1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জাতিসংঘ বাহিনীকে দেশ ছাড়তে বললেন লরাঁ বাগবো

আইভরি কোস্টের প্রেসিডেন্ট লরাঁ বাগবো জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনী ও ফরাসি বাহিনীকে দেশ ত্যাগের নির্দেশ দিয়েছেন৷ ফলে আইভরি কোস্টের রাজনৈতিক পরিস্থিতি আরও জটিল আকার ধারণ করতে যাচ্ছে৷

default

আইভরি কোস্টের স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট লরাঁ বাগবো

ঘোষণার কারণ ও জাতিসংঘের জবাব

আইভরি কোস্টে অবস্থানরত জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনী ও ফরাসি বাহিনীর বিরুদ্ধে বাগবোর অভিযোগ তারা বিরোধী নেতা আলাসানে ওয়াতারা ও তাঁর সমর্থক বাহিনীকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে৷ প্রেসিডেন্ট বাগবোর বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে আলাসানে ওয়াতারা ও তাঁর সমর্থক বাহিনী তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানা গেছে৷ শনিবার বাগবোর শিক্ষা মন্ত্রী জ্যাকুলিন লোহু ওবলে জানান, প্রেসিডেন্ট বাগবো আইভরি কোস্টে অবস্থানরত জাতিসংঘ বাহিনী ও ফরাসি বাহিনীকে অবিলম্বে দেশ ত্যাগ করার নির্দেশ দিয়েছেন৷ উল্লেখ্য, আইভরি কোস্টে বর্তমানে জাতিসংঘের ১০ হাজার ও ফ্রান্সের ৯০০ সেনা রয়েছে৷ এদিকে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন জানিয়েছেন, বাগবোর নির্দেশ সত্ত্বেও শান্তিরক্ষী বাহিনী আইভরি কোস্টে তাঁর নির্ধারিত দায়িত্ব শেষ করবে৷

NO FLASH Elfenbeinküste Unruhen Dezember 2010

নির্বাচনের পর থেকে আইভরি কোস্টে রাজনৈতিক সহিংসতা চলছে

আইভরি কোস্টের রাজনীতিতে পশ্চিম বিশ্ব

গত ২৮ নভেম্বরের নির্বাচনের পর দেশটিতে প্রত্যক্ষভাবে চাপ সৃষ্টি করে চলেছে জাতিসংঘসহ পশ্চিমা দেশগুলো৷ তারা নির্বাচনে বিজয়ী হিসেবে বিরোধী নেতা আলাসানে ওয়াতারাকে স্বীকৃতি দিয়েছে এবং লরাঁ বাগবোকে ক্ষমতা ছেড়ে দেওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছে৷ জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুনও বাগবোকে ক্ষমতা ছাড়ার আহ্বান জানিয়েছেন৷ তবে বাগবো এখনও সেই আহ্বান অগ্রাহ্য করে চলেছেন এবং সামরিক বাহিনীর কর্তৃত্ব ধরে রেখেছেন৷

নির্বাচনের ফলাফল

গত ২৮ নভেম্বরের নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন আলাসানে ওয়াতারাকে বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করে৷ তবে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তারা এই ঘোষণা দেয়নি, বরং একদিন দেরি করে ফলাফল জানায়৷ ফলে আইভরি কোস্টের আদালত নির্বাচন কমিশনের এই ফলাফল ঘোষণাকে অবৈধ বলে রায় দেয়৷ এর পরপরই বাগবো নিজেকে বিজয়ী হিসেবে দাবি করেন এবং ক্ষমতা ধরে রাখেন৷ অন্যদিকে ওয়াতারাও নিজেকে বিজয়ী বলে দাবি করেন এবং আলাদা মন্ত্রিসভা গঠন করেন৷

আলাসানে ওয়াতারার বর্তমনা হাল

তিনি এখন রাজধানী আবিদজানের একটি হোটেলে অবস্থান করছেন৷ হোটেলটি ঘিরে রেখেছে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী বাহিনী৷ ফলে বাগবোর অনুগত সেনারা এখনও তাঁকে ধরতে পারেনি৷ সেই হিসেবে ওয়াতারা ও তাঁর বাহিনীকে প্রশ্রয় দেওয়ার যে অভিযোগ প্রেসিডেন্ট বাগবো করেছেন সেটি একেবারে অমূলক নয়৷

প্রতিবেদন: রিয়াজুল ইসলাম

সম্পাদনা: হোসাইন আব্দুল হাই