1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

চাই ডিএনএ, কবর খুঁড়ে তোলা হল ফিশারের মৃতদেহ

কিংবদন্তি মার্কিন দাবাড়ু ববি ফিশারের মৃতদেহ কবর থেকে খুঁড়ে তোলা হল৷ নির্দেশ দিয়েছিল আদালত৷ কারণ, ফিশারের উত্তরাধিকার আর সম্পত্তি নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় এখন দরকার তাঁর ডিএনএ৷

default

জীবদ্দশায় ববি ফিশার৷ এক চ্যাম্পিয়নশিপে খেলা চলার মুহূর্তে(ফাইল ছবি)

ববি ফিশার৷ কিংবদন্তি সেই মার্কিন দাবাড়ু৷ সাতের দশকে যিনি দাবায় বিশ্বজয় করেছিলেন প্রায় হেলায়৷ জীবনের শেষদিকটায় বসবাস করতেন আইসল্যান্ডে৷ জন্মসূত্রে মার্কিন হলেও ফিশার আইসল্যান্ডের নাগরিকত্ব গ্রহণ করেছিলেন৷ ২০০৮ সালের জানুয়ারি মাসে ফিশারের মৃত্যু হয় ৬৫ বছর বয়সে৷ দাবা চ্যাম্পিয়ন ফিশারের সম্পত্তির মোট পরিমাণ প্রায় দুই বিলিয়ন ডলার৷ তাঁর মৃত্যুর পর থেকে শুরু হয়েছে ফিশারের সম্পত্তি নিয়ে বখেরা৷

সম্প্রতি নয় বছরের এক বালিকা জিঙ্কি ইয়ং-এর মা মারিলিন নামের এক যুবতী ফিশারের সম্পত্তির উত্তরাধিকার বলে নিজের কন্যাকে দাবি করে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন৷ মারিলিন নামের ওই যুবতীর সঙ্গে প্রণয় ছিল ফিশারের৷ মারিলিনের দাবি, ছোট্ট জিঙ্কি ফিশারেরই কন্যা৷ সুতরাং, ফিশারের সম্পত্তি সন্তান হিসেবে জিঙ্কিরই প্রাপ্য৷ মারিলিন আর জিঙ্কির এই দাবির ভিত্তিতেই আইসল্যান্ডের রাজধানী রেইকঝাভিকের সুপ্রিম কোর্ট ফিশারের কবর খুঁড়ে তাঁর দেহাবশেষে থেকে ডিএনএ সংগ্রহ করতে নির্দেশ দেয় জুন মাসের শেষদিকে৷ তারপরেই সোমবার এই কবর খোঁড়ার সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হল৷

ফিশারের সম্পত্তি নিয়ে সমস্যার কিন্তু এখানেই শেষ নয়৷ ফিশারের প্রাক্তন স্ত্রী এবং কয়েকজন আত্মীয়ও তাঁর সম্পত্তির উত্তরাধিকার পেতে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তাঁর মৃত্যুর পরেই৷ আপাতত ডিএনএ পরীক্ষার পর যদি জানা যায় ছোট্ট জিঙ্কির পিতা ছিলেন ফিশার, সেক্ষেত্রে যদিও জিঙ্কির দাবিই হবে সবচেয়ে বেশি৷

এখন এই পরীক্ষার ফলাফলের ওপরেই অনেক কিছু নির্ভর করছে৷ রেইকঝাভিক শহরের শেরিফ ওলাফুর হেলগি জারটানসন জানিয়েছেন, ডিএনএ পরীক্ষার প্রয়োজনে কবর থেকে ফিশারের দেহাবশেষ তোলা হয়েছে পুরোপুরি পেশাদারী দক্ষতায় এবং পূর্ণ সম্মানের সঙ্গে৷

দাবা বিশ্বের এক বিস্ময় ছিলেন ববি ফিশার৷ এই সম্মানটুকু তো অবশ্যই তাঁর প্রাপ্য৷

প্রতিবেদন: সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা : সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়