1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

জার্মানির গ্যোয়েটে পুরস্কার পেলেন ‘পেগান’ কবি আডোনিস

মধ্যেপ্রাচ্যে গণতন্ত্র এবং ধর্মনিরপেক্ষতার প্রবক্তা বলে খ্যাত আডোনিস, সাম্প্রতিককালের অগ্রণী আরব কবিদের অন্যতম৷ তাঁর কবিতায়, জগৎ আর চেতনার যে ফারাক সাধারণত করা হয়ে থাকে – তা যেন তছনছ হয়ে ভেঙে পড়ে৷

default

গ্যোয়েটে পুরস্কার পেলেন কবি আডোনিস

সিরিয়ার কবি ও নাট্যকার আডোনিস প্রথম থেকেই নিজেকে একজন ‘পেগান' কবি হিসেবে আখ্যা দেন৷ নিজেকে তিনি যেন দেখতে চান প্রাগৈসলামিক সাহিত্যিক হিসেবে৷ নিজেকে মনে করতে চান এমন এক সময়ের কবি, যখন কবিতাই ছিল সাহিত্যের উবর্রতম ফসল৷ যখন বেদুঈনরা মুখে মুখে কবিতা আবৃত্তি করতো৷ আর কবিতা তাদের জীবনের সঙ্গে মিশে গিয়ে একাকার হয়ে যেত৷

আডোনিস'এর জন্ম ১৯৩০ সালে, ভূমধ্যসাগর সংলগ্ন পাহাড়ে ঘেরা ছোট্ট গ্রাম কাসাবিন'এ৷ জন্ম নাম আলি হামিদ সাঈদ এসবার৷ গোটা মধ্যপ্রাচ্যকে তিনি একটি একক আরব সংস্কৃতি, নানা ঐতিহ্যের মেলবন্ধন হিসেবে দেখতে চেয়েছেন৷ তাঁর কবিতাতেও তাই বারে বারে ফুটে উঠেছে এক ঐক্যবদ্ধ আরব বিশ্ব৷ তার সঙ্গে সঙ্গে ধরা পড়েছে সমসাময়িক সমাজ, রাজনীতি আর তার কুৎসিত মুখোচ্ছবি৷ শাণিত ভাষায় আরব শাসকদের সমালোচনা করেছেন তিনি৷

তবে শুধু কবিতা বা নাটকেই নয়, সিরিয়ার সাম্প্রতিকতম রাজনৈতিক বিপ্লবেও অংশ নেন আডোনিস৷ সোচ্চার হন ক্ষমতাধর সরকারের বিরুদ্ধে, সরাসরি৷ মানবধর্মকে মূলমন্ত্র করে পাঠকদের উপহার দিয়েছেন তিনি কবিতা৷ গেয়েছেন গণতন্ত্রের জয়গান৷ সেজন্যই তো এই পুরস্কার !

আগামী ২৮শে অগাস্ট জার্মানির ফ্রাংকফুর্ট আম মাইন শহরে এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে, ৫০ হাজার ইউরো অর্থমূল্যের এই পুরস্কারটি গ্রহণ করবেন আডোনিস স্বয়ং৷

প্রতিবেদন: দেবারতি গুহ

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক