1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

জার্মান কুকুর হারল মার্কিন কুকুরের কাছে: ভাষাশিক্ষায়

অবশ্য দুটোই একই জাতের কুকুর, আদতে স্কটল্যান্ডের বর্ডার কলি, ভেড়ার দল সামলানোই যাদের কাজ৷ কে জানতো, তারা মানুষের ভাষা শিখতে এতোটা দড়!

Border, Collie, Rico, Press, konferenz, Berlin, 200, Science, Journal, American, Association জার্মান, কুকুর, হারল, মার্কিন, কুকুর, ভাষা, শিক্ষায়, চ্যাম্পিয়ন, জার্মানি, রিকো

আগের চ্যাম্পিয়ন জার্মানির রিকো

রিকো'কে দিয়েই শুরু করা যাক৷ ২০০৪ সালে জার্মান টেলিভিশনের একটি গেম শো'তে এই কুকুরটির জনসমক্ষে প্রথম আবির্ভাব৷ বলতে কি, আমিও সেদিন টেলিভিশনের পর্দার সামনে ছিলাম এবং দেখে চমকে গিয়েছিলাম যে, একটি মাঝারি সাইজের সাদা-কালো খাড়া-কান কুকুর তার শ'দুয়েক খেলনার প্রত্যেকটিকে চেনে তো বটেই, তাদের নাম জানে, এবং খেলনার নাম করলে পাশের ঘর থেকে সেই খেলনা নিয়ে আসতে পারে৷

রিকোর সেই ‘‘খেলা'' পড়ে বিবর্তনমূলক নৃতত্ত্ব সংক্রান্ত ম্যাক্স প্ল্যাঙ্ক গবেষণা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞানীদের নজরে৷ তারা রিকো'কে নিয়ে নানা ধরণের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে সাব্যস্ত করেন যে, এর মধ্যে কোনো ফাঁকি নেই৷ রিকো তিন বছরের মানবশিশুদের মতো পরিচিত-অপরিচিত বস্তু এবং পরিচিত-অপরিচিত নামের সংযোগসাধন করতে সক্ষম৷ - এখানে অবশ্য দু'টো কথা বলা দরকার: বর্ডার কলি'রা ভেড়া তাড়ানোর সময় মালিকের শিষ এবং অন্যান্য আদেশমেনে কাজ করতে অভ্যস্ত৷ দ্বিতীয়ত, রিকো সফলভাবে কোনো খেলনার নাম শুনে, সেই খেলনা চিনে নিয়ে আসার পর স্বভাবতই সে ডগ বিস্কুট গোত্রীয় একটি পুরস্কার প্রত্যাশা করে৷

Dog Surfing

বর্ডার কলিরা পারে না কী?

রিকো'র তখন ছ'বছর বয়স৷ তাকে নিয়ে লেখা বেরিয়েছিল ‘নেচার' জার্নালে৷ তার ছ'বছর বাদে এবার শোনা যাচ্ছে চেজার'এর নাম৷ এ'ও বর্ডার কলি, তবে থাকে মার্কিন মুলুকে৷ এর দুই মালিক নিজেরাই মনোবিজ্ঞানী৷ এঁরা নাকি রিকো'র কাহিনী শুনেই চেজার'কে পাঁচ মাস বয়স থেকেই ভাষা শেখাতে শুরু করেন৷ চেজার আজ ১,০২২-টি খেলনার নাম জানে৷ এ'ছাড়া সে তার বিভিন্ন ধরণের খেলনার মধ্যে তফাৎ করতে পারে, যেমন তার ১১৬টি বল আছে৷ চেজার'এর খবর বেরিয়েছে এ'সপ্তাহে ‘বিহেভিওরাল প্রসেসেস' নামের একটি পত্রিকায়৷

মজার কথা, চেজার খেলার আনন্দেই খেলে, তাকে সেজন্য কোনো বিশেষ পুরস্কার দিতে হয় না৷ দ্বিতীয়ত - রিকোর ক্ষেত্রে যা স্পষ্ট ছিল না - চেজার কোনো আদেশ এবং কোনো বস্তুর নামের মধ্যে তফাৎ করতে পারে৷ ‘‘মোজাটা নিয়ে এসো,'' বললে সে বোঝে কোন বস্তুর কথা বলা হচ্ছে, এবং তাকে সেই বস্তুটি নিয়ে আসতে বলা হচ্ছে৷ চেজার খেলনা এবং কাজের জিনিষের মধ্যে তফাৎ করতে পারে৷ রিকো এবং চেজার, দু'জনেই বিজ্ঞানীদের চমকে দিয়েছে কেননা তারা একটি অচেনা বস্তুকে অন্যত্র প্রথমবার শোনা নামের সঙ্গে যুক্ত করতে পারে - বাচ্চারা যেমন করে থাকে৷

তবে রিকো এবং চেজারকে নিয়ে উচ্ছ্বাস করার আগে মনে রাখবেন, গিনেস বিশ্বরেকর্ডের তালিকায় পশুজগতে ভাষাশিক্ষার চ্যাম্পিয়ন হল ‘পাক' নামের একটি বাজারিগার - অস্ট্রেলিয়ার এক ধরণের টিয়াপাখি৷ ১৯৯৫ সালে সে জানতো ১,৭২৮টি শব্দ৷

প্রতিবেদন: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: হোসাইন আবদুল হাই

নির্বাচিত প্রতিবেদন