1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে শালকে ও রেয়াল

চ্যাম্পিয়নস লিগের দুটি রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে জিতে এগিয়ে গেল জার্মানির শালকে ও স্পেনের রেয়াল মাদ্রিদ৷ গতবারের চ্যাম্পিয়ন ইন্টার মিলান’কে ৫-২ গোলে হারালো শালকে৷ রেয়াল মাদ্রিদ টটেনহ্যামকে হারালো ৪-০ গোলে৷

default

ইন্টার মিলানের জালে শালকের বল

কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যায়ের দুটি ম্যাচেই যেমন গোলের বন্যা বয়ে গেল, তেমনটা সহজে দেখা যায় না৷ বিশেষ করে মিলানে ম্যাচের শুরুতে মাত্র ২৭ সেকেন্ডের মাথায় ইন্টার মিলান একটি গোল করে শালকে'কে বেকায়দায় ফেলে৷ তারপর আসে মিলানের দ্বিতীয় গোল৷ কিন্তু জবাবে শালকে যে পাঁচ-পাঁচটি গোল করে বসবে, এমনটা কেউ ভাবতে পারে নি৷ এমনকি খেলার পরেও শালকের খেলোয়াড়রা এমন সাফল্যের কথা বিশ্বাস করতে পারছিলেন না৷ দলের নতুন কোচ রাল্ফ রাংনিক এই ম্যাচের প্রস্তুতি হিসেবে ইন্টার মিলান ও এসি মিলানের মধ্যে আগের ম্যাচটি দেখে নিয়ে ইন্টারের দুর্বলতা টের পেয়েছিলেন৷ মঙ্গলবার সেই অনুযায়ী তিনি শালকের খেলোয়াড়দের আক্রমণাত্মক কৌশল স্থির করে দেন৷ সেই ‘হোমওয়ার্ক' যে কাজে লেগেছে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না৷ সব সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে পারলে শালকে আরও কয়েকটি গোল দিতে পারতো বলে মন্তব্য করেন রাংনিক৷

শালকের জন্য এই জয় বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ৷ বুন্ডেসলিগায় ব্যর্থতা সত্ত্বেও একমাত্র জার্মান ক্লাব হিসেবে তারা এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমি ফাইনালে পৌঁছতে পেরেছে৷ কোচ হিসেবে রাংনিক নিজের সাফল্যও প্রমাণ করতে পারলেন এই ম্যাচে৷

অন্যদিকে রেয়াল মাদ্রিদ বেশ সহজেই ৪-০ গোলে টটেনহ্যামকে হারিয়ে দেয়৷ ১৯৬২ সালের পর টটেনহ্যাম সেমি ফাইনালে পৌঁছতে পারে নি৷ এবারেও সেই স্বপ্ন পূরণ হলো না৷ তার উপর ম্যাচের ১৫ মিনিটের মাথায় রেফারি রেড কার্ড দেখিয়ে পিটার ক্রাউচকে মাঠ থেকে বের করে দেওয়ার পর ১০ জন খেলোয়াড়কে নিয়ে বাকি সময় খেলতে হয়েছে টটেনহ্যামকে৷

প্রতিবেদন: সঞ্জীব বর্মন

সম্পাদনা: আরাফাতুল ইসলাম