1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জামায়াতের নিবন্ধন অবৈধ, হাইকোর্টের রায় বহাল

জামায়াতের নিবন্ধন অবৈধ বলে দেয়া হাইকোর্টের রায় স্থগিতের আবেদন খারিজ করে দিয়েছে আদালত৷ হাইকোর্টের অবকাশকালীন বেঞ্চ সোমবার এই খারিজের আদেশ দেয়৷ অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, এরপর জামায়াতের নিবন্ধন কার্যত আর নেই৷

তবে এখনও আপিলের অনুমতি আছে জামাতের৷

গত ১লা আগস্ট বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন অবৈধ বলে হাইকোর্টের তিন সদস্যের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ রায় দেয়৷ আদালত একই সঙ্গে আপিলের অনুমতি দিয়ে জামায়াতকে সার্টিফিকেটও দেয়৷ আর জামায়াতের আইনজীবী সেদিনই আপিল করা হবে বলে রায়ের স্থগিতাদেশ চেয়ে আবেদন করেন৷

সোমবার হাইকোর্টের চেম্বার জজ শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিকের আদালতে আবেদনের ওপর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়৷ শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষের অ্যাটর্নি জনোরেল মাহবুবে আলম এবং জামায়াতের পক্ষে অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম অংশ নেন৷ দুই পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামায়াতের আবেদন খারিজ করে হাইকোর্টের রায়ের কার্যকারিতা বহাল রাখেন৷

Dhaka Protest gegen Blogger

জামায়াতের নিবন্ধন অবৈধ বলে দেয়া হাইকোর্টের রায় স্থগিতের আবেদন খারিজ করে দিয়েছে আদালত

আদেশের পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম জানান, হাইকোর্টের রায় বাহাল থাকায় জামায়াতের নিবন্ধন এখন অবৈধ৷ তাই নির্বাচন কমিশনের এখন হাইকোর্টের রায় অনুয়ায়ী জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল করতে হবে৷ অর্থাৎ, আইনগতভাবে জামায়াতের নিবন্ধন এখন আর নেই৷

জামায়াত তো আপিলের অনুমতি পেয়েছে, তাহলে মামলাটিকে বিচারাধীন বলা যাবে কি? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, জামায়াত হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়েছিল৷ রায় যেহেতু স্থগিত হয়নি, তাই পরবর্তী কোনো রায় না আসা পর্যন্ত হাইকোর্টের রায়ই কার্যকর৷ তারা যদি আপিল করে এবং আপিলে যদি হাইকোর্টের রায় বাতিল বা স্থগিত হয়, তখন তারা সেই সুবিধা পাবেন, তার আগে নয়৷ এদিকে অতিরিক্ত আ্যটর্নি জেনারেল এমকে রহমান বলেন, চেম্বার জজ জামায়াতের আবেদন খারিজ করায় জামায়াতে ইসলামী এখন আর নিবন্ধিত কোনো দল নয়৷ তারা দলীয়ভাবে এবং তাদের প্রতীক দাড়িপাল্লা নিয়ে নির্বাচন করতে পারবে না৷

ওদিকে জামায়াতের আইনজীবী তাজুল ইসলাম বলেন, তারা তাদের আবেদনটি শুনানির জন্য সময় চাননি৷ তড়িঘড়ি করে আবেদনটি কার্য তালিকায় এনে শুনানি করা হয়েছে৷ তারা শুনানির জন্য প্রস্তুত ছিলেন না৷ তিনি জানান, চেম্বার জজের আদেশের বিরুদ্ধে তারা আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে যাবেন৷ তাঁর মতে, এখনো মামলাটি বিচারধীন৷ তাই আদালত তাদের আপিলের অনুমতি দেয়ায়, সেই আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত জামায়াতের নিবন্ধন বহাল আছে৷ তাই জামায়াত তার প্রতীক দাড়ি পাল্লা নিয়ে নির্বাচন করতে পারবে বলে মনে করেন তিনি৷

অন্যদিকে, নির্বাচন কমিশনার মোহাম্মদ শাহনেয়াজ ডয়চে ভেলেকে বলেন, তারা এখনো আদালতের আদেশের কোনো কপি পাননি৷ ১লা আগস্ট হাইকোর্টের রায় এবং সোমবার চেম্বার জজের আদেশ কোনোটিরই নয়৷ তারা আদালতের রায় এবং আদেশের সত্যায়িত কপি পাওয়ার পরই সিদ্ধান্ত নেবেন৷ সুতরাং, কি সিদ্ধান্ত হবে তা তখনই বলা যাবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়