1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ঘানায় ব্যাঙ বাঁচানোর অনন্য এক উদ্যোগ

ঘানায় একটা-দুটো নয়, পুরো ৮০টি প্রজাতির ব্যাঙ রয়েছে৷ পরিবেশবিদদের আশঙ্কা, উভচর এই প্রাণীরা ধীরে ধীরে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে৷ কিন্তু একজন মানুষ তাদের বাঁচাতে আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন৷

ব্যাঙের ‘ঘ্যাঙর ঘ্যাঙ' আপনার মনে বিরক্তির উদ্রেক করতে পারে, কিন্তু মানুষের জীবনে এদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে৷ ব্যাঙ বড় বড় পোকামাকড় খেয়ে ফেলে, বিশেষ করে ম্যালেরিয়ার বিস্তার ঘটায় এমন মশাও খেয়ে ফেলে৷ অন্যান্য রোগ ছড়ায় এমন পোকামাকড়ও তাদের প্রধান খাদ্য৷ কিন্তু ঘানার বেশিরভাগ মানুষই এই ব্যাঙদের ভূমিকাটা উপলব্ধি করতে পারে না৷ তারা বুঝতেই পারে না, তাদের কিছু আচরণ ব্যাঙের জীবন হুমকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে৷

তাই ব্যাঙ রক্ষায় এগিয়ে এসেছেন গিলবার্ট অ্যাডাম৷ ৪০ বছর বয়সি এই ব্যক্তি বললেন, ‘‘ব্যাঙ ও উভচর প্রাণীদের সংখ্যা ক্রমশ কমছে৷ তাদের ৪৩ ভাগ এখন বিলুপ্তির পথে এবং আগামী এক শতকেই হয়ত তারা বিলুপ্ত হয়ে যাবে৷''

গিলবার্ট এবং তার সহযোগীরা প্রধানত তিনটি বিশেষ প্রজাতি নিয়ে কাজ করছেন, যেগুলো ঘানা থেকে খুব শিগগিরই বিলুপ্ত হয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে৷ স্থানীয় অরণ্যে তারা এ ধরনের ব্যাঙ খুঁজে বেড়ান৷ অ্যাডাম জানালেন, ‘‘আমরা যখন এই প্রজাতির ব্যাঙ খুঁজে পাই, তখন তাদের বাস্তুসংস্থান সংক্রান্ত প্রয়োজনটা বুঝতে চেষ্টা করি৷

যখন আমরা এটা বুঝে যাই, তখন স্থানীয় মানুষদের সঙ্গে আলোচনা করে তাদের বুঝাই যে এ ধরনের ব্যাঙগুলোকে রক্ষা করতে হবে৷''

অ্যাডাম আরো জানালেন, ‘‘আমরা অনেক চেষ্টা করে যাচ্ছি স্থানীয় মানুষ যাতে ব্যাঙদের গুরুত্বটা বোঝে, কিন্তু সেটার জন্য আমাদের অনেক কাঠ খড় পোড়াতে হচ্ছে৷ আর একটা সমস্যা হলো, ফান্ড বা তহবিলের অভাব৷ ঘানায় ৮০ প্রজাতির ব্যাঙ রয়েছে৷ আমরা এখন তিনটি প্রজাতি রক্ষায় কাজ করছি, কিন্তু তহবিলের অভাবে কাজটা ঠিকমতো এগোচ্ছে না৷''

এই ব্যাঙদের রক্ষায় প্রথমেই স্থানীয়দের শিক্ষার প্রতি জোর দিলেন অ্যাডাম৷ বললেন, ‘‘আমি শিশুদের এ বিষয়ে শিক্ষিত করে তুলতে চাই৷ তারা প্রকৃত শিক্ষা পেলে ভবিষ্যতে আমাদের দায়িত্বটা তাদের কাধে তুলে দেয়া যাবে৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়