1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জরিপ নিয়ে প্রশ্ন আওয়ামী লীগের

বাংলাদেশের একটি দৈনিক পত্রিকার জরিপে বলা হয়েছে এই মুহূর্তে জনপ্রিয়তার এগিয়ে আছে দেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি৷ তবে সরকারের দপ্তরবিহীন মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত এই জরিপ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন৷

দৈনিক প্রথম আলোর জরিপ অনুযায়ী এখন নির্বাচন হলে বিএনপি-কে ৫০.৩ শতাংশ মানুষ ভোট দেবে৷ আর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে দেবে ৩৬.৫ শতাংশ মানুষ৷ জাতীয় পার্টি ৭ শতাংশ এবং জামায়াতে ইসলামী ২.৯ শতাংশ ভোট পাবে৷

তবে এই জরিপ এবং এর স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন আওয়ামী লীগ নেতা ও দপ্তরবিহীন মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত এমপি৷ তাঁর মতে, জরিপকারী সংস্থা এবং এর পদ্ধতি নিয়ে প্রশ্ন আছে৷ তিনি বলেন, ‘‘প্রথম আলোর বিচ্ছুরণ কখন কোন দিকে যায় তা বোঝা মুশকিল৷ প্রথম আলো সবার আলো নয়৷ প্রথম আলো বিএনপি-র আলো৷ তাদের জরিপ গ্রহণযোগ্য নয়৷''

সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত আরও বলেন, ‘‘তবে বিএনপি যদি এই জরিপ বিশ্বাস করে, তাহলে তাদের নির্বাচনে আসা উচিত৷ খালেদা জিয়া যদি এই জরিপ শতভাগ বিশ্বাস করেন তাহলে তাঁর কালই নির্বাচনে আসার ঘোষণা দেয়া উচিত৷'' তিনি বিএনপি নেত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘‘২৪শে অক্টোবরের পর দেশ স্বাভাবিকই থাকবে, অচল হবেনা৷ আর নির্বাচনও হবে যথা সময়ে৷ কোনো নৈরাজ্যের পরিকল্পনা করে লাভ নেই, তত্ত্বাবধায়ক সরকার আর ফিরে আসবেনা৷''

এদিকে বিএনপি-র স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশররফ হোসেন বলেন, ‘‘এই জরিপে জনমতের প্রতিফলন ঘটেছে৷ দেশের মানুষ আর এই সরকারকে চায়না৷ আর এটা বুঝতে পেরেই বিএনপিকে বাদ দিয়ে একতরফা নির্বাচন করতে চাইছে সরকার৷'' একতরফা নির্বাচন করার চেষ্টা হলে তার পরিণতি ভাল হবেনা বলে তিনি মন্তব্য করেন৷ তিনি বলেন, দেশের মানুষ ভোট দিয়ে বিএনপিকে ক্ষমতায় নিতে প্রস্তুত৷ দেশের মানুষকে সেই সুযোগ দিতে হবে৷

খন্দকার মোশাররফ আরও বলেন, সরকার তত্ত্বাবধায়ক না দিয়ে নিজেদের অধীনে নির্বাচন করতে চায়৷ কেন চায়, তা জরিপে স্পষ্ট হয়েছে৷ তাই দেশের ‘৯০ ভাগ মানুষের দাবি' তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা ফিরিয়ে এনে তাদের ভোটের অধিকারকে নিশ্চিত করতে হবে৷

এদিকে জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষক পরিষদ – জানিপপ-এর প্রধান অধ্যাপক ড. নাজমূল আহসান কলিমুল্লাহ ডয়চে ভেলেকে বলেন, যে কোনো জরিপ নিয়েই প্রশ্ন তোলা যায়৷ কারণ জরিপের নানা সীমাবদ্ধতা থাকে৷ কিন্তু তারপরও এই জরিপের ফলফল বাস্তবতার কাছাকাছি বলেই তিনি মনে করেন৷ তাঁর মতে, নির্বাচনই প্রমাণ করবে আসলে কোন দল জনপ্রিয়তায় এগিয়ে আছে৷ কিন্তু সে জন্য নির্বাচন স্বচ্ছ এবং নিরপেক্ষ হওয়া প্রয়োজন৷ সরকারের উচিত সব দলের অংশগ্রহণে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের আয়োজন করা, একতরফা নয়৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন