1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

গ্রিসের সঙ্গে ঋণ চুক্তির ব্যাপারে আশাবাদ

শেষ মুহূর্তে দেয়া গ্রিসের প্রস্তাবে ইউরোপ সহ বিশ্ব অর্থনীতিতে আশার আলো দেখা দিয়েছে৷ ফলে ইউরোজোন থেকে গ্রিসের বেরিয়ে যাওয়া ঠেকানো যেতে পারে বলে মনে করছেন ইউরোজোনের বেশিরভাগ নেতা৷

অবশ্য জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল ও অর্থমন্ত্রী ভল্ফগাং শয়েবলে সতর্ক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন৷

তিন আন্তর্জাতিক দাতা – আইএমএফ, ইইউ ও ইসিবি-র সঙ্গে গত প্রায় পাঁচ মাস ধরে গ্রিসের আলোচনা চলছে৷ বেইলআউট প্যাকেজের শেষ কিস্তির টাকা (৭.২ বিলিয়ন ইউরো) পাওয়ার শর্ত হিসেবে গ্রিসকে বিভিন্ন খাতে সংস্কার করার প্রস্তাব দেয় তিন দাতা৷ কিন্তু গ্রিসের বামপন্থি সরকার কয়েকটি বিষয়ে একমত হতে পারেনি৷ ফলে ইউরোজোন থেকে গ্রিসকে বের হয়ে যেতে হতে পারে আশঙ্কা দেখা দিয়েছিল৷ এই পরিস্থিতিতে সোমবার সন্ধ্যায় ব্রাসেলসে ইউরোজোনের শীর্ষ নেতা ও আন্তর্জাতিক দাতাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বৈঠক করেন৷ সেখানে গ্রিস নতুন প্রস্তাব দেয়৷ আর তাতেই আশার আলো দেখা শুরু করেছেন ইউরোজোনের বেশিরভাগ নেতা৷

ইউরোপীয় কমিশনের প্রধান জঁ ক্লোদ ইয়ুংকার গ্রিসের নতুন প্রস্তাব ‘বিশ্বাসযোগ্য' বলে মনে করছেন৷ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ফ্রঁসোয়া ওলঁদও এখন গ্রিসের সঙ্গে চুক্তির ব্যাপারে আশাবাদী বলে জানিয়েছেন৷

তবে জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল গ্রিসের নতুন প্রস্তাবকে ‘আরও আলোচনার জন্য ভালো শুরু' বলে মন্তব্য করেছেন৷ জার্মান অর্থমন্ত্রী অবশ্য গ্রিসের নতুন প্রস্তাবে নতুন কিছু পাননি৷

পরবর্তী পদক্ষেপ

বুধবার ইউরোজোনের অর্থমন্ত্রীরা আবার বৈঠকে মিলিত হবেন৷ এরপর বৃহস্পতিবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৮টি দেশের শীর্ষ নেতাদের বৈঠকে গ্রিসের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরিত হতে পারে৷

নতুন প্রস্তাবে কী আছে

গ্রিসের বামপন্থি সরকার তাদের নতুন প্রস্তাবে অবসর নেয়ার সময় ধাপে ধাপে বাড়িয়ে ৬৭ করার কথা বলেছে৷ এছাড়া আগেভাগে অবসর নেয়ার বিষয়টি বন্ধের উদ্যোগ নেবে বলে জানিয়েছে৷ মূল্য সংযোজন কর ২৩ শতাংশ করা এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ধনীদের উপর বেশি করে কর আরোপের ব্যাপারে সম্মত হয়েছে৷

দাতাদের সঙ্গে আলোচনায় যে ব্যাপারগুলোতে গ্রিস একেবারে একমত হতে চায়নি, নতুন প্রস্তাবেও সেগুলো উল্লেখ করা হয়নি৷ যেমন পেনশন ও বেতন কমানো এবং বিদ্যুতের উপর ভ্যাট বাড়ানো ইত্যাদি৷

জেডএইচ/এসবি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়