1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

মতামত

ছেলেদের দাড়ি মেয়েদের ‘কেন' পছন্দ?

‘‘চকচকে কামানো নয়, বরং গালে ফুটে থাকা দাড়িওয়ালা ছেলের দিকেই টান অনুভব করে মেয়েরা'' – ‘নিখুঁত আর মসৃণ শেভ করবেন যেভাবে' ছবিঘরটি দেখার পর এ মন্তব্য করেছেন আমাদের এক পাঠক৷ কিন্তু কেন এমনটা হয়? জেনে নিন...৷

‘‘কাউকে ভালোবাসার জন্য খুব বড় কোনো কারণের প্রয়োজন হয় না৷ একেক জনের হিসাব একেক রকমের৷ অনেক ছেলে যেমন মেয়েদের রূপেই হুট করে মজে যায়৷ আর তেমনটা মেয়েদের ক্ষেত্রেও ঘটতে পারে৷ মজার বিষয়, ছেলেদের দাড়ি এখানে গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়৷ চকচকে কামানো নয়, বরং গালে ফুটে থাকা সুস্পষ্ট দাড়িওয়ালা কোনো ছেলের দিকেই টান অনুভব করে মেয়েরা৷ এমন ছেলেরা কেন মেয়েদের পছন্দের তালিকায় সবার ওপরে থাকে, তার কয়েকটি কারণ প্রকাশ করা হয়েছে বোল্ডস্কাই ওয়েবসাইটের জীবনধারা বিভাগে৷ এক নজরে দেখে নিতে পারেন৷''

আমাদের ফেসবুক পাতায় এ মন্তব্য করেছেন পাঠক মো. এন আহাদ৷ ছেলেদের দাড়ি মেয়েদের কেন পছন্দ? – এ বিষয়ে বোল্ডস্কাই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত  উদাহরণগুলো তিনি তুলে ধরেছেন এভাবে,

কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব মেয়ের বাবা বা দাদার দাড়ি ছিল তারা স্বাভাবিকভাবেই অনুভব করে যে, যাদের দাড়ি আছে তারা অনেক বেশি আকর্ষণীয়৷ কারণ এ সব মেয়েরা নিজের বাবা ও দাদাকেই বেশি ব্যক্তিত্বসম্পন্ন ও আকর্ষণীয় মনে করে৷

চেহারার ওপর দাড়ির কারণে আলাদা একটা রেখা দেখা যায়, যা তার পুরুষালী বৈশিষ্ট্যকে প্রকাশ করে৷ এই পুরুষালী প্রকাশভঙ্গিমার তোড়ে মেয়েরা অবচেতনভাবেই তাদের প্রেমে পড়ে যায়৷

দাড়ির কারণে ছেলেদের অনেক বেশি পরিণত মনে হয়৷ বেশির ভাগ মেয়েই পরিণত ছেলেদের সঙ্গে সম্পর্ক করতে বেশি আগ্রহী৷ তারা নিজেকে তার কাছে নিরাপদ মনে করে৷

আপনি যদি একই মানুষের দাড়ি ছাড়া ও দাড়িসহ ছবি দেখেন, তাহলে নিজেই পার্থক্যটা অনুভব করতে পারবেন৷ আর সেই পার্থক্যটা হলো – দাড়িসহ একটা ছেলেকে সত্যিই শক্তিশালী মনে হয়!

দাড়ি ছাড়া পুরোপুরি শেভ করা ছেলেদের মেয়েরা খুব একটা পছন্দ করে না৷ এর কারণ, দাড়ি ছাড়া ছেলেদের তাদের কিছুটা শিশুতোষ মনে হয়! সচরাচর যেসব ছেলেকে দেখতে পরিণত মনে হয়, তাদের প্রতিই বেশি আকর্ষণ অনুভব করে মেয়েরা৷

ছেলেদের দাড়ি রাখা নিয়ে পাঠক আহাদের পাঠানো বিস্তারিত মতামত ডয়চে ভেলের ফেসবুকবন্ধু আবরার জাইয়ান আদিবের কাছে খুবই ভালো লেগেছে৷ অন্তত সে কথাই তিনি লিখেছেন আমাদের ফেসবুকে৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন