1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘জার্মানিতে থাকতে হলে চাই ভাষা, মূল্যবোধ সম্পর্কে জ্ঞান'

গত বছর শরণার্থীদের যে ঢল নেমেছিল, ইদানীং তা সামলে নিয়েছে জার্মানি৷ কিন্তু যারা আপাতত জার্মানিতেই থেকে যাচ্ছেন, তাদের অধিকার ও কর্তব্য স্থির করতে স্থির হয়েছে এক নতুন আইন৷

চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের সরকার বেশ দ্রুত গতিতে ইন্টিগ্রেশন সংক্রান্ত এক আইন কার্যকর করতে চলেছে৷ এর মূলমন্ত্র হলো, শরণার্থীরা তাদের কর্তব্য পালন করলে রাষ্ট্রও তাদের বিশেষ কিছু সুযোগ-সুবিধা দেবে৷

অর্থাৎ জার্মানিতে বসবাস ও কাজকর্ম করতে গেলে জার্মান ভাষা শিখতে হবে, জার্মানির ‘মূল্যবোধ' মেনে নিতে হবে৷ এই শর্ত না মানলে তাদের আর্থিক ভাতায় কাটছাঁট করা হবে, অন্যান্য কিছু সুযোগ-সুবিধা থেকেও বঞ্চিত করা হবে৷

বলা বাহুল্য, এমন আইনের খসড়া নিয়ে জার্মানিতে যথেষ্ট তর্ক-বিতর্ক চলছে৷ সরকার অবশ্য আত্মপক্ষ সমর্থনে বলছে, এই প্রথম রাষ্ট্রের উপরও যথেষ্ট চাপ বাড়ানো হচ্ছে৷ শরণার্থীদের ভাষাশিক্ষা বা ইন্টিগ্রেশন কোর্সের জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো গড়ে তোলা বা তার উন্নতি করা সরকারের প্রাথমিক কর্তব্য হিসেবে স্বীকৃতি পাচ্ছে৷ সেই অবকাঠামো থাকলে তবেই শরণার্থীদের উপর সংশ্লিষ্ট কোর্সে ভর্তি হবার জন্য চাপ সৃষ্টি করা হবে৷ তাঁরা সেই সুযোগের সদ্ব্যবহার না করলে তাঁদের বিরুদ্ধে কিছু শাস্তিমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা যাবে৷ তবে এমন মনোভাবকে ‘পপুলিজম' আখ্যা দিচ্ছেন সমালোচকরা৷

একেবারে নিখুঁত ও আদর্শ আইন সম্ভব না হলেও জার্মানির পড়ন্ত জন্মহারের পরিপ্রেক্ষিতে এ সংক্রান্ত আইনের প্রয়োজন ছিল বলে মনে করেন ডয়চে ভেলের প্রধান সম্পাদক আলেক্সান্ডার কুডাশেফ৷

বহুল চর্চিত ইন্টিগ্রেশন আইনের পাশাপাশি শরণার্থীদের কল্যাণে আরও কিছু উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে৷ বিশেষ করে শিক্ষা, উচ্চশিক্ষা ও প্রশিক্ষণের উপর বাড়তি গুরুত্ব আরোপ করা হচ্ছে৷

এসবি/এসিবি (এএফপি, ইপিডি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়