1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

আলাপ

চাকরি না খুঁজে উল্টো দিতেও পারেন

ইদানীং বাংলাদেশে একটা প্রচারণা নিয়ে বেশ আলোচনা শোনা যায়৷ ‘চাকরি খুঁজব না, চাকরি দেব’ শীর্ষক এই প্রচারণায় অনেকেই অনুপ্রাণিত৷ নতুন সম্ভাবনার ইঙ্গিতও এই প্রচারণা৷ কিন্তু চাকরি না খুঁজে উল্টো দেয়া কি সহজ?

প্রশ্নের উত্তর হচ্ছে, না, যতটা সহজ শোনায় ব্যাপারটা ততটা সহজ নয়৷ তবে, খুব কঠিনও নয়৷ ইন্টারনেটের প্রসারের সঙ্গে সঙ্গে অনেক কিছুই এখন সাধারণ মানুষের হাতের নাগালে চলে এসেছে, হয়ে গেছে আগের চেয়ে সহজ৷ সেই সহজ দুনিয়া থেকে পয়সা আছে সহজ কিছু উপায় বাতলে দিচ্ছি৷

সোশ্যাল মিডিয়া এবং ইউটিউব

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম অর্থ আয়ের এক বড় উপায়৷ বিশেষ করে ইউটিউব৷ রান্না শেখানো থেকে শুরু করে বিভিন্ন সমস্যার সহজ সমাধান কিংবা ছোট নাটক তৈরি অথবা গেম খেলা – ইউটিউব থেকে পয়সা আয় খুব বেশি কঠিন নয়৷ এর কারণ বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভিডিও শেয়ারিং সাইটটি, যারা কন্টেন্ট তৈরি করেন, তাদের সঙ্গে আয়ের একটা অংশ শেয়ার করে৷ ইতোমধ্যে বাংলাদেশের কয়েকজন তরুণ এই পথে গিয়ে ভালো করছেন৷ চাইলে আপনিও ইউটিউব-স্টার হবার চেষ্টা করতে পারেন৷ এ জন্য দরকার ক্রিয়েটিভ কিছু আইডিয়া, ভিডিও করার উপকরণ এবং অবশ্যই ইন্টারনেট ও কম্পিউটার ব্যবহারে দক্ষতা৷

ফেসবুক বা টুইটার অবশ্য কন্টেন্ট যারা তৈরি করেন তাদের এখনো সরাসরি কোনো টাকা-পয়সা দেয় না৷ তবে এক্ষেত্রে অর্থ উপার্জনের উপায় একটু ভিন্ন হতে পারে৷ আপনি চাইলে কোনো ব্র্যান্ডের ফেসবুক বা টুইটার অ্যাকাউন্ট ‘ম্যানেজ' করতে পারেন৷ মূল কাজ হবে সামাজিক যোগাযোগ ব্যবহার করে সেই পণ্যের প্রসার বাড়ানো৷ এ জন্য পণ্য ব্যবহারকারীর সঙ্গে একটা ভালো সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে ফেসবুক বা টুইটারে৷ এই কাজে প্রযুক্তি জ্ঞানের পাশাপাশি ভাষার দক্ষতাও থাকতে হবে৷ বিশেষ করে ভালো ইংরেজি জানা থাকলে কাজের পরিধি অনেক বাড়বে৷

কাজ করুন ঘরে বসে

আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে অর্থ আয়ের দিক থেকেও খুব বেশি পিছিয়ে নেই বাংলাদেশের ‘ইন্টারনেট প্রজন্ম'৷ এক্ষেত্রে সহায়তা করছে ফ্রিল্যান্সার বা মুক্তপেশাজীবীদের কাজ দেয় এমন কিছু ওয়েবসাইট৷ এ সব সাইটে গিয়ে নিবন্ধনের পর নিজের যোগ্যতাগুলো সেখানে দিয়ে দিতে হবে৷ এরপর আপনি যা জানেন, সেটা হতে পারে ওয়েব ডিজাইনিং, গ্রাফিক ডিজাইনিং কিংবা লেখালেখি – সেই কাজ পেলে করুন৷ প্রথমদিকে একটু সস্তায় করে দিতে পারেন৷ তবে কাজ ভালো করলে এ সব সাইটে রেটিংয়ে আপনার অবস্থা ভালো হবে৷ আর রেটিং যত ভালো, পরিবর্তীতে কাজ পাওয়া ততই সহজ৷ একসময় চাইলে নিজে ছোটখাট একটা কোম্পানি গড়ে অন্যদেরও কাজ, অর্থাৎ চাকরি দিতে পারবেন৷

গুগল থেকে অর্থ আয়

বিষয়ভিত্তিক ওয়েবসাইট থেকে অর্থ আয়ের ক্ষেত্রে এক বড় উৎস হচ্ছে গুগল অ্যাডসেন্স৷ আপনার ওয়েবসাইটটি যদি জনপ্রিয়তা অর্জনে সক্ষম হয় এবং গুগলের নিয়মকানুন মেনে পরিচালনা করা হয়, তাহলে গুগল অ্যাডসেন্সের বিজ্ঞাপন পেতে পারেন৷ তবে সমস্যা হচ্ছে, এখন পর্যন্ত বাংলা ভাষা গুগলের এই সেবায় অন্তর্ভূক্ত হয়নি, যদিও কয়েকটি বাংলা ভাষার ওয়েবসাইটে গুগল অ্যাডসেন্সের বিজ্ঞাপন প্রদর্শিত হচ্ছে, সম্ভবত বিশেষ উপায়ে কিংবা পরীক্ষামূলকভাবে৷

DW Bengali Arafatul Islam

আরাফাতুল ইসলাম, ডয়চে ভেলে

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিষয়ভিত্তিক ব্লগাররা গুগল অ্যাডসেন্স থেকে ভালো অর্থ উপার্জন করেন, যা তাদের জন্য জীবিকা নির্বাহের প্রধান উৎস৷

এখানে লেখা প্রয়োজন, ইন্টারনেটে অর্থ আয় সহজ হলেও এখনো বেশ কিছু বাধা রয়ে গেছে৷ বিশেষ করে বাংলাদেশে ‘পেপ্যাল' সেবা এখনো চালু হয়নি৷ ইন্টারনেটে উপার্জিত অর্থ সহজে দেশের অ্যাকাউন্টে জমা করা যাচ্ছে না বলে মাঝে মাঝে মুক্ত পেশাজীবীরা অভিযোগ করেন৷ আর সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে, উচ্চগতির ইন্টারনেট এখনো সব জায়গায় সহজলভ্য হয়নি৷ এ সব অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং বিভিন্ন বিষয়ে মানসম্পন্ন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা গেলে বাংলাদেশে বসে থেকে অর্থ আয় করে বেকারত্ব ঘুচাতে পারবেন আরো অনেকে৷

আপনার কি কিছু বলার আছে? লিখুন নীচের মন্তব্যের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়