1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জাতিসংঘের উদ্যোগে রাজনৈতিক সংকট সমাধানের আশা

জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব অসকার ফার্নান্দেজের ঢাকা সফরে প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের মধ্যে আলোচনার সম্ভাবনা প্রবল হচ্ছে৷ বিএনপি মনে করে জাতিসংঘের উদ্যোগে সংকটের সমাধান হবে আর আওয়ামী লীগ বলেছে, তারা আলোচনার জন্য প্রস্তুত৷

অসকার ফার্নান্দেজ তারানকো সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনে সংলাপের কথা বলেছেন৷ তিনি বলেন, সময় দ্রুত ফুরিয়ে যাচ্ছে৷ তাছাড়া, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হলে তার পরণিতি কি হয় বাংলাদেশের মানুষের তা জানা আছে৷ তাই তিনি প্রধানমন্ত্রীর সংলাপের আহ্বানে বিরোধী দলের সাড়া দেয়া উচিত বলে মনে করেন৷

তারানকো শুক্রবার ঢাকায় এসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বেঠক করেছেন৷ শুধু তাই নয়, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের আগে এবং পরে বিরোধী দলীয় নেত্রী এবং বিএনপি'র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে দু'দফা বৈঠক করেন৷ সোমবার দ্বিতীয় দফা বৈঠকের পর বিএনপি'র ভাইস প্রেসিডেন্ট শমসের মবিন চৌধুরী জানান, দেশের চলমান সংকট নিরসনে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে আলাপ-আলোচনার যে উদ্যোগ নিয়েছে জাতিসংঘ, খালেদা জিয়া তাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন৷ খালেদা জিয়া মনে করেন, এই উদ্যোগের মধ্য দিয়েই সমস্যা সমাধানের পথ বের হয়ে আসবে৷

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর তারানকো বলেন, নির্বাচনকালীন সরকার বা পদ্ধতি কি হবে তা রাজনৈতিক দলগুলোর বিষয়৷ কিন্তু তিনি মনে করেন, এটা একমাত্র আলাপ-আলোচনার মধ্য দিয়েই ঠিক করা সম্ভব৷ সেজন্য এ নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সংলাপ প্রয়োজন৷

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ বলেছেন, আলোচনার পথ সব সময়ই খোলা আছে৷ প্রধানমন্ত্রী তো নির্বাচন নিয়ে সংলাপের জন্য সংসদ বা সংসদের বাইরে আলোচনার কথা বলছেন বারবার৷

এই পরিস্থিতিকে ইতিবাচক বলে মনে করেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এ এস এম শাহজাহান৷ তিনি ডয়চে ভেলেকে বলেন, জাতিসংঘের উদ্যোগে দুই বড় রাজনৈতিক দলের মধ্যে যে ইতিবাচক পরিবর্তনের ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে তাকে তিনি সাধুবাদ জানান৷ তিনি বলেন, বুঝতে হবে সংলাপ ছাড়া সমাধান নেই৷

টিআইবি'র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আমাদের সমস্যা আমাদেরই সমাধান করতে হবে৷ তবে জাতিসংঘের এই উদ্যোগ দেশের মানুষের আশারই প্রতিফলন৷ রাজনৈতিক দলগুলো সংঘাত ছেড়ে আলাপ-আলোচনার দিকে আগ্রহ দেখাচ্ছে, এটা সুখবর৷ কিন্তু আমাদের শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে৷ কারণ আমাদের রাজনৈতিক দলের নেতারা জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিবের সঙ্গে আলোচনায় যা বলেছেন, তা তাঁরা আদৌ করেন কিনা সেটাই দেখার বিষয়৷

জাতিসংঘের সহাকারী মহাসচিব শুক্রবার ঢাকায় আসেন৷ তিনি প্রধানমন্ত্রী এবং বিরোধী দলীয় নেত্রী ছাড়াও জাতীয় সংসদের স্পিকার, নির্বাচন কমিশন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতা এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ও সম্পাদকদের সঙ্গে কথা বলেছেন৷ তিনি প্রধানমন্ত্রী এবং বিরোধী দলীয় নেত্রীকে জাতিসংঘের মহাসচিবের পাঠানো চিঠিও হস্তান্তর করেন৷ শুক্রবার রাতে তিনি ঢাকা ছাড়েন৷ তবে তার আগে সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন অসকার ফার্নান্দেজ তারানকো৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়