1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

চালকদের অতিরিক্ত মদপান আয়ারল্যান্ডে আর নয়

গাড়িচালকদের মদপানের মাত্রা পুরো ইউরোপজুড়ে কম৷ এরমধ্যে আয়ারল্যান্ডে একটু বেশি ছিলো৷ তবে এখন তারাও তা কমাচ্ছে৷ নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারীরা সরকারের এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে৷

default

মদপান করে গাড়ি চালানো বয়ে আনে দুর্ঘটনা

প্রচুর ম্যদপান করে আয়ারল্যান্ডে গাড়ি চালানোর দিন ফুরোলো৷ সে দেশের সরকার সম্প্রতি পার্লামেন্টে একটি বিল এনেছে, যাতে গাড়ি চালানোর সময় মদপানের মাত্রা কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে৷ রক্তের প্রতি ১০০ মিলিলিটারে ৮০ মিলিগ্রাম অ্যালকোহাল থাকলেও সেখানে গাড়ি চালানো যেত৷ তবে নতুন আইনে তা কমিয়ে ৫০ মিলিগ্রাম করা হবে৷ যার মানে হলো, এক গ্লাস মদ কিংবা এক পাইন্ট বিয়ার পানেই মাত্রা ছাড়িয়ে যাবে৷ তখন গাড়ি চালিয়ে ধরা পড়লে অপেক্ষা করবে শাস্তি৷

নিরাপদ সড়কের জন্য যারা আন্দোলন করছেন, তারা প্রস্তাবিত এই আইনকে স্বাগত জানিয়েছেন৷ এদেরই একজন কনর ফঘনান বললেন, এর মধ্য দিয়ে আয়ারল্যান্ডও ইউরোপের অধিকাংশ দেশের পর্যায়ে এলো৷ তিনি ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আগে রক্তে অ্যালকোহলের মাত্রা ৮০ মিলিগ্রাম হলেও গাড়ি চালানো যেত৷ এত বেশি সুবিধা মনে হয় ইউরোপে শুধু ব্রিটেন আর মাল্টায়ই আছে৷ অন্য সব দেশে এই মাত্রা ৫০ কিংবা তারও কম৷ নতুন আইন আমাদের ইউরোপের অন্য দেশগুলোর পর্যায়ে এনে দেবে৷ আমি মনে করি, বর্তমানে সড়ক যে অনিরাপদ, তা এর মধ্য দিয়ে স্বীকার করে নেওয়া হলো৷ এখন সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু কমে আসবে৷''

অধিকাংশ আইরিশ নতুন আইনকে স্বাগত জানাবে বলে ফগনানের ধারণা৷ আইনভঙ্গকারীদের জন্য ২০০ ইউরো জরিমানার বিধান প্রস্তাব করা হয়েছে৷ আর ছয় মাসের জন্য গাড়ি চালানো নিষিদ্ধ৷ পরিবহণমন্ত্রী নোয়েল ডেমসে অবশ্য আরো কঠোর আইনের পক্ষপাতি৷ তিনি বলেন, প্রথমবার ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও একই অপরাধ আবারো করলে ড্রাইভিং লাইসেন্স বাতিল করা হবে৷ তবে ভবিষ্যতে আইনটি সংস্কারের সুযোগ থাকছে বলে মন্ত্রী জানান৷

18.07.2006 projekt zukunft fragezeichen

এই ছবিটিকেই খুঁজছেন আপনি৷ ছবিটির তারিখ 08/07 এবং কোড:3339 পাঠিয়ে দিন bengali@dw-world.de ঠিকানায় অথবা এসএমএস করুন 0088 0173 030 2205, ভারত: 0091 98309 97232 নম্বরে৷ এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে জিততে পারেন আকর্ষণীয় সারপ্রাইজ গিফট …

বিভিন্ন তরফে প্রশংসা করা হলেও প্রস্তাবিত আইনের সমালোচনায় মুখর হয়েছে পাব মালিকরা৷ ভিন্টনরস ফেডারেশন অফ আয়ারল্যান্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা প্যাডরিগ ক্রিবেন ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘এর কোনো প্রয়োজন ছিলো না৷ আমরা মনে করি না, এতে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর সংখ্যা কমবে৷ বলা হয়, দ্রুত গতিতে গাড়ি চালানোর জন্য অধিকাংশ দুর্ঘটনা ঘটে৷ কিন্তু রাস্তায় গতি পর্যবেক্ষণকারী ক্যামেরা বসানোর বিষয়ে সরকারের কোনো তাগিদ আমরা দেখছি না৷''

তবে পাব মালিকদের এই সমালোচনা মেনে নিতে নারাজ সড়ক কর্তৃপক্ষ৷ তাদের বক্তব্য, এক-তৃতীয়াংশ দুর্ঘটনার কারণ মাতাল হয়ে গাড়ি চালানো৷ রোড সেফটি অথরিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নোয়েল ব্রেট বলেন, ‘‘দুর্ঘটনা কমিয়ে আনতে আমরা বদ্ধপরিকর৷ ইউরোপে অন্য দেশগুলো যে ধরনের পদ্ধতি অনুসরণ করে৷ আমরাও সে দিকে এগোচ্ছি৷ বিভিন্ন স্থানে গাড়িচালকদের অ্যালকোহলের মাত্রা পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে৷''

ইউরোপের মধ্যে সুইডেন, নেদারল্যান্ডস আর যুক্তরাজ্যের সড়কগুলোকে তুলনামূলকভাবে নিরাপদ ধরা হয়৷ তবে আয়ারল্যান্ড এই ক্ষেত্রে বেশ উন্নতি করেছে৷ ইউরোপিয়ান টান্সপোর্ট সেফটি কাউন্সিলের পরিসংখ্যান বলছে, গত আট বছরে সেখানে সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যা ৪১ শতাংশ কমেছে৷ নতুন আইন করে এখন আরো উন্নতি করতে চায় এই দেশটি৷

প্রতিবেদন: মনিরুল ইসলাম

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক