1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

জার্মানিতে ট্রাক চলবে ২৪ ঘণ্টা!

জার্মানির হাইওয়েতে বিশাল বিশাল ট্রাক দেখলে অনেকের মনেই বিস্ময় জাগতে পারে৷ কিন্তু ট্রাকগুলির নাকি সদ্ব্যবহার হচ্ছে না৷ গবেষকরা এক নতুন ব্যবস্থা চালু করতে চাইছেন, যাতে চালক, ট্রাক, ট্রাক কোম্পানির মালিক – সবারই উপকার হয়৷

আজকের দিনে অনেক ট্রাকই ঠিকমতো কাজে লাগানো হয় না৷ সারাদিন চালক ট্রাক চালান৷ সন্ধ্যা বা রাত হলেই চালককে ঘুমাতে হয়৷ ফলে ট্রাক কোনো হাইওয়ের ধারে দাঁড়িয়ে থাকে৷ ট্রাক দিনের অর্ধেক সময় চললে কোম্পানিরও লোকসান হয়৷ পরিবহণ ও পরিকল্পনা ইনস্টিটিউটের আন্ডি আপফেলস্টেট বলেন, ‘‘উৎপাদনশীলতার বিশাল ক্ষতি হয়৷ অর্থাৎ ট্রাক মাত্র দিনের অর্ধেক সময় রাত কাটানোর জায়গা হয়ে পড়ে৷''

জার্মানির এয়ারফুয়র্ট শহরের প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা এ ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনতে চান৷ তাঁরা ট্রাক ব্যবহারের এক নতুন পরিকল্পনা পেশ করেছেন৷ এর মূল ভিত্তি হলো, চালকের কাজের সময়ের সঙ্গে ট্রাক চলাচলের সম্পর্ক দূর করা৷ পরিবহণের এক ‘ইনটেলিজেন্ট নেটওয়ার্ক' এবং গোটা দেশে ঘাঁটি তৈরি করে সমস্যার সমাধান করা সম্ভব৷

বর্তমানে কোনো একটি শহরে মাল বোঝাই করে চালক একাই ট্রাক চালিয়ে অন্য শহরে নিয়ে যান৷ তারপর গ্রাহকের কাছে ট্রাকের মাল খালাস করা হয়৷ ফেরার পথে সেই ট্রাকে নতুন করে মাল বোঝাই করা হয়৷ ট্রাক হয় উৎসস্থল অথবা অন্য কোনো শহরে চলে যায়৷ আইন অনুযায়ী চালক দিনে ৯ ঘণ্টার বেশি ট্রাক চালাতে পারেন না৷ ফলে তিনি হাইওয়ের ধারে ট্রাকেই ঘুমিয়ে নেন৷ কিন্তু কিছুটা বুদ্ধি প্রয়োগ করে এই পরিস্থিতি এড়ানো সম্ভব৷ আন্ডি আপফেলস্টেট বলেন, ‘‘আমরা এমনভাবে মাল সাজানো ও সমন্বয়ের চেষ্টা করছি, যাতে ট্রাক এক বিশেষ ছন্দে চলাচল করে৷ যেমন আজ ফ্রাংকফুর্টে মাল ভরে হামবুর্গ পাঠাতে হলে কোনো চালককে একা ট্রাক চালিয়ে গন্তব্যে পৌঁছাতে হবে না৷ হামবুর্গ থেকে আসা কোনো চালক মাঝপথে তাঁর সঙ্গে ট্রাকের কন্টেনার হাতবদল করে মালপত্র নিয়ে যে যার উৎসে ফিরে যেতে পারবেন৷''

এর জন্য প্রয়োজন ট্রাক কোম্পানিগুলির এক নেটওয়ার্ক, যাতে মাঝপথে মাল হাতবদল করা যায়৷ ভবিষ্যতে ট্রাক ও তার চালক নির্দিষ্ট একটি ব্যাসের মধ্যেই চলাচল করবে৷

দূরপাল্লার যাত্রার বদলে কাছাকাছি থাকতে হবে৷ অর্থাৎ ট্রাক প্রতিদিন তার উৎসস্থলে ফিরে যাবে এবং একই রাতে সেটি আবার যাত্রা শুরু করতে পারবে৷ ফলে চালকেরও লাভ হবে৷ ট্রাকচালক পাট্রিক হুয়র্ট বলেন, ‘‘আমাকে আর বাড়ি থেকে দূরে থাকতে হবে না, কাজের নির্দিষ্ট সময়সূচি থাকবে এবং আমার স্ত্রী জানবেন আমি কোথায় আছি৷''

রুট স্থির করাও তখন অনেক সহজ হয়ে পড়বে৷ ২৪ ঘণ্টাই ট্রাক চলাচল পরিকল্পনা করা যাবে৷ ফলে ট্রাক কোম্পানির উৎপাদনশীলতা অনেক বাড়বে৷ মাইনট্রান্স কোম্পানির ক্রিস্টিয়ান শার বলেন, ‘‘এমন পরিবহণ ব্যবস্থা চালু হলে ট্রাকগুলিকে আরও ভালোভাবে কাজে লাগানো যাবে, কারণ ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত সেগুলি চালু থাকতে পারবে৷ বর্তমানে এর অর্ধেকও সম্ভব হয় না৷ এ ভাবে অবশ্যই আমরা আরও মুনাফা করার আশা রাখি৷''

গবেষকরা কয়েক লক্ষ তথ্য দিয়ে এক ‘ইন্টেলিজেন্ট রুটিং সিস্টেম' তৈরি করছেন, যাতে অনেক ছোট ট্রাক কোম্পানি অংশ নিতে পারবে৷ এর মূলে রয়েছে এক সফটওয়্যার, যার কাজ প্রতি রাতে মালের পরিমাণ হিসেব করা এবং তার ভিত্তিতে রুট বা যাত্রাপথের প্রস্তাব দেওয়া৷ আন্ডি আপফেলস্টেট বলেন, ‘‘এই আইডিয়া বাস্তবায়ন করতে আমরা এক জটিল অঙ্কের মডেল তৈরি করছি, যার সাহায্যে মাল পরিবহণ ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো যায়, হাতবদলের উপযুক্ত মাল চিহ্নিত করা যায় এবং ট্রাকগুলির গতিবিধি স্থির করা যায়৷''

এই ‘ডায়নামিক রুটিং সিস্টেম' চালু হলে ট্রাক চলাচলের আরও উন্নত এক নেটওয়ার্ক সৃষ্টি হবে এবং ২০ শতাংশ পর্যন্ত ব্যয় সংকোচ সম্ভব হবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়