1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

চূড়ান্ত সংঘাত এড়ানোর একমাত্র পথ সংলাপ

দেশের চলমান সংকট নিরসনে সংলাপের সময় শেষ হয়ে যায়নি, বলে মনে করেন জাতীয় সংসদের স্পিকার৷ আর সুশীল সমাজ মনে করে দেরি হলেও যেন সংলাপ হয়, হয় রাজনৈতিক সমঝোতা৷

তাঁদের মতে দেশকে চরম সংকট থেকে রক্ষা করতে পারে একমাত্র সংলাপ৷ তাতে হয়তো রাজনৈতিক সমঝোতা হতে পারে৷ নয়তো দেশ চরম ক্ষতির মুখে পড়বে৷ গণতন্ত্র পথ হারাতে পারে৷

বাংলাদেশের চলমান রাজনীতি এখন যেন চূড়ান্ত সংঘাতের অপেক্ষায়৷ একদল নির্বাচন এবং আরেকদল নির্বাচন প্রতিহত করার জন্য যেন এখনই ঝাঁপিয়ে পড়বে৷ একদিকে দেশ অচল করার হুমকি৷ আর আরেক দিকে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি৷ এতে সাধারণ মানুষ এখন চরম উৎকণ্ঠা আর উদ্বেগের মধ্যে রয়েছেন৷

চলতি মাসের গত সপ্তাহটি বাদ দিলে বাকি সপ্তাহগুলো কেটেছে বিরোধী দলের হরতালের মধ্যে৷ আগুনে যানবাহন পুড়েছে, পুড়েছে মানুষ৷ এর মধ্যেই গঠিত হয়েছে নির্বাচনকালীন সরকার৷

কিন্তু দেশের সাধারণ মানুষ হরতাল অবরোধ যেমন চায় না তেমনি চায় না একতরফা নির্বাচন৷ তারা চায় সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন৷ আর সেখানে তারা স্বাধীনভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে চায়৷ কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে নির্বাচনি উৎসব নেই আছে সংঘাতের আশঙ্কা৷ আছে আরো গভীর সংকটের অশুভ ইঙ্গিত৷ যার নেতিবাচক প্রভাব পড়বে সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে সব শ্রেণির মানুষের ওপর৷

কারওয়ান বাজারের সবজি বিক্রেতা আলি আহমেদ যেমন তার ব্যবসা আর আয় রোজগার নিয়ে শঙ্কিত৷ তেমনি গার্মেন্টস ব্যবসায়ী ইসমাইল হোসেন উৎপাদন এবং রপ্তানি নিয়ে শঙ্কিত৷ আর এই দু'জনই আশা করেন সংঘাতের পথে না গিয়ে দেশের বড় দু'টি রাজনৈতিক দল যেন সমঝোতার পথে যায়৷ তাঁরা যেন আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করে সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করে৷ কোনো দলই যেন সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে ক্ষমতায় যাওয়ার পথ না খোঁজে৷

এই শঙ্কার বাইরে নেই জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরীও৷ তাই তিনি শনিবার বিকেলে ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেছেন, তাঁর আশা শেষ পর্যন্ত সব দলের অংশগ্রহণে একটি সুষ্ঠু, অবাধ এবং নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে৷ তিনি বলেন সংলাপের সম্ভাবনা এখনো আছে, শেষ হয়ে যায়নি৷ একটি সংলাপের মাধ্যমে রাজনৈতিক সমঝোতা হতে পারে৷ তবে তিনি মনে করেন সংলাপ শর্তহীন এবং উন্মুক্ত হওয়া প্রয়োজন৷

সুশাসনের জন্য নাগরিক সুজন-এর সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার ডয়চে ভেলেকে বলেন, শুধু তাঁর নয় পুরো জাতির প্রত্যাশা এখন সংলাপের মাধ্যমে রাজনৈতিক সমঝোতা৷ কারণ সমঝোতা না হলে দেশ ও দেশের মানুষ চরম ক্ষতির মুখে পড়বে৷ আর গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া পথ হারাতে পারে৷ তিনি মনে করেন দেরি হয়েছে, তবে সময় চলে যায়নি৷ তাই সংলাপের মাধ্যমেই সমাধান খোঁজা উচিত৷ সমঝোতা হলে আর কোনো সমস্যাই সমস্যা থাকবে না৷ গণতন্ত্র রক্ষা পাবে, রক্ষা পাবে দেশ৷ নয়তো এখন যে সংকট আমরা দেখছি তার আরো নানা ধরণের প্রকাশ ঘটতে পারে বলে মনে করেন তিনি৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়