1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

জার্মানিতে আনন্দ, আর্জেন্টিনায় সংঘর্ষ

আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে চতুর্থবারের মতো বিশ্বকাপ জিতে নিয়েছে জার্মানি৷ জার্মানি ভাসছে আনন্দের বন্যায়৷ তবে আর্জেন্টিনায় আনন্দ ম্লান করেছে ব্যাপক বিশৃঙ্খলা৷ সংঘর্ষে আহত হয়েছেন অন্তত ৭০ জন৷

ফাইনালে জার্মানির কাছে অতিরিক্ত সময়ের একমাত্র গোলে লিওনেল মেসির দল হেরে গেলেও আর্জেন্টিনার সাধারণ ফুটবল সমর্থকরা তাতে খুশি৷ ১৯৯০-এর পর প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠে শেষ পর্যন্ত লড়ে যাওয়াকে সম্মানেরই মনে করছেন তাঁরা৷ তাই মারাকানার ফাইনাল শেষে আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েনেস আইরেসে প্লাজা স্যান মার্টিনে জায়ান্ট স্ক্রিনে ম্যাচ দেখা হাজার পঞ্চাশেক মানুষ পরজয়ের হতাশায় ভেঙ্গে না পড়ে বরং উদ্দাম আনন্দেই মেতে ওঠেন৷

সবার কণ্ঠে শোনা যায় লিওনেল মেসি আর প্রিয় দলের প্রশংসায় ভরা স্লোগান৷ বুয়েনেস আইরেসের ওবেলিস্ক, যেখানে জাতীয় সব আনন্দই উদযাপন করেন আর্জেন্টাইনরা, সেখানেও দেখা গেছে একই দৃশ্য৷ কিন্তু সব আনন্দ মাটি করে দেয় আর্জেন্টিনার একদল উগ্র সমর্থক৷ এ ধরণের সমর্থকরা সারা বিশ্বে ‘বারা ব্রাভাস' নামে পরিচিত৷ গভীর রাতে এক দল ‘বারা ব্রাভাস'-এর আক্রমণের শিকার হয় পুলিশ৷ পুলিশের দিকে ঢিল ছুড়তে থাকলে শুরু হয় যায় সংঘর্ষ৷ এ সময় শিশু সন্তান কোলে নিয়ে অনেক মা-বাবাকেই দিশেহারা হয়ে ছুটতে দেখা গেছে৷ উশৃঙ্খল কিছু লোক তখন দোকানপাট লুটপাটে লিপ্ত হয়৷ পুলিশ কাঁদানে গ্যাস এবং রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনের চেষ্টা করে৷ সংঘর্ষে ৭০ জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে৷ আহতদের মধ্যে ১৫ জন পুলিশ সদস্যও রয়েছেন৷

এদিকে জার্মানিতে গভীর রাতেই শুরু হয়ে যায় ফিলিপ লামের দলে বিশ্বকাপ জয় উদযাপন৷ রাস্তায় নামে উল্লসিত জনতার ঢল৷ সবার মুখে ছিল, ‘ডয়েচলান্ড, ভেল্ট মাইস্টার', অর্থাৎ ‘জার্মানি, বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন' স্লোগান৷ এ সময় দলের তারকা খেলোয়াড়দের নামেও স্লোগানে স্লোগানে প্রকম্পিত হয়ে ওঠে চারপাশ৷ বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে খোলা আকাশের নীচে ১২০ মিনিটের টানটান উত্তেজনার ম্যাচ উপভোগ করা অনেক জার্মান সমর্থককে গাড়ির হর্ন বাজিয়েও আনন্দ প্রকাশ করতে দেখা গেছে৷

জার্মান দলের কোচ ইয়াওখিম ল্যোভও তাঁর দলের এ সাফল্যে আনন্দিত৷ ম্যাচ শেষে পুরো দলের সব খেলোয়াড়ের পাশাপাশি জয়ের নায়ক মারিও গোয়েটসের বিশেষ প্রশংসা করেছেন তিনি৷ ল্যোভ বলেন, ‘‘আমি ওকে বলেছিলাম, যাও, গিয়ে বিশ্বকে দেখিয়ে দাও যে তুমি মেসির চেয়েও ভালো৷'' বদলি খেলোয়াড় হিসেবে খেলতে নামা গ্যোটসের ১১৩ মিনিটে করা এক অসাধারণ গোলের সুবাদেই প্রথম ইউরোপীয় দেশ হিসেবে দক্ষিণ আমেরিকায় আয়োজিত কোনো বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হলো জার্মানি৷ এটা তাদের চতুর্থ বিশ্বকাপ সাফল্য৷ ল্যোভ অবশ্য বলেছেন, জার্মানির সাফল্যের তরী এখানেই থামবে না, আগামীতে সমর্থকদের আরো সাফল্য উপহার দেবে তাঁর দল৷

এসিবি/এপিবি (এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়