জার্মানিতে মসজিদগুলির ওপর হামলা বৃদ্ধি পাচ্ছে | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 09.08.2014
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

জার্মানিতে মসজিদগুলির ওপর হামলা বৃদ্ধি পাচ্ছে

জার্মানির মসজিদগুলি মাঝে মাঝেই হামলার শিকার হচ্ছে৷ ইদানীং এই প্রবণতাটা আরো বেড়ে গিয়েছে৷ মসজিদের সামনে শুয়োরের মাথা কেটে ফেলে রাখা হচ্ছে৷ দেওয়ালে আঁকাজোকা, দরজা ভাঙা এমনকি রাতে আগুন জ্বালানোর ঘটনাও ঘটছে৷

বিভিন্ন মুসলিম সংগঠন, রাজনীতিবিদ ও গবেষকরা তাই এ ব্যাপারে সতর্ক হওয়ার কথা বলছেন৷

জার্মান সরকারের নতুন পরিসংখ্যানে লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, মসজিদগুলির ওপর হামলা দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে৷ ২০০১ থেকে ২০১১ সালের মধ্যে বছরে ২২টি হামলা হয়েছে মসজিদের ওপর৷ ২০১২ থেকে ২০১৩ সালে এই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৫/৩৬টি৷ মুসলিম সংগঠনগুলির পরিসংখ্যানেও এই রকম চিত্রই উঠে আসে৷

মুসলিম বিদ্বেষ বৃদ্ধির লক্ষণ

মুসলিম কেন্দ্রীয় পরিষদের প্রধান আইমান মাজিয়েক এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘এটা মুসলিম বিদ্বেষ বৃদ্ধি পাওয়ার স্পষ্ট লক্ষণ৷'' মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকজন ও হিজাবপরা নারীদের ওপর সহিংসতার হার যে ভাবে বাড়ছে তা উদ্বেগজনক বলে মনে করেন মাজিয়েক৷

মুসলিমবিরোধী অপরাধকে আলাদাভাবে তালিকাবদ্ধ করা ও মুসলমানদের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলির সুরক্ষার ব্যবস্থা করার দাবি জানান মাজিয়েক৷ বিশেষ করে রাজনীতিবিদদের কাছ থেকে সহযোগিতার সংকেত আশা করেন তিনি৷ জার্মানিতে চার মিলিয়ন মুসলমান এই সমাজেই সম্পৃক্ত হয়ে বসবাস করছেন৷ পরিস্থিতি এখনও আয়ত্তের মধ্যে রয়েছে৷ কিন্তু কতদিন চলবে এইভাবে? এই প্রশ্ন আইমান মাজিয়েকের৷

জার্মানিতে বিদেশি বিদ্বেষকে রাজনৈতিক অপরাধের আওতায় ধরা হয়৷ কিন্তু ইসলাম বা মুসলমান বিদ্বেষ বলে আলাদা কোনো ক্যাটাগরি নেই৷

২০০১ সাল থেকে প্রতি আড়াই সপ্তাহ পর পর কোনো মসজিদ বা ইসলামি সংগঠন আক্রমণের শিকার হচ্ছে৷ এই তথ্য উঠে আসে মুসলিমদের সমন্বয় পরিষদের এক ওয়েব সাইটে৷ পরিসংখ্যানের বাইরে থাকা সংখ্যাটা আরো বেশি হবে বলে উল্লেখ করা হয় এই সাইটে৷

সমাজের কেন্দ্রে পৌঁছেছে

লাইপসিগ শহরের গবেষক ও চিকিত্সা মনস্তত্ত্ববিদ এলমার ব্র্যালারও জার্মানিতে মুসলিম বিদ্বেষ বেড়ে যাচ্ছে বলে মনে করেন৷ ইতোমধ্যে তা সমাজের বিস্তৃত অংশ তথা মধ্যবিত্ত শ্রেণিতেও এসে পৌঁছেছে৷ তবে ইসলাম বৈরিতা ইহুদি বিদ্বেষের মতো প্রকট হয়নি এখনও৷ ইহুদি বিদ্বেষ সমাজের গভীরে প্রোথিত৷ জার্মানিতে চরম ডানপন্থি মনোভাব নিয়ে একটি সমীক্ষা সহকর্মীদের সহযোগিতায় লাইপসিগ বিশ্ববিদ্যালয়ে উপস্থাপিত করেছেন ব্র্যালার৷ এর সারমর্ম: বর্ণ বৈষম্যের নতুন রূপ হলো ইসলাম বৈরিতা৷ ‘‘প্রতি তিন জনে একজন জার্মান মনে করেন, জার্মানিতে মুসলমানদের অভিবাসন নিষিদ্ধ করা উচিত৷'' জানান সমীক্ষার লেখকরা৷

নতুন কোনো বিষয় নয়

বাম দলের রাজনীতিবিদ উলা ইয়েল্পকে মুসলিম বিদ্বেষ নতুন কোনো বিষয় নয় বলে মনে করেন৷ তাঁর দাবি, ইহুদি বিদ্বেষের মতো মুসলিম বিদ্বেষকেও নিষিদ্ধ করা উচিত৷ জার্মান সরকার বিষয়টিকে ছোট করে দেখছে বলে দোষারোপ করেন তিনি৷ মুসলমানদের রাজনৈতিক ও সামাজিক দুরবস্থার জন্য বলির পাঠা করা উচিত নয়৷ বিষয়টি পারস্পরিক সহাবস্থানের ক্ষেত্রে ক্ষতিকর৷

ইসলাম আর্কাইভের তথ্য অনুযায়ী জার্মানিতে মিনারসহ মসজিদের সংখ্যা ৭০০ থেকে ৮০০৷ এছাড়া রয়েছে প্রায় ৩০০০-এর মতো দালান, যেখানে মুসলমানরা নামাজ পড়ে থাকেন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়