1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জার্মানির জাতীয় দিবসের ঢাকায় জমকালো অনুষ্ঠান

ঢাকায় জার্মানির জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানকে আলোকিত করেন দেশের বিশিষ্ট জনরা৷ তারা বাংলাদেশ-জার্মানির ঐতিহাসিক সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় করার কথা বলেন৷ রোববার সন্ধ্যায় জার্মানির জাতীয় সংগীতের মূর্ছনায় শুরু হয় অনুষ্ঠান৷

default

ডয়চে ভেলে রেডিও-কে একান্ত সাক্ষাৎকার দিচ্ছেন জার্মান রাষ্ট্রদূত

এরপর জার্মান শিল্পীদের কন্ঠে বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত শুনে বিমোহিত হন অভ্যাগত সবাই৷ মঞ্চে বাংলাদেশ আর জার্মানির জাতীয় পতাকা৷ আর সেই মঞ্চে দাঁড়িয়ে জার্মান রাষ্ট্রদূত হোলগার মিশায়েল ২০ বছর আগে দুই জার্মানি এক হওয়ার মাহেন্দ্রক্ষণের কথা বলেন৷ তিনি বলেন, ৪৫ বছর বিভক্ত থাকার পর তাদের স্বপ্ন পূরণের কথা৷

জমকালো এই অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে তথ্যমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ শুভেচ্ছা জানান, কাটেন কেক৷ জানান বাংলাদেশ-জার্মানির ঐতিহাসিক সম্পর্কের কথা৷ তিনি বলেন, একাত্তরে জার্মানি বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকারকে স্বীকৃতি দিয়েছিল৷ আর এখন তারা বাংলাদেশের উন্নয়নে সহায়তা করছে৷

সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ বলেন, একটি মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হতে জার্মানির সহায়তা বাংলাদেশের খুব প্রয়োজন৷ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এম কে আনোয়ার বলেন, জার্মানির সঙ্গে বাংলাদেশের সুসম্পর্ক বহুদিনের৷ জার্মানি বাংলাদেশের অন্যতম উন্নয়ন সহযোগী৷ অনুষ্ঠানে নির্বাচন কমিশনার ছহুল হোসাইন বলেন, জার্মানির মত দেশের সহায়তা আমাদের সব সময়ের জন্য প্রয়োজন৷

ঢাকার একটি হোটেলে সন্ধ্যায় শুরু হওয়া জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠান চলে অনেক রাত পর্যন্ত৷ সেখানে নানা আয়োজনের পাশাপাশি ছিল জার্মানিতে উৎপাদিত বিভিন্ন পণ্যের ছোট ছোট স্টল৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: আরাফাতুল ইসলাম

সংশ্লিষ্ট বিষয়