1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জার্মানির আগামী প্রেসিডেন্ট হতে পারেন ক্রিস্টিয়ান উল্ফ

গত কয়েক দিনের জল্পনা-কল্পনার পর অবশেষে শাসক জোট প্রেসিডেন্ট পদের জন্য প্রার্থী হিসেবে বেছে নিয়েছে ক্রিস্টিয়ান উল্ফ'কে৷ বর্তমানে তিনি লোয়ার স্যাক্সনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী৷

default

ম্যার্কেলের ‘ফেভারিট’ লোয়ার স্যাক্সনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ক্রিস্টিয়ান উল্ফ

গত সোমবার হর্স্ট ক্যোলার আচমকা পদত্যাগ করার ফলে রাষ্ট্রপ্রধানের পদে যে শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছিল, কে তা পূরণ করবে, তা নিয়ে যথেষ্ট অনিশ্চয়তার সৃষ্টি হয়েছিল৷ বাংলাদেশ বা ভারতের মতো জার্মানিতেও প্রেসিডেন্ট পদ মূলত আলঙ্কারিক হলেও জার্মান সমাজে প্রেসিডেন্ট'এর এক বিশেষ মর্যাদা রয়েছে৷ দলীয় রাজনীতির সঙ্কীর্ণতার ঊর্দ্ধে উঠে তিনি সঙ্কটের সময়ে জাতির পাশে দাঁড়াবেন, তাদের আশ্বস্ত করতে সঠিক শব্দ খুঁজে পাবেন – এমনটাই আশা করা হয়৷ জনসাধারণের কাছে প্রায় অপরিচিত ব্যক্তি হিসেবে হর্স্ট ক্যোলার এই পদ গ্রহণ করলেও ৬ বছরের মধ্যে তিনি জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছতে পেরেছিলেন৷ তাঁর বিদায়ের পর এমনই একজন ব্যক্তির সন্ধান করছিল শাসক জোট৷

বাংলাদেশ বা ভারতের মতো জার্মানিতেও জনগণ সরাসরি প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করে না৷ ‘ফেডারেল কনভেনশন' নামের এক সমাবেশের প্রতিনিধিরা মনোনীত প্রার্থীদের মধ্যে থেকে একজনকে নির্বাচিত করেন৷ এই মুহূর্তে এই সমাবেশে রক্ষণশীল ও উদারপন্থী জোটের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকায় তাদেরই প্রার্থী যে আগামী প্রেসিডেন্ট হবেন, তা শুরু থেকেই প্রায় নিশ্চিত হিসেবে ধরে নেওয়া হয়েছে৷

Joachim Gauck

উল্ফ’এর প্রতিদ্বন্দ্বী ইওয়াখিম গাউক

ফেডারেল জার্মানির প্রথম মহিলা চ্যান্সেলর হিসেবে আঙ্গেলা ম্যার্কেল ক্ষমতায় আসার পর প্রেসিডেন্ট পদেও প্রথম বারের মত এক নারীকে দেখা যেতে পারে, এমন একটা প্রত্যাশা তৈরি হয়েছিল৷ হর্স্ট ক্যোলার পদত্যাগ করার পর তাই সবার আগে শোনা যাচ্ছিলো বর্তমান শ্রমমন্ত্রী উর্সুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন'এর নাম৷ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ভল্ফগাং শয়েবলে'র নামও আলোচনায় উঠে এসেছিলো৷ কিন্তু শেষ পর্যন্ত শাসক জোট প্রার্থী হিসেবে তুলে ধরলো ৫০ বছর বয়স্ক ক্রিস্টিয়ান উল্ফ'এর নাম৷ জিতলে তিনিই হবেন জার্মানির সবচেয়ে তরুণ প্রেসিডেন্ট৷ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উল্ফ সেই মনোনয়ন গ্রহণ করেছেন৷ উল্ফ বলেন, এটা একটা বিশাল দায়িত্ব৷ কঠিন এই সময় মানুষের মনে আশার আলো আনতে তিনি যথাসাধ্য করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি৷

আগামী ৩০শে জুন ‘ফেডারেল কনভেনশন' ক্রিস্টিয়ান উল্ফ'কে নির্বাচিত করবে – এমনটা ধরে নেওয়া হলেও একেবারে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তিনি দেশের সর্বোচ্চ পদে আসীন হতে পারবেন না৷ বিরোধী সামাজিক গণতন্ত্রী ও সবুজ দল যৌথভাবে প্রার্থী হিসেবে ইওয়াখিম গাউক'এর নাম মনোনয়ন করেছে৷ ৭০ বছর বয়স্ক গাউক সাবেক পূর্ব জার্মানির নাগরিক আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন৷ কুখ্যাত গোয়েন্দা সংস্থা ‘স্টাসি'র গোপন নথিপত্র জনসমক্ষে উন্মুক্ত করার লক্ষ্যে যে দপ্তর গড়ে তোলা হয়েছে, তার প্রধান হিসেবে তিনি উল্লেখযোগ্য কাজ করেছেন৷ রক্ষণশীল ও উদারপন্থী জোটের মধ্যেও গাউক অত্যন্ত সম্মানিত ব্যক্তি৷ ফলে ৩০শে জুন তিনি শাসক জোটের কিছু প্রতিনিধির ভোট পেয়ে যেতে পারেন, এমন সম্ভাবনা সম্পূর্ণ উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না৷

প্রতিবেদন: সঞ্জীব বর্মন
সম্পাদনা: হোসাইন আব্দুল হাই

সংশ্লিষ্ট বিষয়