপে বের হতো তাহলে আমি এতোদিন জেট বিমানের মালিক হয়ে যেতাম৷ কিন্তু আমার এমন অবস্থা, যে বাংলাদেশের রিকশা চালকরাও আমাকে ভালোবেসে করুণা করে৷ অনেক সময় ভাড়া নেয়না৷''

World cyber games Weltmeisterschaft in Bangladesh

আজকাল কম্পিউটারেই গান ডাউনলোড করা যায়

বিশ্বব্যাপী গানের চাহিদা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে অবৈধভাবে গান প্রকাশনার ঘটনা৷ আর এসব ঘটনার করুণ শিকার প্রতিভাবান শিল্পীরাও৷ আযম খান যার জ্বলন্ত উদাহরণ৷ এশিয়ায় এই পাইরেসি একটা বড় সমস্যা৷ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কিছু কিছু জায়গায় এটা বেশি হচ্ছে৷ বিশেষ করে যেখানে ক্রেতাদের গানের সিডি কেনা বা কোনো গান বৈধভাবে ডাউনলোড করার সুযোগের সীমাবদ্ধতা রয়েছে, সেখানেই পাইরেসির ঘটনা বেশি ঘটছে৷

একই অবস্থা বাংলাদেশের বাজারেও৷ সেখানে গানের সেরা অ্যালবাম লাখ লাখ কপি বিক্রি হয়৷ অথচ বৈধ পথে সিডি কেনার সুযোগ ক্রেতাদের খুবই কম৷ উল্টোদিকে অবৈধভাবে যারা গান বাজারে ছাড়ছে, তাদের কাছ থেকে সিডি কিংবা ক্যাসেট কেনার সুযোগ অবারিত৷ সংগীত শিল্পী এবং বাংলাদেশের সংগীত শিল্প মালিক সংস্থার প্রধান কুমার বিশ্বজিৎ এ বিষয়ে বলেন, ‘‘মাঝেমাঝে বৈধ কপিটি পাওয়া অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায়৷ বাজারে কেবল পাইরেটেড ডিস্কটিই পাওযা যায়৷''

পাইরেসি এখন শুধু সংগীত শিল্পের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়৷ ২০০৯ সালে ‘দ্য বিজনেস সফটওয়্যার অ্যালায়েন্স'র তালিকায় বলা হয়েছে, এশিয়ার যেসব দেশে সবচেয়ে বেশি সফটওয়্যার পইরেসি হয়, বাংলাদেশ তাদের অন্যতম৷

প্রতিবেদন: জান্নাতুল ফেরদৌস
সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক