1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

চীনে জনপ্রিয় হচ্ছে মৌমাছির হুল থেরাপি

চীনে মৌমাছির হুল ফুটিয়ে চলছে চিকিৎসা৷ চিকিৎসা নিচ্ছেন অন্তত ২৭ হাজার রোগী৷ তবে সমালোচকরা বলছেন, এর কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই৷

মৌমাছির হুলের কথা শুনলে যে কেউ আতঙ্কে শিউরে উঠতে পারে৷ সেটাই স্বাভাবিক৷ কিন্তু চীনে আকুপাংকচারের ক্লিনিকগুলোতে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এই হুল ফোটানো চিকিৎসা৷ বেইজিং এর ওয়াং মেংলিং-এর ক্লিনিক তাদেরই একটি৷ এখানে বেদনাদায়ক এই পদ্ধতির মাধ্যমে দেয়া হচ্ছে চিকিৎসা৷

ওয়াং মেংলিং ক্লিনিকের প্রধান চিকিৎসক ওয়াং জানালেন, মৌমাছিটিকে শরীরের একটি নির্দিষ্ট পয়েন্টে রেখে মাথাটি ধরে রাখা হয়, যতক্ষণ না এটি হুল ফোটায়৷ এরপর এটিকে সরিয়ে নেয়া হয়৷ সাধারণত ইটালি থেকে এসব মৌমাছি নিয়ে আসা হয় এই ক্লিনিকে৷

আর্থ্রাইটিস থেকে ক্যানসার – সব চিকিৎসায় ইতিবাচক এই চিকিৎসা-এমনটাই দাবি ওয়াং-এর৷ অ্যালার্জি সংক্রান্ত অসুস্থতা ছাড়া সব ধরনের রোগেই এই চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে৷ এমনকি প্রতিরোধক হিসেবেও মৌমাছির হুল বেশ কার্যকর বলে দাবি করছেন ওয়াং৷ তবে পশ্চিমা বিশেষজ্ঞরা একে অপচিকিৎসা হিসেবেই আখ্যায়িত করছেন৷ মার্কিন বিজ্ঞান ভিত্তিক একটি ওয়েবসাইট বলছে, এই চিকিৎসার পেছনে বৈজ্ঞানিক কোনো ভিত্তি নেই৷

ওয়াং-এর এক রোগী জানালেন, চিকিৎসকরা ফুসফুস ও মস্তিষ্কে ক্যানসারের কারণে তাঁর আয়ু আর বেশি দিন নেই বলে জানিয়েছিলেন৷ কিন্তু এই চিকিৎসার ফলে এখন তিনি দ্বিগুণ আয়ু পেয়েছেন বলে মনে করছেন৷

অ্যামেরিকান ক্যানসার সোসাইটি বলছে, ক্যানসার প্রতিরোধে মৌমাছির হুল বা মধু জাতীয় কোন পদার্থ কাজ দেয় – গবেষণায় এমন কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি৷

মৌমাছির হুলের বিষ অতি প্রাচীন কাল থেকে চীনে ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে৷ এমনকি চীনা চিকিৎসা ব্যবস্থায় এই পুরোনো প্রথা এখনও কার্যকর৷ কেন্দ্রীয় সরকারও এ খাতে প্রচুর ব্যয় করে৷

চীনে বেশিরভাগ মানুষ যাদের আধুনিক ওষুধ কেনার ক্ষমতা নেই, তারা এ ধরনের টোটকা ব্যবহার করেই চিকিৎসা চালিয়ে থাকে৷ আর চীনের হাসপাতালগুলোতেও এগুলো সবসময়ই পাওয়া যায়৷

এপিবি / এসবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন