1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

চীনা বাজারে বাংলাদেশী পণ্য শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার পাচ্ছে

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রয়েছেন চীন সফরে৷ বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও চীনের প্রধানমন্ত্রী ওয়েন জিয়াবাওয়ের মধ্যে আনুষ্ঠানিক বৈঠক শেষে স্বাক্ষরিত হয়েছে তিনটি চুক্তি৷

default

চীনের প্রধানমন্ত্রী ওয়েন জিয়াবাওয়ের সঙ্গে আলোচনা করেছেন শেখ হাসিনা

চীন সফররত বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জানানো হয়েছে, চীন তার বাজারে বাংলাদেশী পণ্যের শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার দেবে এবং বৈশ্বিক উষ্ণায়নের ফলে সৃষ্ট বন্যা ও অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় সহায়তা বৃদ্ধি করবে৷

বৃহস্পতিবার চীনের রাজধানীতের গ্রেট হলের ইস্ট হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও চীনের প্রধানমন্ত্রী ওয়েন জিয়াবাওয়ের মধ্যে আনুষ্ঠানিক বৈঠকটি ছিল খুবই হৃদতাপূর্ণ৷ এই বৈঠকেই চীনা পক্ষ এ আশ্বাস দেয়৷

বৈঠকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী চীনের কাছে স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদী সহায়তা ও অনুদান এবং বাংলাদেশের কৃষি, বিদ্যুৎ ও অবকাঠামো খাতে সাতটি প্রকল্প বাস্তবায়নে বৈদেশিক উন্নয়ন সহযোগিতার ভিত্তিতে স্টেট-টু-স্টেট ঋণ অনুমোদন চেয়েছে৷

Bangladesch Sheik Hasina in Dhaka

হাসিনা পাঁচ দিনের সফরে চীনে রয়েছেন

জিয়াবাও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বলেছেন যে, 'বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আপনার দায়িত্ব গ্রহণ করার পর আর্থ-সামাজিক বিভিন্ন খাতে স্থিতিশীলতা ফিরে এসেছে৷'তিনি আশা প্রকাশ করেন, তার যোগ্য নেতৃত্বে ভবিষ্যতে গুরুত্বপূর্ণ এই খাতগুলোতে বাংলাদেশ আরো সাফল্য অর্জন করবে৷

বাংলাদেশের উন্নয়ন খাতে চীনের সহায়তার উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের অবকাঠামো, ব্যবসা-বাণিজ্য, কৃষি, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে চীনা সহযোগিতা দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে৷

প্রতিরক্ষা সহযোগিতার উল্লেখ করে শেখ হাসিনা দীর্ঘ মেয়াদী ঋণ সহায়তার অধীনে তিনটি হেলিকপ্টারসহ দুটি ফ্রিগেট প্রদান করতে চীনা সরকারকে অনুরোধ জানিয়েছেন৷

আঞ্চলিক সহযোগিতার ওপর গুরুত্ব আরোপ করে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এ অঞ্চলের বিভিন্ন দেশ বিশেষ করে চীন, ভারত ও মিয়ানমারের মধ্যেকার সম্পর্ক সার্বিক কল্যাণের লক্ষ্যে আরো জোরদার করতে হবে৷

তিনি বলেন, এ অঞ্চল থেকে সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদ নির্মূলে সমন্বিত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে৷

গ্রেট হলে বাংলাদেশ এবং চীনা প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক বৈঠকের পর বাংলাদেশের অর্থনৈতিক, কারিগরি, অবকাঠামো ও জ্বালানি খাতে সহযোগিতা আরো বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে তিনটি চুক্তি ও একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে৷

চুক্তিগুলো হচ্ছে- উল্লেখযোগ্য মঞ্জুরিসহ অর্থনৈতিক ও কারিগরি সহযোগিতা চুক্তি, শাহজালাল সার কারখানা নির্মাণ সংক্রান- কাঠামো চুক্তি ও সপ্তম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু নির্মাণ চুক্তি৷ এছাড়া তেল ও গ্যাস খাতে বাংলাদেশ-চীন সহযোগিতা সংক্রান্ত- সমঝোতা স্মারক৷

প্রতিবেদন: সাগর সরওয়ার

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

সংশ্লিষ্ট বিষয়