1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

ছোটদের জন্য কিছু লেখো

আমি তোমাদের ওয়েবসাইট মাঝে মাঝে দেখি আর যেদিন রাতে দেরিতে ঘুমাতে যাই সেদিন রেডিও শুনি৷ আমি কার্টুন ছবি দেখতে ও সে বিষয়ে জানতে ভালোবাসি৷ অনেকদিন এসব বিষয়ে ডয়চে ভেলের বাংলা ওয়েবসাইটে কিছু দেখতে পাচ্ছিনা৷

default

আমি তোমাদের ওয়েবসাইট মাঝে মাঝে দেখি আর যেদিন রাতে দেরিতে ঘুমাতে যাই সেদিন রেডিও শুনি৷ আমি কার্টুন ছবি দেখতে ও সে বিষয়ে জানতে ভালোবাসি৷ অনেকদিন এসব বিষয়ে ডয়চে ভেলের বাংলা ওয়েবসাইটে কিছু দেখতে পাচ্ছিনা৷ মাঝে হ্যারি পটার বিষয়ে একটি প্রতিবেদন লিখেছিলে তবে ছবি ছিলোনা৷ ছোটদের জন্য কিছু লেখার কথা আমি তোমাদের জানালাম৷ ওয়েবসাইটে আমার চিঠি দেবে৷ অর্পণ চট্টোপাধ্যায়, শাহানগর,মুর্শিদাবাদ৷

আমি জানতাম না যে নেদারল্যান্ডস সাইকেলের দেশ৷ আপনাদের ওয়েবসাইটের ‘সাইকেল চলবে সৌরপথে' প্রতেবেদনটি পড়ে জানলাম৷ সৌর শক্তিতে সাইকেল চলবে এটা দারুণ খবর৷ সে দেশের মানুষ পরিবেশ বিষয়ে কত সচেতন তা জেনে গোটা পৃথিবীর মানুষের চোখ খুলে যাবে৷ কারণ পেট্রোল, ডিজেল খরচ হবেনা৷ নেদারল্যান্ডস'এর সরকারকে ধন্যবাদ জানাই সেই সঙ্গে ডয়চে ভেলেকেও ধন্যবাদ খবরটি জানানোর জন্য৷ কাঞ্চন কুমার চ্যাটার্জী, শাহানগর, মুর্শিদাবাদ৷

একশ পঞ্চাশ বছর কালের হিসাবে হয় তো দীর্ঘ নয়৷ বাঙালির সাংস্কৃতিক মনন চর্চায় অন্তরে বাহিরে কিন্তু এই সময়কাল পরিব্যাপ্ত হয়ে আছে গৌরবের মহিমায়৷ আর বাঙালির গৌরবের যিনি আজও স্বমহিমায় স্বতন্ত্র বিরাজিত, তিনি অবশ্যই রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর৷ তাঁর সার্ধশতবর্ষে তাঁকে ঘিরেই বর্তমান বাঙালির শ্রদ্ধার্ঘ অর্পণ৷ আমরা আমাদের ক্লাবের উদ্যোগে বিশেষ এক সান্ধ্যকালীন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছি তাঁর জন্ম তিথিতে৷ কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সার্ধশত জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এবার বাংলাদেশ ভারত যৌথ উদ্যোগে উভয় দেশে তিনদিন ব্যাপী বিস্তারিত কর্মসূচি পালন করছে৷ গতকাল থেকে বাংলাদেশে শুরু হয়েছে তিনদিনব্যাপী রবীন্দ্র সার্ধশত জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠান, আজ তার অন্যান্য কর্মসূচি নতুন দিল্লিতে৷ এই বিষয়ে বস্তুনিষ্ঠ প্রতিবেদন উপহার দেবার জন্য ডয়চেভেলে বাংলা বিভাগকে অনেক অনেক ধন্যবাদ৷ ভালো থাকবেন৷ মহ: হাফিজুর রহমান, ইন্টারন্যাশনাল মিতালি লিসনার্স ক্লাব, চুপী, পূর্বস্থলী, বর্ধমান৷

ছয় তারিখের চলতি ঘটনাতে ‘লিমনকে নিয়ে পুলিশের দৌড়ঝাপ থামালো হাইকোর্ট' শিরোনামে প্রতিবেদনটি আমার দৃষ্টি কেড়েছে৷ গুলিতে বা পা হারানো লিমন জামিনে মুক্তি পেয়েছে জেনে ভাল লেগেছে৷ ব়্যাব সাধারণ মানুষের বন্ধু, সন্ত্রাসীদের হাতে জিম্মি হয়ে পড়া মানুষজন যেন তাদের দেহে আত্মা ফিরে পেয়েছে৷ এই তো কিছুদিন আগেও আমরা সন্ত্রাসীদের ভয়ে সন্ধ্যার পর ঘরের বাইরে একান্ত প্রয়োজন ছাড়া কেউ বের হতাম না৷ কিন্তু এখন ব়্যাবের বদৌলতে রাত ১০/১১টা পর্যন্ত বাইরে থাকতে পারি, এতে কোন সমস্যা হয় না৷ ধন্যবাদ ব়্যাবকে সাধারণ মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরিয়ে দেবার জন্য৷ এই ক্ষেত্রে একটি কথা না বললেই নয়, আর তা হলো ব়্যাবের ক্রসফায়ার নিয়ে মানবাধিকার সংস্থার বিরোধিতার বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে আমি বলব আপনারা কোথায় থাকেন যখন সন্ত্রাসীদের হাতে নিরীহ মানুষ দিনে দুপুরে মারা যায় বা কিছুদিন পূর্বেও কুষ্টিয়াতে পর পর কয়েকদিন বিভিন্ন মানুষের কাটা মাথা পড়ে ছিলো৷ তখন তো আপনারা মানবাধিকার লঙ্ঘনের কথা বলে মিছিল মিটিং করেননি বা তাদের শাস্তির কথা বলেননি অথবা একজন সন্ত্রাসী অস্ত্রসহ ধরা পড়ার পর জামিনে মুক্তি পেয়ে পুনরায় সন্ত্রাসী কার্যকলাপে যুক্ত হয় চাঁদাবাজি শুরু করে তখন আপনারা কোথায় থাকেন, তবে আমাদের প্রত্যাশা সন্ত্রাসীদের নির্মূল করতে গিয়ে যেন একজনও ভালমানুষ আক্রান্ত না হয়৷ আদালতের কাছে আমাদের আবেদন লিমনের ঘটনাটির সঠিক তদন্ত করে প্রকৃত দোষীদের শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে৷ মোঃ ওবায়দুল্লাহ পিন্টু রেইনবো শ্রোতা সংঘ আমলা, মিরপুর, কুষ্টিয়া৷

ডয়চেভেলেকে আমি চিনতে শিখেছি ২০০২ সালে আমার বাবার সৌজন্যে৷ তখনকার ডয়চেভেলে আর এখনকার ডয়চেভেলের মধ্যে আসমান জমিন ব্যবধান৷ তখন শ্রোতাদের মধ্যে ছিল তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা৷ ছিল সেরা হওয়ার তাড়না৷ এখনকার শ্রোতাদের মধ্যেও সফল হওয়ার প্রয়াস লক্ষ্য করা যায় তবে সময়ের বিবর্তনে অনেকটাই বদলে গেছে ডয়চেভেলে৷ প্রতিযোগিতার প্রধান ক্ষেত্র আজ মৃত প্রায়৷ এখন আর সেরা ক্লাব নির্বাচন করা হয় না৷ তাই শ্রোতারা এখন আর মতামত, সমালোচনা পাঠান না, করেন শুধু প্রশংসা আর কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ৷ তাই আমার দাবি সেরা ক্লাব ও সেরা শ্রোতা নির্বাচন পুনরায় ফিরিয়ে আনা হোক৷ এতে আরো সমৃদ্ধ হবে ডয়চেভেলে, বাড়বে শ্রোতা, বাড়বে শ্রোতাদের মধ্যকার অর্জনের আকাঙ্খা৷ কাজল রঞ্জন ঘোষ, খুলনা৷

প্রিয় ডয়চে ভেলে, বার্লিন আমার কাছে বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ মিশ্র সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের শহর৷ তাপস নাথ, কলকাতা৷

ওয়েবসাইটের প্রতিটি পাতার প্রতিটি বিষয়ের ওপর খুঁটিনাটি প্রতিবেদনগুলো পড়তে

বেশ অনেকটা সময় চলে যায়৷ শুধু কী তাই, প্রতিটি পাতার ঠিক মাঝখানে ফটো গ্যালারি

ভীষণভাবে আকর্ষণ করে৷ তবু অফিসে কাজের ফাঁকে প্রতিদিন ওয়েবসাইটের

প্রতিবেদনগুলো মনোযোগ দিয়ে দেখতে কোনো ভুল হয় না৷ কারণ এতে যে আছে

সঠিক এবং সাম্প্রতিক খবরাখবর সহ ডয়চে ভেলের নিখুঁত পরিবেশনা এবং

আন্তরিকতার উষ্ণ স্পর্শ৷ শুভকামনা রইলো সকলের জন্য৷ সুভাষ চক্রবর্তী, নতুন দিল্লি, ভারত৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা:আবদুল্লাহ আল-ফারূক