1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কে পোপের বক্তব্যের প্রশংসা

উন্নয়নশীল বিশ্ব থেকে প্রথমবারের মতো নির্বাচিত হওয়া পোপ ফ্রান্সিসের জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে দেয়া বক্তব্য সবার প্রশংসা কুড়াচ্ছে৷ সমালোচনাও হচ্ছে, তবে তা খুবই সীমিত আকারে৷

পরিবেশ নিয়ে পোপের ‘এনসিক্লিকল' বৃহস্পতিবার প্রকাশিত হয়েছে৷ এনসিক্লিকল হচ্ছে একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে পোপের দেয়া নির্দেশনা, যা ক্যাথলিক শিক্ষাদান কর্মসূচিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়৷

পোপ বলেন দরিদ্র দেশগুলো জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য খুব বেশি দায়ী না হলেও তারাই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে৷ তাই ধনী দেশগুলোর উচিত গরীব দেশগুলোকে সহায়তা করা৷ শুধু তাই নয়, ভবিষ্যতে ইকোসিস্টেমকে ধ্বংসের হাত থেকে বাঁচাতে ধনী দেশের নাগরিকদের জীবনযাপনে পরিবর্তন ও জ্বালানি ব্যবহারে সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন পোপ৷

পোপ ফ্রান্সিস তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্টে এনসিক্লিকল-এর উল্লেখযোগ্য বক্তব্যগুলো টুইট করেছেন৷ তার কয়েকটি এরকম:

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা পোপের বক্তব্যের সঙ্গে একমত পোষণ করে বলেন, ‘‘আমাদের সন্তান এবং তাদের সন্তানদের জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব থেকে রক্ষার দায়িত্ব আমাদের৷'' এটি নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্রকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে বলেও মনে করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট৷ পোপের এনসিক্লিকল নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টের দেয়া বিবৃতিটি টুইট করেছে হোয়াইট হাউস৷

জাতিসংঘের জলবায়ু বিষয়ক সংস্থা ইউএনএফসিসিসি বলছে, ‘‘পোপের বক্তব্যে এটাই প্রমাণ হয়েছে যে, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় আমাদের এখনই পদক্ষেপ নিতে হবে৷''

পোপের বক্তব্যের সমর্থনে নিউ ইয়র্ক টাইমসের টুইট৷

মার্কিন কংগ্রেসম্যান টিম রায়ান পোপের বক্তব্যে তাঁর মুগ্ধতা প্রকাশ করেছেন টুইটারে৷

তবে অস্ট্রেলীয় কার্ডিনাল ও সাংবাদিক টেস লিভিংস্টোন ‘দ্য অস্ট্রেলিয়ান'-এ লেখা এক প্রবন্ধে পোপের বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন৷

লন্ডনের কিংস কলেজের অধ্যাপক ও তেল কোম্পানি বিপি-র সাবেক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা নিক বাটলার ‘ফিন্যান্সিয়াল টাইমস'এ প্রকাশিত তাঁর ব্লগে পোপের বক্তব্যে ত্রুটি থাকার কথা জানিয়েছেন৷

সংকলন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন