1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়ির ৫০ বছর

বিয়ের পর দেরি করে বাচ্চা চান যারা, তারা বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণের কথা ভাবেন৷ জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়ি সেই ভাবনায় প্রথমেই জায়গা করে নেয়৷ এই বড়ি ২০১০ সালে ৫০ বছরের প্রবীণাতে পরিণত হল৷ তবে এখনও তার দাপট এখনো আগের মতই৷

default

ছেলে হোক মেয়ে হোক দু'টি সন্তানই যথেষ্ঠ৷ কিন্তু মাত্র দু'টি সন্তানের মধ্যে পরিবারকে আটকে রাখার উপায় কি ? খুব সহজ৷ উপায় বাতলে দিয়েছে জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়ি৷ ১৯৬০ সালে প্রথম এই ট্যাবলেট বাজারে আনে অ্যামেরিকা৷ বলা প্রয়োজন, জন্ম শাসনের এই বড়ি বার হবার পরই সারা বিশ্বের লক্ষ লক্ষ মহিলা যেন খুঁজে পান কাঙ্খিত সোনার হরিণটি৷

১৯৬০ সালের অগাস্ট মাসে প্রথম যে জন্ম নিয়ন্ত্রণ ট্যাবলেট বাজারে ছাড়া হয় তার নাম এভোনিড৷ এর কিছুদিনের মধ্যে অন্যান্য দেশেও বড়িটি সুলভ হয়ে ওঠে৷ অ্যামেরিকায় এবং বিশ্বের অন্যত্র জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়ি গ্রহণের পক্ষে যিনি জোর প্রচার চালান তিনি মার্গারেট স্যাঙ্গার৷ মেয়েদের জন্ম শাসনের অধিকারের পক্ষে লড়াইকে তিনি করে তোলেন তাঁর জীবনের ব্রত৷ এই ব্রত পালন করতে গিয়ে জেলও খাটতে হয়েছে তাঁকে৷ বহু গ্রন্থ লিখেছেন তিনি জন্ম নিয়ন্ত্রণের বিষয়টি নিয়ে৷ লেকচার দিয়েছেন বিশ্বের নানা দেশে৷

Die erste Antibabypille

একদম প্রথম দিকের জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়ি

প্রখ্যাত জার্মান নারিবাদী লেখিকা অ্যালিস শোয়ার্ৎসার জানান, এই জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়ি নারী স্বাধীনতার ক্ষেত্রে এক মাইলফলক রচনা করেছে৷ তিনি জানান, সে সময় যে অল্প কয়েকজন মহিলা সাহস করে এই বড়ি খেতেন তিনি তাদের মধ্যে একজন৷ মূল লক্ষ্য ছিল অনাকাঙ্খিত এবং অপরিকল্পিত গর্ভধারণকে এড়িয়ে যাওয়া৷ তবে তিনি একা ছিলেন না অনেকেই তাঁর সঙ্গে যোগ দিয়েছিলেন৷ খ্রিষ্টীয় গির্জার কঠিন নিষেধ থাকা সত্বেও৷

ওষুধ কোম্পানি বায়ার শেরিং-এর ওষুধ বিভাগের প্রধান মাওরিন ক্রোনিন জানান, এই বড়ি মেয়েদের সুস্বাস্থ্য রক্ষায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে৷ অনেকে মেয়েই গর্ভবতী হয়ে পড়েন কিন্তু বাচ্চা নিতে চান না৷ তখন গর্ভপাতের দিকে ঝুঁকে পড়েন তারা৷

গোটা ইউরোপে প্রায় ৫০০ মহিলার ওপর একটি জরিপ চালানো হয়, তারা সবাই এক বাক্যে জানিয়েছেন, জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি তাদের জীবনের মান অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে৷ অনিচ্ছা বা পরিকল্পনা ছাড়াই গর্ভধারণ ঘটে যেতে পারে এমন সার্বক্ষণিক উদ্বেগ থেকে তাদের রেহাই দিয়েছে এই ট্যাবলেট৷

সারা বিশ্বে প্রায় বার কোটিরও বেশি মহিলা জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়ি সেবন করে থাকে৷ এ দিক থেকে এগিয়ে রয়েছে উত্তর এবং মধ্য ইউরোপ৷

জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়ির প্রয়োজনীয়তা আসলে কতটুকু ? এ প্রসঙ্গে মহিলা চিকিৎসক ডাঃ ফেরদৌস মহল রুনী জানান, ‘‘আমি মনে করি জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়ি আমাদের জন্য ভীষণ ইতিবাচক একটি ভূমিকা পালন করছে৷ কারণ তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলো বিশেষ করে বাংলাদেশে জন্ম নিয়ন্ত্রণ করতে গেলে এই পিল অপরিহার্য৷ সেই হিসাবে এটি আমাদের জন্য নিঃসন্দেহে ইতিবাচক, অন্ততপক্ষে আমাদের দেশের জন্য৷''

Diätlügen - Pillen

দু'টি সন্তানের মধ্যে পরিবারকে আটকে রাখার উপায় বাতলে দিয়েছে জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়ি

৫০ বছর আগে প্রথম জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়ি সেবনের প্রথা প্রচলিত হয়৷ এই বড়ির উদ্ভাবন ছিল মেয়েদের এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে অনেক বড় একটি পদক্ষেপ৷ ডাঃ ফেরদৌস আরো বললেন, ‘‘অবশ্যই আমি মনে করি যে ১৯৬০ সালে যারা এই পিল উদ্ভাবন করেছিলেন, তারা ভবিষ্যতের কথা যেভাবে চিন্তা করেছেন, কিভাবে জন্ম নিয়ন্ত্রণ করতে হবে৷ তার অন্যতম উপায় হল জন্ম নিয়ন্ত্রণ পিল৷ এবং বছরের পর বছর এই ট্যাবলেটকে আরো উন্নত করা হয়েছে৷ আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে ‘লো-ডোজ' পিল করা হয়েছে৷ যেগুলোর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া খুবই কম৷ সেসব পিল বাজারে নিয়ে আসতে পেরেছে ওষুধ কোম্পানিগুলো - সেটাকে আমারা স্বাগত জানাচ্ছি৷ ''

বিশেষ করে ক্যাথলিক গির্জা জন্ম নিয়ন্ত্রণে ঘোর বিরোধী৷ ভ্যাটিক্যান সবসময়ই জন্ম নিয়ন্ত্রণের কঠিন সমালোচনা করে এসেছে৷ যে কোন ধরণের বড়ি বা অন্য কোন ধরণের পদক্ষেপ গ্রহণে বাধা দিয়েছে ভ্যাটিক্যান৷ নীতি বিরোধী বলে বার বার জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়িকে চিহ্নিত করেছে রোমান ক্যাথলিক চার্চ৷

অনেক মুসলিম দেশও জন্ম নিয়ন্ত্রণের বিরোধিতা করে আসছে৷ ধর্মীয় নেতারা ফতোয়া দিয়েছেন এর বিরুদ্ধে৷ তবে বেশ কিছু দেশ এই বাধা সত্ত্বেও জন্ম নিয়ন্ত্রণের নীতি বাস্তবায়নে এগিয়ে এসেছে৷

তবে জন্মনিয়ন্ত্রণ ট্যাবলেটের বেশ কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে৷ অনেকেই অভিযোগ করেছেন তাদের মধ্যে এক ধরণের হতাশা কাজ করছে, ওজন বেড়ে গিয়েছে বলে অভিযোগ এসেছে সবচেয়ে বেশি৷ এছাড়া সমালোচকরা জানিয়েছেন কোন কোন ক্ষেত্রে অতিমাত্রায় এই ট্যাবলেট সেবনের ফলে ক্যান্সারের ঝুকি বেড়ে যেতে পারে মেয়েদের৷

প্রতিবেদন : মারিনা জোয়ারদার

সম্পাদক : আবদুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়