1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘ছাড় পেলে শফিরা আরো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠবে’

নারীদের নিয়ে কুরুচিপূর্ণ ও অবমাননাকর বক্তব্য দেয়ায় হেফাজতে ইসলামের প্রধান আল্লামা শাহ আহমেদ শফিকে গ্রেপ্তার দাবি করা হয়েছে৷ বিশ্লেষকদের কথায়, মাওলানা শফি দেশে মধ্যযুগে ফিরিয়ে নিতে চান৷

এই মাওলানারাই ভোটের রাজনীতিতে রাজনৈতিক দলগুলোর পৃষ্ঠপোষকতা পেয়ে থাকেন৷ চট্টগ্রামের হাটহজারিতে এক সমাবেশে আল্লামা শফি নারীদের শিক্ষা, চাকরি, ব্যবসা-বাণিজ্য, লেখা-পড়া এবং স্বাধীনভাবে চলাফেরার বিরুদ্ধে কথা বলেছেন৷ তিনি তাঁর বক্তব্য দিতে গিয়ে নারীদের সম্পর্কে অশ্লীল এবং অবমাননাকর কথা বলেন৷ এমনকি তিনি নারীদের তেঁতুলের সঙ্গেও তুলনা করার দুঃসাহস দেখিয়েছেন৷ তাঁর এই বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হয়ে এখন সংবাদমাধ্যমেও প্রকাশ পেয়েছে৷ স্বাভাবিকভাবেই এ নিয়ে সারা দেশে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় ওঠে৷

বৃহস্পতিবার ঢাকার প্রেসক্লাবে ‘জনতার শক্তি' নামে একটি সংগঠন আল্লামা শফিকে গ্রেপ্তারে দাবিতে মানববন্ধন করেছে৷ মানববন্ধনে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সব শ্রেণির লোকজন অংশ নেন৷ তাঁরা বলেন, আল্লামা শফি ধর্মের অপব্যাখা করছেন৷ তিনি ধর্মের নামে নারীদের অবমাননা করছেন৷ এ জন্য সরকারকে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতেই হবে৷ তাঁরা বলেন, ধর্মান্ধ গোষ্ঠী দেশকে মধ্যযুগে ফিরিয়ে নিতে চায়৷ তাদের এই তত্‍পরতা দিন দিন প্রবল হচ্ছে৷ কিন্তু তাদের এই অপতত্‍পরতা সফল হবে না৷ মানববন্ধনে অংশ নিয়ে নাট্যকার রোকেয়া প্রাচী বলেন, আল্লামা শফি শুধু ইসলামের অপব্যখ্যাই করছেন না, তিনি বাংলাদেশের সংবিধানের বিরুদ্ধেও অবস্থান নিয়েছেন৷ তাই তাঁকে অবশ্যই আইনের আওতায় আনতে হবে৷

Bangladesch Industriepark Ashulia Frauen Arbeiterinnen

মানবাধিকারকর্মী এবং নারী নেত্রী অ্যাডভোকেট এলিনা খান বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর কারণে আল্লামা শফির মতো ধর্মান্ধরা নারী অবমাননার সাহস পায়

এদিকে মানবাধিকারকর্মী এবং নারী নেত্রী অ্যাডভোকেট এলিনা খান ডয়চে ভেলেকে বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর কারণে আল্লামা শফির মতো ধর্মান্ধরা নারী অবমাননার সাহস পায়৷ রাজনৈতিক দলগুলো ভোটের হিসেব করে৷ আর ভোটের হিসেব করতে গিয়ে চুপচাপও থাকে৷ তিনি বলেন, আল্লামা শফি প্রথমত ইসলামের অপব্যাখা দিয়েছেন৷ তিনি নারীদের নিয়ে যা বলছেন ইসলামে কোথাও এ ধরণের কথা নেই৷ বরং ইসলামে নারীর কর্ম, শিক্ষা এবং সম-অধিকারের কথা বলা হয়েছে৷ দ্বিতীয়ত, তিনি নারীদের অপমান এবং অবমাননা করছেন৷ দেশের সংবিধানের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন৷ তাই সরকারের উচিত এই দুটি অপরাধে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া৷ এলিনা খান বলেন, এই ধর্ম ব্যবসায়ীরা চিন্তা-চেতনায় যে মধ্যযুগীয়, তা আবারো প্রমাণ হলো৷

ওদিকে ইসলামি ঐক্যজোটের একাংশের চেয়ারম্যান মাওলানা মেসবাহুর রহমান চৌধুরী ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, আল্লামা শফি নারীদের নিয়ে যেসব কুরুচিপূর্ণ কথা বলছেন তা কোনো সভ্য মানুষের পক্ষে বলা সম্ভব নয়৷ তিনি শুধু নারী নয়, পুরষেরও অবমাননা করেছেন৷ কারণ, কোনো কিছু দেখলেই জিভে জল আসে পশুর, মানুষের নয়৷ মেসবাহুর রহমান বলেন, ইসলাম নারী শিক্ষা, তাঁদের ব্যবসা-বাণিজ্য, চাকরি করাকে উত্‍সাহিত করেছে৷ যারা ইসলামের নামে নারীর স্বকীয়তা এবং স্বাধীনতার বিরুদ্ধে কথা বলছে, তারা ইসলামের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করছে৷ তিনি বলেন, আল্লামা শফির মতো ব্যক্তিদের আইনের আওতায় আনা খুবই জরুরি৷ মেসবাহুর রহমানের মতে, ভোটের হিসেব করে শফির মতো মানুষদের ছাড় দিলে তারা আরো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন