1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

‘জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে বিতর্ক বন্ধের সময় এসেছে’

উষ্ণায়নের উচ্চমাত্রা জলবায়ু পরিবর্তনে খুব বড় ভূমিকা রাখছে৷ তার জন্য মানুষই দায়ী কিনা এ বিতর্ক খুব জমে উঠেছে৷ বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট মনে করেন, আর সময় নষ্ট না করে এক্ষুনি এ বিতর্ক বন্ধ করা উচিত৷

গত মাসে এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশের পরই শুরু হয় বিতর্ক৷ প্রতিবেদনটিতে দাবি করা হয় ১৯৮০ সাল থেকে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণ অনুসন্ধানে পরিচালিত বৈজ্ঞানিক গবেষণার ৪ হাজার প্রতিবেদনের ৯৭ থেকে ৯৮ ভাগই বলছে, উষ্ণায়নের জন্য মানুষই দায়ী৷ মানুষকেই প্রায় সন্দেহাতীতভাবে একমাত্র কারণ হিসেবে তুলে ধরায় প্রতিবেদন নিয়ে সন্দেহ পোষণ করেছেন অনেকে৷ তাঁদের ধারণা, প্রতিবেদনটি তৈরি হয়েছে ভুলক্রমে কয়েক হাজার বৈজ্ঞানিক প্রতিবেদনকে বিবেচনার বাইরে রেখে৷ তাঁদের মতে, এমন ভুল না হলে বিশ্বের উষ্ণায়ন দ্রুত বেড়ে যাওয়ার জন্য মানুষকে এতটা দায়ী করা অসম্ভব৷ তবে জিম ইয়ং কিম সেই বিতর্ককে মনে করছেন স্রেফ সময়ের অপচয়৷ বিশ্বব্যাংক সভাপতি বুধবার লন্ডনে বলেছেন, ‘‘(জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য) মানুষ দায়ী কিনা – এ বিতর্ক বন্ধ করার সময় এসেছে৷''

বিতর্ক অনেক সময় বিপদ এড়ানোর সময় কমিয়ে দেয় – এই দৃষ্টিকোণ থেকে জলবায়ু পরিবর্তনের গুরুত্ব বোঝাতেই এমন মন্তব্য করেছেন জিম ইয়ং কিম৷ মানুষই যে উষ্ণায়ন অস্বাভাবিক মাত্রায় বাড়ানোর জন্য দায়ী, এই সত্যকে অস্বীকার করা তাঁর মতে বিজ্ঞানকে অস্বীকার করার শামিল৷

পৃথিবীর সব দেশই বিশ্ব উষ্ণায়ন বৃদ্ধির হার ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস বা ৩ দশমিক ৬ ডিগ্রি ফারেনহাইটের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখতে সম্মত৷ বিশ্বব্যাংক এবং আরো কিছু প্রতিষ্ঠানের অনুমান শিল্প বিপ্লবের পর থেকে খুব অল্প সময়েই উষ্ণায়ন ০ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছে গেছে৷ এ হারলে বাড়তে থাকলে বড় রকমের বিপর্যয় অনিবার্য বলে মনে করেন বলেই আর বিতর্কে সময় নষ্ট না করে উষ্ণায়ন নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় কাজ শুরু করার তাগিদ দিয়েছেন বিশ্বব্যাংক সভাপতি৷

এসিবি/ডিজি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়