1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ঘড়ি বানিয়ে বিপদ, ডাক দিলেন ওবামা

১৪ বছরের কিশোর৷ নিজেই একটি ঘড়ি তৈরি করে শিক্ষকের প্রশংসার আশা করেছিল৷ কিন্তু ঘড়িকে বোমা ভেবে বিভ্রান্তি ছড়ালেন তিনি৷ আহমেদ মোহামেদ রাতারাতি বিখ্যাত৷ ডাক এসেছে হোয়াইট হাউস, গুগল, ফেসবুক থেকে৷

নাম আহমেদ মোহামেদ৷ বাসস্থান টেক্সাস, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ তাই মুসলিম হিসেবে বৈষম্যের অভিযোগ আরও প্রকট হয়ে উঠছে৷ অনেকে বলছেন শ্বেতাঙ্গ খ্রিষ্টান হলে সে ঘড়ি বানিয়ে বাহবা পেত৷ কিন্তু সব ভালো যার শেষ ভালো৷ ঘটনাটি আহমেদকে রাতারাতি বিশ্ববিখ্যাত করে তুলেছে৷ #IStandWithAhmed হ্যাশট্যাগ টুইটারে ছড়িয়ে পড়ছে৷ স্বয়ং মার্কিন প্রেসিডেন্ট নড়েচড়ে বসেছেন৷ তিনি আহমেদকে হোয়াইট হাউসে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন৷

আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট দলের প্রার্থিতার লড়াইয়ের ফাঁকে আহমেদকে উৎসাহ যুগিয়েছেন হিলারি ক্লিন্টন৷

গুগল আগামী সপ্তাহান্তে তাদের বিজ্ঞান মেলায় আহমেদকে ঘড়িসহ আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছে৷

ফেসবুকও পিছিয়ে নেই৷ স্বয়ং মার্ক সাকারবার্গ তাঁর ফেসবুক পাতায় আহমেদকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন৷

ভারতের জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যের রাজনৈতিক নেতা ওমর আব্দুল্লাহ প্রেসিডেন্ট ওবামার পদক্ষেপের প্রশংসা করেছেন৷

আহমেদ মোহামেদের ঘটনা সাধারণ টুইটার ব্যবহারকারীদের মধ্যেও তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে৷

এমন বৈষম্যের ঘটনা মোটেই বিরল নয়৷ সব ঘটনা প্রচারের কেন্দ্রেও পৌঁছাতে পারে না৷ বিশ্বের প্রায় কোনো দেশেই সংখ্যালঘুরা কোনো না কোনোভাবে বৈষম্যের শিকার হন৷ তবে কমপক্ষে শিশুদের এই জটিল সমস্যা থেকে দূরে রাখতে চান অনেকে৷ এক্ষেত্রে একজন শিক্ষকের ভূমিকা ও দায়িত্ব অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ – এ বিষয়ে সন্দেহ নেই৷

সংকলন: সঞ্জীব বর্মন

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন