1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জঙ্গি হামলার খবর প্রকাশ ও প্রচার নিষিদ্ধ করলো আফগানিস্তান

তালেবান তথা জঙ্গি হামলার খবর ‘লাইভ’ বা সরাসরি সম্প্রচার করা হলে, তা উগ্রপন্থীদের সাহস আরও বাড়িয়ে দেবে - এ আশঙ্কা করে সোমবার এই ঘোষণা করেছে আফগানিস্তানের গোয়েন্দা দপ্তর৷

default

আফগানিস্তানে আইসাফ বাহিনীর সেনারা

আফগান গোয়েন্দা সংস্থা ‘ন্যাশনাল ডিরেকটোরেট অফ সিকিউরিটি' এনডিএস বা জাতীয় নিরাপত্তা অধিদপ্তরের মুখপাত্র সৈয়দ আনসারি জানান, এই নিষেধাজ্ঞার ফলে সাংবাদিকরা এবার থেকে শুধুমাত্র অনুমতির ভিত্তিতে জঙ্গি হামলার ছবি তুলতে পারবে৷ আর হামলার সময় বিনা অনুমতিতে যদি কোনো সাংবাদিক চিত্র ধারণ করে, তবে তার যন্ত্রপাতি জব্দ করে তাকে আটক করা হবে - সাংবাদিকদের ডেকে এ কথা অত্যন্ত স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেন আনসারি৷ তাঁর কথায়, ‘‘এহেন হামলার ঘটনা সরাসরি সম্প্রচার করলে আফগান সরকারের আদতে কোনো লাভ হয় না৷ বরং এতে একমাত্র আফগানিস্তানের শত্রুরাই লাভবান হয়৷''

ওদিকে, আফগান গোয়েন্দা সংস্থার তরফ থেকে এই ঘোষণা আসার পর, এর তীব্র নিন্দা জানান দেশটির সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীরা৷ আফগানিস্তানের জাতীয় গণমাধ্যম ইউনিয়নের প্রধান আব্দুল হামিদ মুবারেজ জানান যে, এই সিদ্ধান্তের ফলে দেশের সাধারণ মানুষ তালেবান বিরোধী লড়াই তথা আফগানিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতি সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য থেকে বঞ্চিত হবে৷ বঞ্চিত হবে ঘটনার প্রকৃত তথ্য আরোহণ থেকেও৷

উল্লেখ্য, তালেবান জঙ্গিদের সঙ্গে লড়াইয়ে আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা সহায়ক বাহিনী বা আইসাফ-এর ছয় সদস্য নিহত হওয়ার পর, এ নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা করলো আফগানিস্তান৷ সোমবারও, আফগানিস্তানের দক্ষিণে অবস্থিত কান্দাহার শহরের কাছে এক আত্মঘাতী হামলায় চারজন নিরীহ মানুষ ও এক বিদেশি সেনা নিহত হয়৷ তার পরিচয় জানা না গেলেও, ঐ হামলার দায় স্বীকার করে তালেবান বিদ্রোহীরা৷

বলাই বাহুল্য, ‘ন্যাটো' দেশের দক্ষিণাঞ্চলে অভিযান চালিয়ে তালেবান জঙ্গিদের শক্ত ঘাঁটিগুলি দখল করতে শুরু করায়, আফগানিস্তানের বিভিন্ন জায়গায় হামলা করতে শুরু করেছে উগ্রপন্থীরা৷ প্রসঙ্গত, বর্তমানে আফগানিস্তানে ১,২১,০০০ আন্তর্জাতিক সেনা মোতায়েন রয়েছে৷

প্রতিবেদন : দেবারতি গুহ

সম্পাদনা : আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়