1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

চরম উত্তেজনার মাঝেই দক্ষিণ কোরিয়া সফরে পেন্স

উত্তর কোরিয়ার সর্বাধুনিক রকেট পরীক্ষার পরের দিন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স দক্ষিণ কোরিয়ায় একটি মার্কিন সামরিক ঘাঁটি পরিদর্শন করেছেন৷ ঘাঁটিটি উত্তর কোরিয়ার সীমান্ত থেকে মাত্র কয়েকশ' মিটার দূরে৷

গত জানুয়ারি মাসে উপরাষ্ট্রপ্রধানের দায়িত্ব গ্রহণ করার পর পেন্স এই প্রথম কোরিয়া উপদ্বীপে পদার্পণ করলেন৷ জাতিসংঘের মার্কিন নেতৃত্বাধীন কমান্ড পোস্ট ক্যাম্প বোনিফাস-এ আসাটা তাঁর আবেগকেও কিছুটা নাড়া দিয়েছে, কেননা তাঁর বাবা কোরিয়া যুদ্ধের সময় সামরিক সেবায় নিযুক্ত ছিলেন৷

দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের বিষয়ে পেন্স বলেন, ‘‘কোরিয়ায় মার্কিন সেনাবাহিনী এবং কোরিয়া প্রজাতন্ত্রের সেনাবাহিনীর মধ্যে মৈত্রী ঐতিহাসিক'' এবং ‘‘আমাদের দুই (দেশের) জনগণের মধ্যে অটল বন্ধনের সাক্ষী৷''

‘‘(দক্ষিণ কোরিয়ার) জনগণের জন্য দেশের স্থায়িত্ব নিশ্চিত করা এবং (অপরাপর) লক্ষ্য অর্জনের জন্য সব সম্ভাব্য পন্থাই বিবেচনা করা হচ্ছে,'' বলেন পেন্স৷ উত্তর কেরিয়া সম্পর্কে তাঁর মন্তব্য: ‘‘রণকৌশলগত ধৈর্য্যের যুগ শেষ হয়েছে৷''

মার্কিন সৈন্যদের সমীপে পেন্স উত্তর কোরিয়ার সর্বশেষ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষাকে একটি ‘প্ররোচনা' বলে অভিহিত করেন৷ তাঁর দৃষ্টিতে ‘‘প্রত্যেক মার্কিন সৈন্য দক্ষিণ কোরিয়ার জনগণের স্বাধীনতা ও অ্যামেরিকার প্রতিরক্ষার জন্য বিশ্বের এই অংশে প্রতিদিন যেসব ঝুঁকির সম্মুখীন হচ্ছে'', এই প্ররোচনা তার সর্বাধুনিক স্মারক বলে মনে করেন পেন্স৷

সোমবার পেন্স দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট হোয়াং কিও-আন-এর সঙ্গে ডিমিলিটারাইজড জোন, অর্থাৎ উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার সীমান্তের সবচেয়ে উত্তেজনাপূর্ণ এলাকা পরিদর্শন করছেন৷ প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে তাঁর ১০ দিনের সফরে পেন্স এরপর যাবেন জাপান, ইন্দোনেশিয়া ও অস্ট্রেলিয়ায়৷

ওদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এইচ আর ম্যাকমাস্টার রবিবার বলেছেন, ‘‘আমার মতে এখন একটি আন্তর্জাতিক সমঝোতা সৃষ্টি হয়েছে – চীনও যার অঙ্গ – যে এটা এমন একটা পরিস্থিতি, যা কোনোমতেই চলতে পারে না৷''

এসি/এসিবি (এএফপি, এপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়