জার্মান প্রেসিডেন্ট হর্স্ট ক্যোলার পদত্যাগ করলেন | বিশ্ব | DW | 31.05.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জার্মান প্রেসিডেন্ট হর্স্ট ক্যোলার পদত্যাগ করলেন

জার্মান প্রেসিডেন্ট হর্স্ট ক্যোলার সোমবার পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন৷ আফগানিস্তানে জার্মানির সামরিক ভূমিকা নিয়ে তাঁর করা মন্তব্য যে বিতর্ক সৃষ্টি করে তার পরিপ্রেক্ষিতেই পদত্যাগ করলেন হর্স্ট ক্যোলার৷

default

জার্মান প্রেসিডেন্ট হর্স্ট ক্যোলার

শেষ পর্যন্ত নিজের করা মন্তব্য নিয়ে সৃষ্ট বিতর্কের কারণেই সোমবার পদত্যাগ করলেন জার্মান প্রেসিডেন্ট হর্স্ট ক্যোলার৷ সম্প্রতি আফগানিস্তান সফরের সময় তিনি বলেন, অর্থনৈতিক স্বার্থের কারণেই জার্মান সেনাবাহিনী এই অঞ্চলে কাজ করছে৷ তাঁর এই মন্তব্যের কঠোর সমালোচনা করেন জার্মান রাজনীতিবিদরা৷

ক্যোলারের পদত্যাগ ফেডারাল জার্মান প্রজাতন্ত্রের ইতিহাসে এ এক অভূতপূর্ব ঘটনা৷ যার পটভূমিতে রয়েছে আফগানিস্তানে জার্মান সেনাবাহিনীর উপস্থিতির কারণ সম্পর্কে ক্যোলারের করা ঐ বিতর্কিত মন্তব্যটি৷ যুদ্ধ পরবর্তী জার্মানিতে এই প্রথম কোন প্রেসিডেন্ট পদত্যাগ করলেন৷ ক্যোলার অবশ্য সোমবার বার্লিনে ঘোষণা করেন, ‘‘আমি যে জার্মানির অর্থনৈতিক স্বার্থ রক্ষার জন্য বিদেশে জার্মান সৈন্যদের নিয়োগের সপক্ষে বক্তব্য রেখেছি, এ’ধারণা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন৷ যারা এ’কথা বলে, তারা দেশের সর্বোচ্চ নেতৃপদটির প্রতি আবশ্যকীয় মর্যাদা প্রদর্শন করে না৷’’

NO FLASH Horst Köhler

আফগানিস্তানে জার্মান প্রেসিডেন্ট

৬৭ বছর বয়সী ক্যোলার তাঁর পদত্যাগের সিদ্ধান্ত জ্ঞাপন করেন সংসদের উচ্চকক্ষ বুন্ডেসরাটের সভাপতি ইয়েন্স ব্যোর্মসেন’কে৷ ব্রেমেনের মেয়র ব্যোর্মসেন আপাতত প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণ করছেন, সংবিধানে যেমন নির্দেশ করা আছে৷ এছাড়া ক্যোলার, চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল, ভাইস চ্যান্সেলর গিডো ভেস্টারভেলে এবং ফেডারাল সাংবিধানিক আদালতের প্রধান আন্ড্রেয়াস ফসকুলে’কে অবহিত করেন৷

পদত্যাগের বিবৃতি পাঠ করার সময় হর্স্ট ক্যোলারের পাশে ছিলেন তাঁর স্ত্রী এফা লুইজে৷ পাঠ করতে গিয়ে ক্যোলারের কণ্ঠ রুদ্ধ হয়ে আসে এবং চক্ষুও অশ্রুসজল হয়ে আসে৷ সাংবাদিকদের সামনে ক্যোলার বলেন, জার্মানির প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করা আমার জন্যে ছিল এক বিশাল সম্মানের ব্যাপার৷ তিনি বলেন, জার্মানির বহু মানুষ আমার ওপর বিশ্বাস রেখেছিলেন, আমাকে সমর্থন দিয়েছিলেন, সেইজন্যে আমি তাঁদের ধন্যবাদ জানায়৷ তিনি বলেন, আমি আপনাদের অনুরোধ করবো আমার সিদ্ধান্ত বোঝার চেষ্টা করার জন্যে৷ প্রত্যক্ষদর্শীদের বিবরণ অনুযায়ী ক্যোলার তাঁর বিবৃতি প্রদানের পর পরই তাঁর সরকারি বাসভবন বেলভ্যু প্রাসাদ ত্যাগ করেন৷

আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিলের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনপ্রিয় ক্যোলার ২০০৪ সালে প্রথম প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন এবং ২০০৯ সালে পুনর্নির্বাচিত হন৷

প্রতিবেদন: ফাহমিদা সুলতানা/অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

সংশ্লিষ্ট বিষয়