1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

জার্মানির অর্থনীতি নিয়ে দুশ্চিন্তায় পুঁজিবাজার

জার্মানির অর্থনীতি সংক্রান্ত কিছু সাম্প্রতিক তথ্য নিয়ে ইউরোপের পুঁজিবাজারে দুশ্চিন্তা দেখা দিচ্ছে৷ সম্প্রতি আমদানি-রপ্তানিও কিছুটা কমে গেছে৷ তবে এর জন্য মূলত বিশ্ব অর্থনীতির গতি-প্রকৃতি দায়ী বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা৷

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত মে মাসে জার্মানির বাণিজ্য বড় ধাক্কা খেয়েছে৷ আমদানি-রপ্তানি দুটোই কিছুটা কমে গেছে৷ ফলে ইউরোপের সবচেয়ে বড় অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি প্রশ্নের মুখে৷ এর অন্যতম প্রধান কারণ অবশ্যই বিশ্ব অর্থনীতির ক্ষেত্রে অনিশ্চয়তা৷ বিশেষ করে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাইরের দেশগুলিতে রপ্তানির পরিমাণ অনেকটা কমে গেছে৷ চীন সহ কিছু উদীয়মান অর্থনৈতিক দেশ আমদানি কমিয়ে দিয়েছে৷ ইউক্রেন সংকটের কারণে রাশিয়ার সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্কেরও অবনতি ঘটেছে৷

অন্যদিকে ইউরো এলাকার বাকি দেশগুলিতে জার্মানির রপ্তানি কিছুটা বেড়ে গেছে৷ ইউরো এলাকা সম্পর্কে আশার আলো দেখাচ্ছে ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক৷ ইসিবি-র অন্যতম কর্মকর্তা ক্রিস্টিয়ান নয়ার সম্প্রতি বলেছেন, ডিফ্লেশন বা মূল্য-হ্রাসের ঝুঁকি কেটে গেছে, যদিও মূল্যস্ফীতির হার এখনও কম রয়েছে৷

Symbolbild Euro Spanien

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত মে মাসে জার্মানির বাণিজ্য বড় ধাক্কা খেয়েছে

তিনিও এ প্রসঙ্গে বিশ্ব অর্থনীতির কিছু সমস্যার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করেন৷ তাঁর মতে, একদিকে ইউরো এলাকা ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বটে, কিন্তু অন্যদিকে চীনের প্রবৃদ্ধি নিয়ে প্রশ্ন রয়ে গেছে৷ অ্যামেরিকার অর্থনীতির ক্ষেত্রেও প্রত্যাশিত গতি দেখা যাচ্ছে না৷

জার্মানির অর্থনীতি সংক্রান্ত তথ্যের কারণে ইউরোপের পুঁজিবাজারেও দুশ্চিন্তা দেখা দিচ্ছে৷ তার উপর জার্মানির কম্যারৎসবাংক-কে অ্যামেরিকায় মোটা অঙ্কের ক্ষতিপূরণ দিতে হতে পারে৷ ফলে এই ব্যাংকের শেয়ার এক ধাক্কায় কমে গেছে৷ তবে সামগ্রিকভাবে কয়েকটি বড় ইউরোপীয় প্রতিষ্ঠানের দরপতনকে সাময়িক ঘটনা হিসেবেই দেখা হচ্ছে৷ বিশ্লেষকদের আশা, ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে যে সব পদক্ষেপ নিচ্ছে, তার ফলে ইউরোপের পুঁজিবাজার আবার সুদিন দেখতে চলেছে৷

এদিকে প্রবৃদ্ধির স্বার্থে ইউরো এলাকার কড়া বাজেট সংক্রান্ত নিয়ম কিছুটা শিথিল করার পক্ষে সওয়াল করছে ইটালি সহ দুর্বল দেশগুলি৷ জার্মানি সহ শক্তিশালী দেশগুলি যথারীতি এর বিরোধিতা করে চলেছে৷ সংস্কার ও ব্যয়সংকোচের মাধ্যমেই অর্থনীতিকে দীর্ঘমেয়াদি ভিত্তিতে জোরালো করে তোলা সম্ভব বলে মনে করে এ সব দেশ৷ ইটালির প্রধানমন্ত্রী মাটেও রেনসি কর্মসংস্থান বাড়ানো ও বেকারত্ব কমানোর বিষয়টিকেই প্রাধান্য দিতে চান৷ তাঁর মতে, এটা করতে পারলে গোটা ইউরোপের উপকার হবে৷

এসবি/ডিজি (রয়টার্স, ডিপিএ, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়