1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জার্মানিতে প্রধান দুই দল জোট গঠনে একমত

সিডিইউ-সিএসইউ এবং এসপিডি দল মিলে ‘বড়জোট’ সরকার গঠনের পথে বড় পা ফেলেছে: তথাকথিত ‘কোয়ালিৎসিয়ন্সফেরট্রাগ’ বা জোটের চুক্তির খসড়া তৈরি৷ শুধু এসপিডি দলের সদস্যদের সেই খসড়া অনুমোদন করা বাকি৷

একটি চূড়ান্ত বৈঠকে একটানা ১৮ ঘণ্টা আলাপ-আলোচনার পর জোটের চুক্তির নিষ্পত্তি হলো মঙ্গলবার ভোররাতে৷ ম্যারাথন বৈঠকে সর্বাপেক্ষা কণ্টকিত সমস্যাগুলির সমাধান করেন তিন দলীয় প্রধান: খ্রিষ্টীয় গণতন্ত্রীদের সভাপতি আঙ্গেলা ম্যার্কেল, খ্রিষ্টীয় সামাজিক দলের সভাপতি হর্স্ট জেহোফার এবং সামাজিক গণতন্ত্রীদের সভাপতি সিগমার গাব্রিয়েল৷ প্রধানদের নিয়ে সব মিলিয়ে মোট ৭৭ জন প্রতিনিধি মাথা ঘামিয়েছেন সেই চূড়ান্ত বৈঠকে৷

জোটের চুক্তিতে কার কোথায় ‘হস্তাক্ষর'

এই বড়জোট যদি সত্যিই ক্ষমতায় আসে, তাহলে সেটা হবে ফেডারাল জার্মান প্রজাতন্ত্রের ইতিহাসে তৃতীয় বড়জোট৷ এবং এক এসপিডি দলের সদস্যদের মতিগতি ছাড়া সেই বড়জোটের পথে আপাতত কোনো বাধা নেই, কেননা জোটচুক্তি সংক্রান্ত বৈঠকে সংশ্লিষ্ট দলনেতারা সকলেই বলছেন, ঐ চুক্তিতে তাদের নিজস্ব হস্তাক্ষর প্রমাণ মাপের এবং সুস্পষ্ট৷

ধরা যাক ন্যূনতম পারিশ্রমিকের প্রশ্নটি, যেখানে সামাজিক গণতন্ত্রীরা ঘণ্টায় সাড়ে আট ইউরো'র মজুরি চালু করতে আকুল ছিল৷ তাদের সে মনোবাসনা পূর্ণ হয়েছে: ২০১৫ সালের সূচনা থেকেই এই ন্যূনতম পারিশ্রমিক চালু করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে৷ তবে মালিকপক্ষ এবং শ্রমিকপক্ষ ২০১৬ সালের ডিসেম্বর মাস অবধি সময় পাবে অন্য কোনো ধরনের ন্যূনতম মজুরি নির্দিষ্ট করার জন্য, এমনকি সে মজুরি ঘণ্টায় সাড়ে আট ইউরোর নীচে হলেও৷

অপরদিকে সিডিইউ-সিএসইউ দল তথাকথিত ‘ম্যুটাররেন্টে' বা মায়েদের অবসরভাতার শর্তটি বজায় রাখতে পেরে খুশি: ১৯৯২ সালের আগে যে সব মায়েরা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন, তাদের অবসরভাতা বাড়ানোর এই পরিকল্পনা রক্ষণশীলদের কাছে যেমন প্রিয় তেমনই গুরুত্বপূর্ণ৷ এসপিডি দল খুশি, কেননা যে সব শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন কম বলে তাদের অবসরভাতাও শেষমেষ নিতান্ত কম হয় কিংবা হতে পারে, তাদের সরকারি তরফ থেকে মাসে ৮৫০ ইউরো ন্যূনতম অবসরভাতা দেওয়ার পরিকল্পনা করা হচ্ছে ২০১৭ সাল থেকে৷

সিএসইউ দল পাচ্ছে তাদের ‘কার টোল ট্যাক্স' বা মোটরওয়ে'তে প্রাইভেট গাড়ি চালানোর জন্য শুল্ক বা মাশুল - যা কিনা সিএসইউ প্রধান হর্স্ট জেহোফার'এর কাছে মানসম্মানের প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছিল৷ জেহোফারের প্রস্তাব ছিল, বিদেশিরা যখন জার্মানির ‘আউটোবান' বা মোটরওয়ে'গুলি ব্যবহার করে, তখন সুইজারল্যান্ড কিংবা ফ্রান্সের মতো তাদের এখানেও মোটরওয়েগুলির মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য মাশুল দেওয়া উচিৎ৷

দ্বিবিধ নাগরিকত্ব নিয়ে বিবাদে এসপিডি দল দৃশ্যত তাদের দৃষ্টিভঙ্গী জারি করতে পেরেছে: জার্মানিতে জন্ম, এমন অভিবাসী-সন্তানদের এবার তাদের ২৩ বছর বয়স হবার মধ্যে জার্মানি কিংবা বাবা-মায়ের জন্মের দেশের নাগরিকত্বের মধ্যে কোনো একটিকে বেছে নিতে হবে না৷ সিএসইউ দলের সাধারণ সম্পাদক আলেক্সান্ডার ডব্রিন্ট কিন্তু সঙ্গে সঙ্গে সাংবাদিক সম্মেলন করে বলেছেন যে, এর অর্থ এই নয় যে, জার্মানিতে এবার থেকে দ্বিবিধ নাগরিকত্ব চালু হল৷

শেষ বেড়া

বড়জোট গঠনের পথে শেষ বাধা কিন্তু সামাজিক গণতন্ত্রীদের নিজেদের আরোপিত একটি শর্ত: তারা চায় যে, দলের সদস্যরা এই জোটচুক্তি অনুমোদন করুন৷ দলের সদস্য বলতে চার লক্ষ তিয়াত্তর হাজার মানুষ৷ তাদের মধ্যে পত্রমারফত গণভোট হবে ডিসেম্বরের প্রথমার্ধে৷ এসপিডি'র সাধারণ সম্পাদক আন্দ্রেয়া নালেস কিন্তু আশাবাদী যে, দলের সদস্যদের একটি সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশ এই জোটচুক্তি অনুমোদন করবেন৷

সেক্ষেত্রে ১৭ ডিসেম্বর আঙ্গেলা ম্যার্কেল বুন্ডেস্টাগে আবার চ্যান্সেলর পদে নির্বাচিত হবেন - চ্যান্সেলর হিসেবে তাঁর তৃতীয় কর্মকালের জন্য৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়