1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

চলচ্চিত্র নির্মাতা শিবলী সাদিকের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

আজ বাংলাদেশের বরেণ্য চলচ্চিত্র নির্মাতা শিবলী সাদিকের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী৷ ২০১০ সালের ৭ জানুয়ারি নিজের প্রিয় চলচ্চিত্রাঙ্গন থেকে চিরবিদায় নেন তিনি৷ এ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতিতে দোয়া অনুষ্ঠান আজ৷

Bangladesh, film, Venice, Festival, চলচ্চিত্র, নির্মাতা, শিবলী, সাদিক, প্রথম, মৃত্যুবার্ষিকী,

বাংলাদেশের তরুণ চলচ্চিত্র নির্মাতাদের পথ প্রদর্শক হয়ে রয়েছেন শিবলী সাদিক

১৯৮০ এবং ৯০'এর দশকে চলচ্চিত্র জগতে তাঁর পদচারণা সবচেয়ে বেশি৷ 'শীত বসন্ত', 'নোলক', 'জীবন নিয়ে জুয়া', 'রেশমী চুড়ি', 'তিনকন্যা', 'অঙ্গীকার', 'দোলনা', 'হীরামন', 'ভেজা চোখ', 'নীতিবান', 'অচেনা', 'পাহারাদার', 'অনুতপ্ত', 'অন্তরে অন্তরে', 'মায়ের অধিকার', 'ভেজা চোখ', 'মা, মাটি দেশ', 'খুনী আসামী', 'বদসুরত', 'দংশন' সহ বহু দর্শকনন্দিত ছবির তিনি ছিলেন পরিচালক৷

১৯৪১ সালের ৯ জানুয়ারি পদ্মা বিধৌত রাজশাহীতে জন্ম এই বরেণ্য চলচ্চিত্র নির্মাতার৷ চারুকলার ছাত্র থাকলেও ছবির প্রতি তাঁর নেশার কারণেই শেষ পর্যন্ত লেখাপড়া সম্পন্ন না করেই কাজে নেমে যান তিনি৷ 'বসতবাড়ি' ছবি দিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণে অভিষেক ছিল শিবলী সাদিকের৷ তাঁর প্রথম ফিচার ফিল্ম 'বালা'৷ সৈয়দ আওয়াল এবং তিনি যৌথভাবে এই ছবিটি নির্মাণ করেছিলেন৷

দীর্ঘ কর্মজীবনে তিনি বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংস্থার সাথে কাজ করেছেন৷ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির মহাসচিব এবং সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন৷ বাংলাদেশ ফিল্ম সেন্সর বোর্ডেরও সদস্য ছিলেন এই মহান ব্যক্তিত্ব৷

বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্পের ভবিষ্যৎ আরো মজবুত করতেই তরুণ নির্মাতাদের বেশি করে উৎসাহ দিতেন সাদিক৷ তাই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান 'কুটির-এ-চলচ্চিত্র' এর সভাপতি হিসেবে সক্রিয়ভাবে কাজ করেছেন৷ মহান মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস নির্মাণে ছবি করার কাজে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছেন শিবলী সাদিক৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সংশ্লিষ্ট বিষয়