1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

চোখের মণি কখনোই মিথ্যা বলে না

মানুষের অনুভূতির প্রতিফলন ঘটে চোখের মণি বা তারাতে৷ ভয়, ঘৃণা ও আনন্দে প্রসারিত হয় চোখের তারা৷ অনেক সময় আমাদের ভবিষ্যৎ-সিদ্ধান্তকে আগেভাগে ফাঁসও করে দেয় এগুলো৷

default

আলোর গভীরতার ওপর নির্ভর করে চোখের মণির আকার পরিবর্তিত হয়

চোখের মণির আকার সমসময় পরিবর্তিত হয়৷ এটা নির্ভর করে আলোর গভীরতার ওপর৷ অন্ধকার পরিবেশে যতটা সম্ভব আলো প্রবেশ করানোর জন্য চোখের তারা বড় হয়ে যায়৷ আবার প্রখর সূর্যের আলোয় রেটিনাকে তাপ থেকে রক্ষা করার জন্য ছোট হয়ে যায় মণি৷ চোখের তারার রঙিন অংশ বা কনীনিকা আলো আঁধারের এই নিয়ন্ত্রণের জন্য দায়ী৷ তবে চোখের মণির আকারে প্রভাব পড়ার শুধু এটাই একমাত্র কারণ নয়৷

আনন্দ বা ভীতিতেও বড় হয়

Bildergalerie Iran Der Reflexion in den Augen

আনন্দ বা ভীতিতে চোখের তারা বড় হয়ে ওঠে

আনন্দ বা ভীতিতেও চোখের তারা বড় হয়ে ওঠে৷ স্নায়ুতন্ত্রের এক্ষেত্রে ভূমিকা রয়েছে৷ সেই প্রাচীন আমলেই যেমন লক্ষ্য করা গেছে, বিপদে-আপদে বন্য জীবজন্তুর আক্রমণের সম্ভাবনা থাকলে মস্তিষ্ক কিছু বোঝার আগেই স্নায়ুতন্ত্রে দ্রুত প্রতিক্রিয়া হয়৷ এখন অবশ্য বন্য জন্তুর হাত থেকে উদ্ধার পাওয়ার জন্য পালাতে হয় না আমাদের৷ কিন্তু সহজাত প্রতিক্রিয়া এখনও অত্যাবশ্যকীয়, যেমন রাস্তায় ট্রাফিক চলাচলের ক্ষেত্রে বা দুর্ঘটনা ঘটলে৷ চোখের মণি বিস্তৃত হয়ে ভেতরের অস্থিরতা প্রকাশ করে৷ আর এটা হয় আনন্দ বা আতঙ্কে কোনো শব্দ উচ্চারণ করার আগেই৷ তবে ঘৃণা, ভয় বা আনন্দ, ঠিক কোন অনুভূতিটা চোখের তারায় ফুটে তা বোঝা যায় না৷

গবেষণায় নতুন বিষয় জানা গিয়েছে

আমস্টারডাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানী ভিলেম ডে জি ও টোবিয়াস ডোনার চোখের মণি নিয়ে গবেষণা করে নতুন একটি বিষয় উদঘাটন করেছেন৷

Bildergalerie Iran Der Reflexion in den Augen

‘‘কোনো মানুষ যদি মিথ্যা বলে এবং এই মিথ্যা ধরা পড়তে পারে বলে ভীত হয়, তাহলে মণি প্রসারিত হতে পারে’’

তাঁদের এই গবেষণা অনুযায়ী চোখের মণির আকার দেখে মানুষের সিদ্ধান্ত সম্পর্কে জানা যায়৷ অর্থাৎ মানুষ কোনো সিদ্ধান্ত হ্যাঁ বা না সূচক নেবে কিনা, তা চোখের মণি বোঝা যায়৷ সিদ্ধান্ত হ্যাঁ হলে চোখের তারা প্রসারিত হয়৷

এক্ষেত্রে কিছুটা ভিন্ন মতও রয়েছে

চক্ষু চিকিত্সা বিজ্ঞান বা অপথ্যালমোলজি সোসাইটির হেলমুট ভিলহেল্ম অবশ্য এই তত্ত্ব মেনে নিতে নারাজ৷ তাঁর মতে, চোখের বিস্তৃত মণি শুধু এটাই প্রকাশ করে যে মানুষটি উত্তেজিত কিনা৷ কিন্তু কী ধরনের উত্তেজনা সেটা প্রকাশ করে না৷

‘‘কোনো মানুষ যদি মিথ্যা বলে এবং এই মিথ্যা ধরা পড়তে পারে বলে ভীত হয়, তাহলে তার চোখের মণি প্রসারিত হতে পারে৷'' তবে বিস্তৃত চোখের মণি আনন্দ ও স্বস্তির প্রকাশও হতে পারে৷ চোখের মণি মিথ্যা বলে না৷ তারা সত্যি বলে৷ কিন্তু ঠিক কোন সত্যিটি, তা এখনও স্পষ্ট নয়৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়