1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

ঘুরে ফিরে বারবারই মনে পড়ে ছেলেবেলার কথা

ছেলেবেলার পছন্দের গান, কমিক্স চরিত্র বা জনপ্রিয় ব্যান্ডের নাম কার মনে নেই ? যদি হঠাৎ করে একদিন দেখা যায় পুরনো দিনের স্মৃতিমাখা প্রতিটি গান, ম্যাগাজিন, ছবি পেপার-কাটিং পাওয়া যাচ্ছে – তাহলে কেমন লাগবে?

default

অনেক ছোট বেলার আনন্দের স্মৃতি বিজড়িত সেই দিনগুলোকে আমরা কেউই ভুলে যাই না৷ ঘুরে ফিরে বারবারই আমাদের তা মনে পড়ে৷ আমরা ফিরে যাই সোনালী সেই দিনগুলোতে৷ ফিরে পেতে চাই হারিয়ে যাওয়া সেই দিনগুলিকে৷

এ ধরণের কাজেই নিজেকে নিয়োজিত করেছেন ৫২ বছর বয়স্ক নবার্লিন নাগরিক ক্লাউস ফারিন৷ বার্লিনে প্রথমবারের মত তরুণ প্রজন্মের জন্য আর্কাইভ তৈরি করেছেন ফারিন৷ কী আছে সেই আর্কাইভে? পঞ্চাশের দশকের এলপি, ম্যাগাজিন, নিউজপেপার কাটিং, স্টিকার, পিনআপ বাটন– সবকিছুই৷ অনায়াসেই মুহূর্তের মধ্যে যে কোন প্রবীণ জার্মান হারিয়ে যেতে পারবেন তাঁর দুরন্ত শৈশব এবং ছেলেবেলায়৷

ক্লাউস ফারিনের হাতে ‘ব্রাভো' ম্যাগাজিনের একটি কপি৷ প্রচ্ছদটি সাদা কালো৷ সেই সময় জার্মানির তরুণ প্রজন্মের জন্য একটি ম্যাগাজিনই বাজারে আসতো, ‘ব্রাভো'৷ সাল ১৯৫৬৷ বার্লিনের ক্রয়েৎসব্যার্গের এই আর্কাইভের কাজ ফারিন শুরু করেন ১৯৯৮ সাল থেকে৷ ফারিন জানান, ‘‘সত্যি কথা বলতে আমি কখনো ‘ব্রাভো' পড়িনি৷ কারণ মেয়েরাই তা নিয়ে মেতে থাকতো বেশি৷ ছেলেরা তাই ‘ব্রাভো'র ধারে কাছে যেত না৷''

ব্রাভোর পাশের তাকগুলোতে আরো অনেক ধরণের ম্যাগাজিন, পত্রিকা, এলপি, সিডি রাখা৷ এছাড়া রয়েছে পুরনো এবং জনপ্রিয় তারকা আর শ্লোগান খচিত টি-শার্ট, পিনআপ-বাটন, স্টিকার, ফ্লাইয়ার৷ এসব ফারিন আর কিছু সহকর্মী আর্কাইভের জন্য যোগাড় করেছেন৷ সবমিলে প্রায় ৩০ হাজারের মত ম্যাগাজিন আর পত্রিকা সংগ্রহ করা হয়েছে৷

ফারিনের বয়স যখন ১৪ তখন তিনি নিজেই স্কুলের জন্য একটি স্কুল-পত্রিকা বের করতেন৷ সংগ্রহে এ ধরণের স্কুল পত্রিকা রয়েছে প্রায় ৮ হাজার৷ একটু বড় হওয়ার পর ঝোঁক চল যায় অন্যদিকে৷ ফারিন জানান, ‘‘আমার বয়স যখন ১৭ তখনই আমি যুব সংস্কৃতির ব্যাপারে আগ্রহী হয়ে পড়ি৷ পরে এই বিষয়টির ওপর বহু তত্ত্বতালাশ করেছি, সংগ্রহ করেছি অনেক কিছু৷ এই কাজগুলো করতে গিয়ে লক্ষ্য করেছি যে এ সম্পর্কে তথ্য পাওয়ার কোন জায়গা নেই৷ যদিও চাহিদাটা রয়ে গেছে৷ তখন ভাবলাম কাজটা আমি নিজেই করব৷ এভাবেই আমি শুরু করে দেই আর্কাইভের কাজ৷''

তবে এই আর্কাইভ টিকিয়ে রাখতে প্রয়োজন অর্থের৷ ফারিনের প্রয়োজন ৩৫ হাজার ইউরো৷ কারণ আর্কাইভের সংগ্রহে প্রতিদিনই কিছু না কিছু আসছে৷ সবকিছুই রক্ষা করতে হবে৷ স্মৃতিকে ধরে রাখতে হবে৷ তবে ক্লাউস ফারিন দমে যাচ্ছেন না কারণ স্মৃতি কখনোই বিস্মৃতি হয় না৷

প্রতিবেদন: মারিনা জোয়ারদার

সম্পাদনা: আবদুল্লাহ আল-ফারূক