1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানিতে উচ্চশিক্ষা

জার্মানিতে পড়াশোনার জন্য যথাযথ থাকার জায়গা

যেখানে কোন ধরণের সমস্যা ছাড়া, নির্বিঘ্নে একটু পড়াশোনা করা যাবে, আর তা হতে হবে খুব অল্প খরচের মধ্যে৷ জার্মানিতে ছাত্র-ছাত্রীদের পছন্দের জায়গা হল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডর্মিটারিগুলো৷

default

জার্মানিতে ছাত্রাবাসগুলোতে দেখা মেলে নানা দেশের ছাত্র ছাত্রীদের

জার্মানির প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়েরই নিজস্ব ডর্ম বা হল রয়েছে৷ সেখানে রুমের ভাড়া খুবই কম৷ একেকটি ছাত্র বা ছাত্রীকে একটি রুম দেওয়া হয়৷ করো সঙ্গে রুম শেয়ার করতে হয় না৷ তবে টয়লেট বা বাথরুম এবং রান্নাঘর শেয়ার করতে হয়৷ হ্যাঁ, নিজের রান্না নিজেকেই করে খেতে হবে তাই জার্মানিতে আসার আগে বেশ ভাল করে রান্না শিখে আসা জরুরি৷ আর ছেলেদের বা মেয়েদের হল বলে কিছু নেই৷ প্রতিটি হলে ছেলে-মেয়েরা একসঙ্গেই থাকে৷

তবে স্টুডেন্ট ডর্মে থাকা যে কোন বিদেশি ছাত্র-ছাত্রীর জন্য সবচেয়ে বেশি সুবিধাজনক৷ কোন ধরণের সমস্যা হলে যে কারো কাছ থেকেই সাহায্য পাওয়া যায়৷ আর পড়াশোনার বিষয়ে কোন কিছু না বুঝলে বা একটি ক্লাস মিস করলে অন্যান্য সহপাঠীর কাছে থেকে তা সহজেই জানা যায়, যদি সে থাকে একই গণ্ডির মধ্যে৷

Studentenwohnheim Riemenschneiderstrasse in Bonn

নানা দেশের খাবার দাবারের অভিজ্ঞতাও হয় এখানে এসে

ডর্ম ছাড়া আরেক ভাবে বসবাস করার সুযোগ রয়েছে ছাত্র-ছাত্রীদের৷ একটি ফ্ল্যাট ভাড়া করে কয়েকজন ছাত্র-ছাত্রী একসঙ্গে থাকতে পারে৷ তাকে বলা হয় ভোনগেমাইনশাফ্ট সংক্ষেপে ভেগে৷ এখানে রুম ভাড়া ছাড়াও, বিদ্যুৎ এবং পানির খরচ বহন করতে হয় ছাত্র-ছাত্রীদের৷ কোন কোন সময় তা হতে পারে বেশ ব্যয়বহুল৷

ইয়েমেনের ছাত্র আব্দুল রহমান৷ জার্মানিতে প্রযুক্তি বিষয় নিয়ে সে পড়াশোনা করছে৷ ছাত্র হিসেবে থাকার সুযোগ সুবিধা সম্পর্কে সে বলল, ‘‘আমি প্রথমে একটি বাড়ি ভাড়া করে থাকতাম৷ আমার বাড়িওয়ালাও একই বাড়িতে থাকতো৷ আমার সমস্যা ছিল আমি পুরো বাড়িতে একা থাকতাম৷ এরপর আমি যোগাযোগ করি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টুডেন্ট সার্ভিস সেন্টারে৷ সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে একটি রুমের জন্য আবেদন করি৷ আমাকে প্রায় তিন মাস অপেক্ষা করতে হয়েছিল কারণ কোন রুমই ফাঁকা পাওয়া যাচ্ছিল না৷ এরপর যখন আমি হলের রুমে উঠে যাই তখন আমার অনেক সুবিধা হয়৷ নিঃসঙ্গতার হাত থেকে আমি মুক্তি পাই৷ চাইলেই পাশের রুমে চলে যেতাম গল্প করার জন্য৷ এছাড়া রান্নাঘরে রান্নার পাশাপাশি সারাক্ষণই চলতো আড্ডা৷ আর হলের রুমে ফার্নিচার ছিল৷ আমাকে কিছুই কিনতে হয়নি৷ বিছানা, টেবিল, চেয়ার, বুক শেল্ফ৷ রান্নাঘরে ফ্রিজ, কাপড় ধোয়ার জন্য ওয়াশিংমেশিন৷ হলে থাকার পর আমার খরচ প্রায় অর্ধেক কমে গিয়েছিল৷ আমাকে প্লেট-গ্লাস পর্যন্ত কিনতে হয়নি৷ এছাড়া হলে বিনামূল্যে ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়া হয়৷ এর জন্য ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে একটি পয়সাও নেওয়া হয় না৷''

কথা ঠিক৷ যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের ডর্মে থাকলে অনেক ধরণের খরচ বেঁচে যাবে৷ আপনি যদি কয়েকজন বন্ধু বান্ধব মিলে একটি ফ্ল্যাট ভাড়া করে থাকতে চান তাহলে অনেক কিছুই হয়তো আপনাকে কিনে নিতে হবে৷ যেমন ধরা যাক – প্লেট, বাটি, চামচ, শোবার বিছানা, টেবিল, চেয়ার, বুক শেল্ফ এবং কাপড় রাখার জন্য ওয়াড্রোব বা আলমারি৷ এই খরচগুলো খুব সহজেই বাঁচানো সম্ভব যদি বিশ্ববিদ্যালয়ের ডর্মে থাকা যায়৷

Bildergalerie Medienstar Verona Pooth (geb. Feldbusch)

পড়াশোনা শেষে একটি ডিগ্রি

আপনি যদি বিশ্ববিদ্যালয়ের ডর্মে থাকতে চান তাহলে জার্মানিতে আসার আগেই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে তা জানাতে হবে অন্তত তিন মাস আগে৷ তা নাহলে আপনার জন্য হয়তো কোন রুম ফাঁকা থাকবে না৷ যেহেতু ডর্মের ভাড়া যে কোন ফ্ল্যাট বাড়ির চেয়ে অনেক কম তাই – ডর্মগুলোই হচ্ছে ছাত্র-ছাত্রীদের প্রথম পছন্দ৷ আর ডর্মগুলো সবসময়ই হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের কাছে তাই অনেক সময় যাতায়াত খরচও বাঁচানো সম্ভব৷

ডর্মে থাকার সবচেয়ে বড় সুবিধা হল পড়াশোনার সুযোগ-সুবিধা৷ ক্লাসের অনেককেই আপনি পেতে পারেন আপনার ডর্মে৷ যে বিষয়টি বোঝেননি তা ডর্মে বসেই সহপাঠীর কাছ থেকে বুঝে নিতে পারেন বা বুঝিয়ে দিতে পারেন৷ আর ডর্মে থাকার মধ্যে আনন্দও অনেক বেশি কারণ প্রতি সেমেস্টারে ডর্ম কর্তৃপক্ষ আয়োজন করে বিশাল পার্টির৷ নতুন ছাত্র-ছাত্রীদের স্বাগত জানানো হয় এই পার্টির মাধ্যমে আর যেসব ছাত্র-ছাত্রী চলে যাচ্ছে তাদের জানানো হয় বিদায়৷ বেশ কয়েকটি রুম তখন ফাঁকা হয়ে যায়৷ জায়গা করে দেওয়া হয় নতুন অতিথিদের জন্য৷

প্রতিবেদন: মারিনা জোয়ারদার

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক