1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জার্মানিতে হামলা প্রচেষ্টার জন্য চার জঙ্গির কারাদণ্ড

জার্মানিতে সন্ত্রাসী হামলার ষড়যন্ত্রের অভিযোগে ৪ জন জঙ্গিকে ৫ থেকে ১২ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে৷ বৃহস্পতিবার জার্মানির একটি আদালত এই রায় দিয়েছে৷

default

জাওয়ারলান্ড গোষ্ঠীর চার অভিযুক্ত

ইসলাম ধর্ম গ্রহণকারী দুই জার্মান নাগরিক ফ্রিৎস গেলোভিৎস এবং ডানিয়েল শ্নাইডারকে দেওয়া হয়েছে ১২ বছরের কারাদণ্ড৷ তুর্কি নাগরিক আডেম ইলমাৎসকে ১১ বছরের এবং তুর্কি বংশোদ্ভূত জার্মান নাগরিক আটিলা সেলেককে দেওয়া হয়েছে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড৷ পশ্চিম জার্মানির জাওয়ারলান্ডে তাদেরকে আটক করার পর থেকে এই চার জন জঙ্গিকে ‘জাওয়ারল্যান্ড গোষ্ঠী' হিসেবে আখ্যায়িত করা হচ্ছে৷

১২ বছরের কারাদণ্ড প্রাপ্ত ফ্রিৎস গেলোভিৎস ছিল এই গোষ্ঠীটির নেতা৷ তাদের আটক করতে পুলিশি অভিযানের সময় পুলিশ কর্মকর্তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ার কারণে একই মাপের শাস্তি জুটেছে ডানিয়েল শ্নাইডারের ভাগ্যে৷ ঐ শহরের একটি বাসা-বাড়ি থেকে ২০০৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসে তাদেরকে আটক করার পূর্বে কয়েক মাস ধরে তাদের উপর কড়া নজর রাখছিল জার্মান পুলিশ৷ ঐ বছর ১২ অক্টোবরের মধ্যেই নির্ধারিত স্থাপনাসমূহে হামলার পরিকল্পনা করেছিল অভিযুক্তরা৷ আদালতে সন্ত্রাসী হামলা পরিকল্পনার কথা এবং নিজেদের ভুল স্বীকার করায় প্রধান দুই আসামী গেলোভিৎস এবং শ্নাইডারকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড না দিয়ে তা কিছুটা কমানো হয়েছে বলে কৌঁসুলিরা জানিয়েছেন৷

No Flash Sauerland Gruppe Prozess in Düsseldorf

বুধবার জাওয়ারলান্ড মামলার বিচার কাজের সময় ড্যুসেলডর্ফ আদালত প্রাঙ্গণ

ড্যুসেলডর্ফ শহরে দশ মাসেরও বেশি সময় ধরে বিচারকাজ চলার পর আদালত এই রায় দিল৷ বিচারপতি অটমার ব্রাইডলিং রায় দিতে গিয়ে বলেন, ‘‘অভিযুক্তরা দ্বিতীয় এক নাইন-ইলেভেন ঘটানোর স্বপ্ন দেখেছিল৷'' এছাড়া জাওয়ারল্যান্ড গোষ্ঠীর এই সন্ত্রাসী হামলার প্রচেষ্টাকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর সর্বোচ্চ সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনা বলে আখ্যায়িত করেছেন বিচারপতি ব্রাইডলিং৷ রায়ে উল্লেখ করা হয়, ‘‘অভিযুক্তরা যদি সফলভাবে এই হামলা চালাতে পারতো, তবে প্রাথমিকভাবে মার্কিন সেনা সদস্যদের এবং সাধারণ মানুষদের প্রাণহানি ঘটতো, বয়ে যেতো ভয়াবহ রক্তবন্যা৷''

বহুল আলোচিত এই মামলার রায় ঘোষণার সময় দীর্ঘ শ্মশ্রুমণ্ডিত চার জঙ্গিকেই বেশ শান্তভাবে বসে থাকতে দেখা গেছে৷ এই জঙ্গিরা জার্মানিতে অবস্থিত মার্কিন স্থাপনায় হামলা চালানোর পরিকল্পনা এবং আল কায়েদার সাথে যুক্ত জঙ্গি গোষ্ঠী ‘ইসলামিক জিহাদ ইউনিয়ন' এর সাথে তাদের জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করে৷ পরিকল্পনার আওতায় জার্মানির যেসব পানশালা কিংবা নাইটক্লাবে মার্কিন নাগরিকদের যাতায়াত বেশি রয়েছে সেগুলোতে এবং মার্কিন সামরিক-ঘাঁটি ও কূটনৈতিক স্থাপনাসমূহে হামলার কথা ছিল ঐ জঙ্গিদের৷ মার্কিনিদের উপর হামলা চালানোর পরিকল্পনা করলেও একইসাথে আফগানিস্তানে সামরিক সম্পৃক্ততা থাকার কারণে জার্মানদেরকেও শাস্তি দিতে চেয়েছিল জঙ্গিরা৷

প্রতিবেদক : হোসাইন আব্দুল হাই, সম্পাদনা : আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়