জার্মানিতেও শুরু হতে পারে জঙ্গি আক্রমণ? | বিশ্ব | DW | 14.01.2016
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জার্মানিতেও শুরু হতে পারে জঙ্গি আক্রমণ?

এবার কি ইসলামি জঙ্গিরা জার্মানিতে আক্রমণ শুরু করবে? এ আশঙ্কা এতদিন খুব গুরুত্ব না পেলেও এখন পাচ্ছে৷ খোদ জার্মান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ই নাকি মনে করছে, যে কোনো সময় আক্রান্ত হতে পারে জার্মানি৷

জার্মানির সবচেয়ে বেশি প্রচারিত সংবাদপত্র ‘বিল্ড' এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে এই আশঙ্কার কথা৷ জার্মানির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নথিপত্রেই এমন আশঙ্কার উল্লেখ রয়েছে বলে দাবি করছে পত্রিকাটি৷ সদ্য প্রকাশিত প্রতিবেদনটি জনমনেও শঙ্কা ও আতঙ্ক বাড়াতে পারে৷

বৃহস্পতিবার তাদের অনলাইন সংস্করণে প্রতিবেদনটি প্রকাশ করেছে ‘বিল্ড'৷ প্রতিবেদনে স্পষ্টভাবেই দাবি করা হয়, জার্মানির সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও কর্মীরা যে কোনো মুহূর্তে জঙ্গি আক্রমণের শিকার হতে পারে বলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আশঙ্কা করছে৷

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের নথিপত্রেই এমন আশঙ্কার উল্লেখ রয়েছে বলে দাবি করায় ‘বিল্ড'-এর প্রতিবেদনটি এ মুহূর্তে তুমুল আলোচনায়৷ বুধবার এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে জার্মানির আইনমন্ত্রী হাইকো মাস অবশ্য উল্টো কথাই বলেছিলেন৷ এআরডি-তে প্রচারিত সাক্ষাৎকারে মন্ত্রী বলেন, এক্ষুনি জঙ্গি হামলা হতে পারে এমন ইঙ্গিত তাঁরা এখনো পাননি৷

তবে গত কয়েকদিন ধরে জার্মানির আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও নিরাপত্তা সংস্থাগুলো সতর্কাবস্থাতেই রয়েছে৷ ইস্তানবুলে আত্মঘাতী বোমা হামলায় ১০ জন জার্মান নাগরিক নিহত হওয়ার পর থেকেই জার্মানিতে এই সতর্কাবস্থা বিরাজ করছে৷

তুরস্কের ইস্তানবুল শহরের এক পর্যটন কেন্দ্রে চালানো সেই হামলায় কমপক্ষে ১০ জন নিহত এবং ১৫ জনের মতো আহত হয়৷ নিহতদের সবাই জার্মান পর্যটক৷ আহত ১৫ জনের মধ্যেও ছয় জনই জার্মান৷ বাকি নয়জনের মধ্যে একজন নরওয়ের, একজন দক্ষিণ কোরিয়ার এবং একজন পেরুর নাগরিক বলে জানা গেছে৷ তুরস্ক সরকার এ হামলার জন্য তথাকথিত ইসলামি জঙ্গি সংগঠন ‘ইসলামিক স্টেট' বা আইএস-কে দায়ি করেছে৷

এদিকে তুরস্ক থেকে সব জার্মান পর্যটক দেশে ফিরছেন৷ বুধবার তুরস্কে তাঁদের ভিড় এবং পর্যটনকেন্দ্রগুলো এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছিল জার্মান সরকার৷

বৃহস্পতিবারই অবশ্য নতুন এক আত্মঘাতী বোমা হামলায় ৫ জন নিহত এবং ৩৯ জন আহত হয়েছে৷ চিনার জেলার দিয়ারবাকির অঞ্চলের পুলিশ স্টেশনে চালানো হয় এই হামলা৷ কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টি পিকেকে-কে এ হামলার জন্য দায়ী মনে করছে তুর্কি সরকার৷

এসিবি/ডিজি (এএফপি, রয়টার্স, ডিপিএ)

জার্মানিতে কি সত্যিই জঙ্গি আক্রমণ হতে পারে? প্রিয় পাঠক, এ সম্পর্কে নিচে আপনার মতামত জানান৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়