1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জার্মান পুলিশের সহায়তায় বিয়ে ঠেকালেন এক বাংলাদেশি তরুণী

ঘটনাটা ঘটে রাজধানী বার্লিনের একটি এয়ারপোর্টে৷ ১৯ বছর বয়সি এক তরুণী হঠাৎ পুলিশের কাছে গিয়ে দাবি করেন, তাঁকে বাংলাদেশে নিয়ে জোর করে বিয়ে দেয়া হবে৷ এমন একজনের সঙ্গে বিয়ে যাঁকে তিনি চেনেন না৷

Symbolbild Kindesmissbrauch häusliche Gewalt

প্রতীকী ছবি

জার্মান পুলিশ দ্রুতই সহায়তায় এগিয়ে এসেছে৷ তরুণীকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে নিরাপদ আশ্রয়ে৷ তাঁর বাংলাদেশ যাত্রা বাতিল হয়ে যায় তখনই৷ জার্মান পত্রিকা ‘টাগেস স্পিগেল' এই সংবাদ প্রকাশ করেছে বৃহস্পতিবার৷

একই দিনে বাংলাদেশের গণমাধ্যমে প্রকাশিত একটি খবরও টুইটারে আলোড়ন তুলেছে৷ রূপগঞ্জে ১৪ বছর বয়সি এক কিশোরী স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় নিজের বিয়ে ঠেকিয়েছেন৷ জোর করে ৩০ বছর বয়সি এক ব্যক্তির সঙ্গে বিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল তাঁকে৷

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে বাল্যবিবাহ নিয়ে গত কয়েকমাস ধরে আলোচনা চলছে৷ সরকার সম্প্রতি মেয়েদের বিয়ের বয়স কমানোর পরিকল্পনা করেছিল৷ উদ্দেশ্য এভাবে বাল্যবিবাহের হার কমানো৷ কিন্তু ব্যাপক প্রতিবাদের মুখে সরকার সেই পরিকল্পনা থেকে সরে আসে৷

বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের হিসেব অনুযায়ী, দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশে বাল্যবিবাহের হার সবচেয়ে বেশি৷ শতকরা ৬৫ ভাগ৷ তবে শুধু বাংলাদেশ বা দক্ষিণ এশিয়া নয়, বিশ্বের আরো অনেক দেশে বাল্যবিবাহ এক সমস্যা৷ টুইটারে ইংরেজিতে #চাইল্ডম্যারেজ এবং #টুগেদারউইক্যান হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে পাওয়া গেলো এ সংক্রান্ত কিছু তথ্য:

উল্লেখ্য, জার্মান পুলিশ সাধারণত কোনো সাহায্যপ্রার্থী কিংবা গ্রেপ্তারকৃতের নাম ঠিকানা প্রকাশ করেনি৷ বার্লিনের সেই বিমানবন্দর থেকে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যাওয়া মেয়েটির বিস্তারিত তথ্য এখনো জানা যায়নি৷ তবে বিমানবন্দরে পাঠানোর আগে মেয়েটিকে শারীরিকভাবেও নির্যাতন করা হয়েছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

সংকলন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়