1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জমি হারালেও প্রভাব কি হারাচ্ছে আইএস?

সিরিয়া ও ইরাকে আইএস নিয়ন্ত্রিত এলাকা আগের তুলনায় ১৪ শতাংশ কমে গেছে৷ তবে একই সঙ্গে বিশ্বের অন্যান্য প্রান্তেও খিলাফত সম্প্রসারণের পরিকল্পনা রয়েছে এই গোষ্ঠীর৷ তাই প্রশ্ন উঠেছে আইএস বা আইসিস-দমন অভিযানের সাফল্য নিয়ে৷

মানচিত্রে তথাকথিত ‘ইসলামিক স্টেট' নিয়ন্ত্রিত এলাকার দিকে তাকালে বিচ্ছিন্ন কিছু জমির টুকরো চোখে পড়ে৷ কয়েকটি অংশে সেই জমির সীমানা পরস্পরের সঙ্গে যুক্ত৷ তাছাড়া আইএস নিয়ন্ত্রিত এলাকার সীমানা সদা পরিবর্তনশীল৷ তারা নতুন এলাকা দখল করে, আবার কিছু এলাকা তাদের হাতছাড়া হয়ে যায়৷ বছরের শেষে হিসাবনিকাশ করে দেখা গেছে, ২০১৫ সালে আইএস প্রায় ১৪ শতাংশ জমি হারিয়েছে৷

তবে শুধু জমির আয়তনই এ ক্ষেত্রে মূল বিবেচ্য বিষয় নয়৷ রাকা ও মোসুল-এর মতো গুরুত্বপূর্ণ শহর আইএস-এর নিয়ন্ত্রণে থাকায় তাদের কৌশলগত সুবিধা রয়ে গেছে৷

একদিকে মার্কিন ও আরব দেশগুলির জোট, অন্যদিকে রাশিয়া আইএস-এর উপর বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে৷ কুর্দি ও অন্যান্য কিছু গোষ্ঠী তাদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে৷ তা সত্ত্বেও আইএস-কে পুরোপুরি পরাস্ত করার সম্ভাবনা এখনো দেখা যাচ্ছে না৷ সিরিয়া ও ইরাকের বাইরে লিবিয়ায় তাদের প্রভাব-প্রতিপত্তি বাড়ছে৷ বিশ্বের অন্য কিছু প্রান্তেও আইএস তাদের খিলাফত সম্প্রসারণ করতে চায়৷ আফগানিস্তানে তালেবানকে কোণঠাসা করে আধিপত্য বিস্তার করতে চাইছে তারা৷

বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল মুসলিম দেশ ইন্দোনেশিয়াও আইএস-এর কুনজর থেকে দূরে নেই৷

দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার আরেক দেশ ফিলিপাইন্সেও সক্রিয় হয়ে উঠতে চায় ইসলামিক স্টেট৷

আইসিস-এর বিরুদ্ধে রণকৌশল মার্কিন নির্বাচনেও বড় ইস্যু হয়ে উঠেছে৷ এই প্রশ্নে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এবং তাঁরই ডেমোক্র্যাট দলের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হিলারি ক্লিন্টনের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় উঠেছে৷

এসবি/ডিজি (রয়টার্স, এএফপি)

আইসিস-এর বিরুদ্ধে রণকৌশল কী হতে পারে বলে আপনার মনে হয়? জানান নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়