1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

জার্মানিতে ‘ঘরে বিদ্যুৎ’ উৎপাদনের হার বাড়ছে

মূলত তিন কারণে নিজস্ব ব্যবস্থায় বিদ্যুৎ উৎপাদন করেন ক্লাউস মায়ার৷ কারণগুলো হচ্ছে খরচ বাঁচানো, জ্বালানি সাশ্রয় এবং জলবায়ু সুরক্ষা৷ অনেক জার্মানই এসব কারণে এখন ‘ঘরে বিদ্যুৎ’ উৎপাদনের দিকে ঝুঁকছেন৷

default

জার্মানির একটি কোম্পানির গুদামের ছাদে সৌর প্যানেল

প্রতি বছর ‘৬০০ টেরাওয়াট আওয়ার্স' বিদ্যুৎ খরচ করে থাকেন জার্মানরা৷ এর মধ্যে ৫০ ‘টেরাওয়াট আওয়ার্স' বিদ্যুৎ ‘ঘরে তৈরি'৷ অর্থাৎ মোট খরচ হওয়া বিদ্যুতের আট শতাংশই আসছে ফ্যাক্টরির গ্যাস প্লান্ট কিংবা বাড়ির ছাদে বসানো সৌর প্যানেলের মতো উৎস থেকে৷

ঘরে এবং ফ্যাক্টরিতে উৎপাদিত বিদ্যুৎ নিজেরা ব্যবহারের পাশাপাশি বাড়তি অংশ মূল গ্রিডেও সরবরাহ করতে পারছেন জার্মানরা৷ আর এভাবে উপার্জিত অর্থের উপর বাণিজ্যিকভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদনের মতো করও দিতে হচ্ছে না৷

দশ বছর আগে মায়ার তাঁর ৪৫ রুম বিশিষ্ট চার তারকা হোটেলের জন্য গ্যাস চালিত বিদ্যুৎ এবং তাপ উৎপাদক ইউনিট বসিয়েছিলেন৷ এ জন্য তিনি খরচ করেন প্রায় ৫০ হাজার ইউরো৷ তবে মায়ারের মতে, বিনিয়োগের ফলাফল প্রত্যাশিত সময়ের আগেই পাওয়া গেছে৷

জার্মান চেম্বার অফ কমার্স গত বছর এক জরিপ পরিচালনা করে৷ এতে অংশ নেয়া ২,৪০০-র মতো কোম্পানির মধ্যে অর্ধেকই ইতোমধ্যে নিজস্ব বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যবস্থা তৈরি করেছে, উদ্যোগ নিয়েছে অথবা এভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদনের পরিকল্পনা করেছে৷ এই ব্যবস্থায় অর্থ সাশ্রয়ের পাশাপাশি বিদ্যুতের সার্বক্ষণিক সরবরাহের বিষয়টিও নিশ্চিত করতে পারছে প্রতিষ্ঠানগুলো৷

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালে জাপানের ফুকিশিমায় পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে দুর্ঘটনার পর সতর্ক হয় জার্মানি৷ ফলে পারামাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো ক্রমান্বয়ে বন্ধ করে দিতে থাকে সরকার৷ তাই বিকল্প জ্বালানির উৎসের সন্ধান শুরু হয় দেশটিতে৷ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি ছোট ছোট বাড়ির ছাদে তাই এখন দেখা যাচ্ছে সৌর প্যানেল৷ বিশেষ করে যেসব অঞ্চলে সৌর তাপ বেশি পাওয়া যায়, সেসব অঞ্চলে এই প্রবণতা ক্রমশ বাড়ছে৷

উল্লেখ্য, ২০০০ সালে জার্মানিতে উৎপাদিত মোট জ্বালানির মাত্র ৬.৭ শতাংশ এসেছিল নবায়নযোগ্য উৎস থেকে৷ লক্ষ্য ছিল, ২০১০ সালে নবায়নযোগ্য জ্বালানির উৎপাদন বাড়ানো হবে ১২ শতাংশ৷ কিন্তু জার্মানি সেই লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করে ২০০৭ সালেই৷ নবায়নযোগ্য বিদ্যুৎ উৎপাদনের এই ধারা ক্রমেই বাড়ছে৷

এআই/ডিজি (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন