1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জার্মানির বন শহরে শুরু হল জলবায়ু সম্মেলন

জার্মানির বন শহরে আবার শুরু হয়েছে জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে আলোচনা৷ সারা বিশ্ব থেকে প্রায় পাঁচ হাজার প্রতিনিধি অংশ নিচ্ছেন এই সম্মেলনে৷

default

শিল্পোন্নত দেশগুলোর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ

জাতিসংঘের আয়োজনে জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে পরবর্তী সম্মেলন হতে যাচ্ছে মেক্সিকোর কানকুনে৷ এ বছরের নভেম্বরে৷ ঐ সম্মেলনে যেন একটা চুক্তিতে পৌঁছানো সম্ভব হয় তার একটা কাঠামো নিয়েই আলোচনা করছেন প্রতিনিধিরা৷ প্রায় দুই সপ্তাহ চলবে এই সম্মেলন৷

উন্নয়নশীল দেশগুলোতে ‘গ্রিন' অর্থাৎ পরিবেশ বান্ধব প্রযুক্তির সম্প্রসারণ কীভাবে ঘটানো যায় - সেই বিষয়টি প্রাধান্য পাবে বন সম্মেলনে৷

এদিকে শিল্পোন্নত আটটি দেশের কেউই জলবায়ু আলোচনায় নেতৃত্ব না দেয়ায়, এর প্রতিবাদ জানাতে কর্মীরা সম্মেলন স্থলে জড়ো হয়েছেন বলে জানা গেছে৷

উল্লেখ্য, জাতিসংঘের আয়োজনে গত বছরের ডিসেম্বরে ডেনমার্কের কোপেনহেগেনে শেষ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল৷ বিশ্বের প্রায় ১০০টিরও বেশি দেশের সরকার প্রধানরা অংশ নিয়েছিলেন ঐ সম্মেলনে৷ ফলে গণমাধ্যমে তা বেশ প্রচার পেয়েছিল৷ অনেকেই সেসময় একটি নির্দিষ্ট চুক্তির আশা করেছিলেন৷ কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেটি ব্যর্থ হয়ে যায়৷

ডেনিশ লেখক পের মেইলস্ট্রুপের সম্প্রতি প্রকাশিত একটি বইয়ে জাতিসংঘের জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক প্রধান কর্মকর্তা ইভো ডি বোয়ারের লিখিত একটি চিঠি থেকে কিছু মন্তব্য উদ্ধৃত করা হয়েছে৷ সেখানে জাতিসংঘের ঐ কর্মকর্তা কোপেনহেগেন সম্মেলনে এতজন সরকার প্রধানের উপস্থিতির কারণেই আলোচনায় মন্থরতা নেমে আসে বলে মন্তব্য করেছেন৷ তিনি বলেন, সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও চীনা প্রধানমন্ত্রী ওয়েন জিয়াবাও-এর উপস্থিতি আলোচনা প্রক্রিয়ায় কোনো সহায়তা তো করেইনি বরং আরও মন্থর করেছে৷ এছাড়া নির্ধারিত সময়ের আগেই খসড়া চুক্তিটি প্রকাশ হয়ে যাওয়ায় তিনি আয়োজক দেশ ডেনমার্কেরও সমালোচনা করেছেন৷ বোয়ার বলেন, এর ফলে দুই বছরের প্রচেষ্টা মাঠে মারা যায়৷

উল্লেখ্য, গত মাসে বন শহরেই জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে আরেকটি সম্মেলন হয়েছিল যেখানে ৪৫টি দেশের কর্মকর্তারা অংশ নিয়েছিলেন৷ ঐ সম্মেলন শেষে জাতিসংঘের কর্মকর্তা বোয়ার বলেছিলেন যে, তাঁর মনে হয়না কানকুন সম্মেলনেও কোনো চুক্তিতে পৌঁছানো সম্ভব হবে৷

জলবায়ু সুরক্ষা নিয়ে শেষ রফা হয়েছিল ১৯৯৭ সালে, জাপানের কিয়োটোতে আয়োজিত একটি সম্মেলনে৷ ২০১২ সালে তার মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে৷ তাই নতুন একটি চুক্তির পথ খুঁজছে পুরো বিশ্ব৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

সংশ্লিষ্ট বিষয়