1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জার্মানিতে খদ্দেরের বেশে দোকান থেকে চুরি বাড়ছে

জার্মানির বাণিজ্য সংগঠনগুলো এবং পুলিশ ‘শপলিফ্টিং' বা খদ্দেরের বেশে দোকান থেকে চুরি বাড়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে৷ এর ফলে খুচরা বিক্রেতাদের কোটি কোটি ইউরো ক্ষতি হচ্ছে, কিন্তু চোররা অধিকাংশক্ষেত্রেই ধরা পড়ছে না৷

অপরাধ পরিসংখ্যান বলছে, ২০১৪ সালে জার্মানিতে প্রায় চার লাখ ‘শপলিফটিংয়ের' ঘটনা নথিভুক্ত হয়েছে, যা আগের বছরের চেয়ে সাত শতাংশ বেশি৷ জার্মানির বাণিজ্য সংস্থা এইচডিই মঙ্গলবার জানিয়েছে, ‘‘খদ্দেরের বেশে চুরি করাদের মধ্যে শিশু, তরুণ, প্রাপ্তবয়স্ক, এমনকি পেনশনভোগীরাও রয়েছেন৷''

শপলিফ্টিংয়ের কারণে খুচরা বিক্রেতাদের বছরে গড়ে দুই দশমিক এক বিলিয়ন ইউরোর আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে৷ এইচডিই মুখপাত্র স্টেফেন হার্টেল এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, এটা একটা বড় অঙ্ক যা অগ্রাহ্য করার উপায় নেই৷

কোলনভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইএইচআই জানিয়েছে, শপলিফটিংয়ের ৯৮ শতাংশ ঘটনাই অলক্ষ্যে থেকে যায়৷ প্রতিষ্ঠানটির বিশেষজ্ঞ ফ্রাংক হর্স্ট জানিয়েছেন, সাধারণ চোরেরা ছোট ছোট জিনিস চুরি করে যেগুলোর মূল্য ৮০ ইউরোর বেশি নয়৷ পারফিউম, রেজার ব্লেড, কসমেটিকস এবং কনজিউমার ইলেক্ট্রনিক্স চুরি হয় বেশি৷

তবে তিনি জানান, সংঘবদ্ধ চোরেরা দামি জিনিসও দোকান থেকে চুরি করে৷ হর্স্ট বলেন, ‘‘তারা দেড় হাজার থেকে দু'হাজার ইউরো দামের জিনিস নিয়ে আনায়াসে বেরিয়ে যায়৷ দুর্ভাগ্যজনক হচ্ছে, এরকম চুরির ঘটনা ক্রমশ বাড়ছে৷''

চুরির ধরণ সবসময়ই একরকম, জানান স্টেফেন হার্টেল৷ তিনি বলেন, ‘‘একদল লোক দোকানে ঢোকে৷ তাদের একজন দোকানের সহকারিকে বিভিন্ন প্রশ্ন করে ব্যস্ত রাখে আর বাকিরা যতটা সম্ভব জিনিস চুরি করে৷ মাত্র কয়েক সেকেন্ডে ঘটে যায় পুরো ঘটনা৷''

এআই/এসিবি (ডিপিএ, এআইরডি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন