1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

চলতি বছরে উন্নয়ন সাহায্য সম্পর্কে আশাবাদী নয় ওইসিডি

বড় বড় দাতাদেশ এ’বছর তাদের উন্নয়ন সাহায্যের প্রতিশ্রুতি রাখতে পারবে না, বলছে অর্থনৈতিক সহযোগিতা এবং উন্নয়ন সংগঠন ওইসিডি৷

default

জার্মানি এবং ফ্রান্সের মতো দেশও ২০০৪ সালে জি-এইট বৈঠকে ঘোষিত লক্ষ্যমাত্রা বজায় রাখতে ব্যর্থ হবে৷

জার্মান অর্থনৈতিক সহযোগিতা এবং উন্নয়ন মন্ত্রী ডিয়ার্ক নিবেল কিন্তু বলেছেন: ‘‘নতুন জার্মান সরকার তাঁদের আন্তর্জাতিক দায়দায়িত্ব ঠিকই পালন করবেন৷ এবং জোট সরকারের চুক্তিতেই রয়েছে যে, ২০১৫ সালের মধ্যে দেশের জিডিপি'র ০.৭ শতাংশ উন্নয়ন সাহায্য হিসেবে প্রদান করা হবে৷'' এর পটভূমিতে রয়েছে তথাকথিত মিলেনিয়াম উন্নয়ন লক্ষ্যাবলী অর্থাৎ ২০০০ সালে রাষ্ট্র- তথা সরকারপ্রধানেরা জাতিসংঘের কাছে যে আটটি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন৷ তার মধ্যে ছিল বিশ্বব্যাপী দারিদ্র্য এবং ক্ষুধিত মানুষদের সংখ্যা কমিয়ে অর্ধেক করা; সব শিশুর জন্য প্রাথমিক শিক্ষা; শিশু এবং প্রসূতি মৃত্যুর হার লক্ষণীয়ভাবে কমানো; এবং উত্তর ও দক্ষিণ গোলার্ধের এমন একটি উন্নয়ন সহযোগিতা, যার দু'টি অংশ হবে দক্ষিণে সরকারবর্গের দায়িত্বশীল শাসন এবং উত্তর থেকে নিয়মিত এবং আস্থাভরা আর্থিক সাহায্য৷ - কিন্তু এ' সব

Entwicklungshilfeminister Dirk Niebel (FDP)

জার্মান উন্নয়ন মন্ত্রী ডিয়ার্ক নিবেল বলেছেন তাঁর সরকার আন্তর্জাতিক দায়দায়িত্ব ঠিকই পালন করবে

প্রতিশ্রুতিই চলতি আর্থিক সঙ্কটের আগে দেওয়া হয়৷

সাধ্যাসাধ্য

বস্তুত জিডিপি'র ০.৭ শতাংশ উন্নয়ন সাহায্য হিসেবে প্রদানের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল ৪০ বছর আগে৷ কিন্তু সে'যাবৎ শুধুমাত্র লুক্সেমবুর্গ, নেদারল্যান্ডস এবং স্ক্যান্ডিনেভীয় দেশগুলির মতো কিছু দেশ এই প্রতিশ্রুতি সত্যিই পালন করতে পেরেছে৷ জার্মানি তাদের মধ্যে পড়ে না৷ চ্যান্সেলর হেলমুট কোলের আমলে সরকারি জার্মান উন্নয়ন সাহায্যের অনুপাত কমে দাঁড়ায় জিডিপি'র ০.২৬ শতাংশে৷ তারপরে লাল-সবুজ এবং ‘বৃহৎ জোটের' সরকার সেটিকে টেনে তোলেন ০.৪ শতাংশে৷ কিন্তু আদতে যে ২০১০ সালের মধ্যে ০.৫১ শতাংশে পৌঁছনোর কথা ছিল, তা অলীকই থেকে গেছে৷ এখন জার্মান উন্নয়ন মন্ত্রী অন্তত আফগানিস্তানের কল্যাণে উন্নয়ন সাহায্য বাজেট কিছুটা বাড়ার আশা দেখছেন - অর্থাৎ আরো ১৮৭ মিলিয়ন ইউরো৷ কিন্তু অর্থমন্ত্রীর কাছে এক ধাক্কায় গোটা সাড়ে তিন বিলিয়ন ইউরো চেয়ে বসাটা যে অবাস্তব হবে, নিবেল সেটা ভালো করেই জানেন৷

তবে জার্মান সরকারের হাতে একটি পন্থা এখনও খোলা আছে: সেটি হল, দরিদ্রতম দেশগুলিকে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব সামলে ওঠার জন্য জার্মানি যে অর্থ প্রদান করছে, তাকে উন্নয়ন সাহায্য হিসেবে ঘোষণা করা৷ অথচ আদতে এই অর্থ কিন্তু আলাদা করে বরাদ্দ করার কথা ছিল৷ অবশ্য তখন আর্থিক সঙ্কটের অশনি সঙ্কেত বিশ্বকে সচকিত করেনি৷

প্রতিবেদক: জুলি রাইমের/অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: আবদুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়