1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

ছিঁড়ে জোড়া দেওয়া ছবি

স্ট্রিট আর্টের আদিযুগের পথিকৃৎ জাক ভিলেগ্লে-র বয়স আজ নব্বই৷ রাস্তাঘাটের পোস্টার ছিঁড়ে সেগুলিকে শিল্পে পরিণত করতেন৷ তাঁর এই ‘ডি-কোলাজ' বা পোস্টার ছেঁড়ার উদ্দেশ্য ছিল পুরোপুরি শৈল্পিক, নান্দনিক৷

স্ট্রিট আর্টের এক পথিকৃৎ চলেছেন প্যারিসের পথ ধরে: ৮৯ বছর বয়সের জাক ভিলেগ্লে৷ তাঁর এলাকার গ্র্যাফিটি শিল্পীদের কাজ দেখে তিনি খুব খুশি৷ বেশ কয়েক দশক আগে ভিলেগ্লে ঠিক এ ভাবেই আর্ট সৃষ্টি করতেন – তবে একটু অন্যভাবে৷ তাঁর মাধ্যম ছিল সাধারণ বিজ্ঞাপনের পোস্টার৷ ভিলেগ্লে জানালেন, ‘‘রাস্তার হোর্ডিং-এর পোস্টার ছেঁড়া এক ধরনের মুক্তি, কেননা বিজ্ঞাপনের পোস্টার আমাদের কোনো না কোনো পণ্য বিক্রি করতে চায়; রাজনৈতিক প্রচারণা চায় আমাদের জ্ঞানগর্ভ কথা শোনাতে৷ কাজেই তাদের এই সব বার্তা ছিঁড়ে ফেলাটা নৈরাজ্যের এক শৈল্পিক প্রতীক৷''

সে আমলে তরুণ ভিলেগ্লে বারংবার দেয়াল থেকে বিজ্ঞাপনের পোস্টার ছিঁড়ে ফেলতেন, তারপর সেগুলোকে তাঁর স্টুডিওয় নিয়ে গিয়ে শিল্পকলা হিসেবে বাঁধিয়ে রাখতেন৷ এ নিয়ে পুলিশ তাঁকে জেরা করেছে, কিন্তু কখনো গ্রেপ্তার করেনি৷ যদিও তখন অনেকেই বুঝতে পারেননি, ভিলেগ্লে-র এই কর্মসূচির উদ্দেশ্য বা তাৎপর্য কী৷

UrbanArt Biennale 2015 in der Völklinger Hütte

স্ট্রিট আর্ট

নাগরিক চেতনা

আজ জাক ভিলেগ্লে ও তাঁর দুই ফরাসি বন্ধু তথা শিল্পী রেমঁ অ্যাঁস ও ফ্রঁসোয়া দুফ্রেন-এর শিল্পকর্ম বিশ্বের সবচেয়ে নামকরা সংগ্রহশালাগুলিতে প্রদর্শিত – কেননা এই ছবিগুলি যৌথ নাগরিক চেতনার প্রতিফলন বলে গণ্য হয়৷ বর্তমানে ফ্রাংকফুর্টের শিয়র্ন কুনস্টহালে-তে তাঁদের ছবিগুলি একটি সুবিশাল প্রদর্শনীতে দেখানো হচ্ছে৷ ‘মহানগরীর কাব্য' প্রদর্শনীর উদ্যোক্তা এস্টার শ্লিশ্ট বলেন, ‘‘জাক ভিলেগ্লে তাঁর ছেঁড়া প্রতিটি পোস্টারে সংগ্রহের স্থান-তারিখ লিপিবদ্ধ করেছেন – তিনি যেন তাঁর পোস্টার আর্টের মাধ্যমে শহরের একটা মানচিত্র সৃষ্টি করার চেষ্টা করছিলেন৷''

পোস্টার ছেঁড়াকে বলা হয় ‘ডি-কোলাজ', অর্থাৎ ‘কোলাজ'-এর উলটো৷ ফ্রান্স ছাড়া অন্যান্য দেশেও ডি-কোলাজ-এর কাজ হয়েছে, যেমন ইটালির শিল্পী মিমো রোতেলা তাঁর ছেঁড়া পোস্টারগুলো দিয়ে রোম শহরের রঙিন পণ্যজগতকে ধরে রেখেছেন৷

জার্মানির ভল্ফ ফস্টেল পোস্টার ছেঁড়ার কাজ করেছেন রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে৷ সে তুলনায় জাক ভিলেগ্লে-র দৃষ্টি ও উদ্দেশ্য ছিল পূর্ণভাবে নান্দনিক৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক